অমিত শাহের রোড শো ঘিরে তীব্র উত্তেজনা, বিজেপি-টিএমসিপি সংঘর্ষ বিদ্যাসাগর কলেজে জ্বলল আগুন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#কলকাতা: বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো কলেজ স্ট্রিটে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেন গেটের সামনে আসতেই তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে তুলকালাম বেঁধে গেল কলেজ স্ট্রিটে। বিজেপি-র ওই জনজোয়ার আর তৃণমূল ছাত্রপরিষদের কর্মীদের সংঘর্ষ থামাতে নাজেহাল হতে হল পুলিশকে। চলল ইট আর জলের বোতল ছোড়াছুড়ি। আহত হলেন দুই টিএমসিপি কর্মী।

রোড শো কলেজ স্ট্রিটে পৌঁছনোর আগেই কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সমর্থকেরা। দেওয়া হয়, ‘অমিত শাহ গো ব্যাক’ স্লোগান। ‘গণতন্ত্রের হত্যাকারী’ লেখা পোস্টার নিয়ে অবস্থান করছিলেন তাঁরা। ঘটনাস্থলে হাজির হয়েছিলেন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের সমর্থকেরাও। অমিত শাহ যাতে কালো পতাকা দেখতে না পান, সেই জন্য বড় ব্যানার দিয়ে রাস্তার এক পাশ ঢেকে দেওয়ার চেষ্টা করেন বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা। অন্য দিকে পুলিশ চেষ্টা করলেও সরানো যায়নি ছাত্রছাত্রীদের। মিছিলের থেকে পাল্টা জুতো, জলের বোতল ছোঁড়া হয় ছাত্রছাত্রীদের দিকে। একজন ছাত্রী আহত হয়েছেন বলেও টিএমসিপি-র তরফে দাবি জানানো হয়েছে।এর পরই ব্যারিকেড ভেঙে বিজেপি সমর্থকেরা ঢুকে পড়েন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে। বিজেপি এবং টিএমসিপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয় পরিস্থিতি।এর পরই অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে এলাকা।গেটের সামনে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় একটি বাইকে। মিছিল এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার পরেও ফের বিধানসরণিতে দু’টি বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়।

অমিত শাহ পৌঁছন রোদ পড়ার পর। বিকেলের হাল্কা ফুরফুরে হাওয়া গায়ে মেখে সন্তোষ মিত্র স্কোয়ার থেকে গাড়িতে চড়ে শুরু করেন মিছিল। বৈভবের এই মিছিল দেখতে কলকাতা যে খুব একটা অভ্যস্ত নয় তা বোঝাই গেল মিছিলের জনসমাগম দেখে। মিছিলে লোক ভরাতে বাইরের জেলা থেকে কর্মী সমর্থকদের নিয়ে আসা হয়েছিল।  রাস্তার দুই প্রান্তে পোস্টার, ফুল, কাট আউট, ফুলের পাপড়ি, মালা নিয়ে অমিত শাহকে বরণ করতে উপস্থিত হন হাজার হাজার কর্মী সমর্থকেরা। রোড শোয়ের একদম শুরুতেই আছে ঢাকিদের দল। রাস্তার দু’ধারে জমায়েত হন অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন জায়গায় আতসবাজি জ্বালিয়ে উৎসবে মাতেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকেরা। আদিবাসী লোকনৃত্যের পাশাপাশি রাস্তার দু’ধার থেকে ওড়ানো হয় গেরুয়া বেলুন।

 

 

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest