চুমু খেতে গিয়ে উল্টে গেল নৌকা, দেখুন প্রাক বিবাহ ফটোশুটের ভাইরাল ভিডিও!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নিউজ কর্নার ওয়েব ডেস্ক: বিয়ের আগে ফটোশুট করা হয় আসলে দুটি মানুষের মধ্যের প্রেম ভালোবাসা প্রণয়ের পরিমাণকে বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য। তবে এই ক্ষেত্রে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার কারণ কিন্তু যেটা সহজেই মাথায় আসবে তা নয়। সহজ করে বলা যায় ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে উল্টে পরে যাওয়ার জন্য।

প্রথম থেকেই বলা যাক। এই ফটোশুটটি করা হয়েছে, পাথনমথিত্তা জেলার কারামমনিত্তা এলাকায়। পেম্বা নদীর ওপরে। আর ভিডিওতে যে হবু দম্পতিকে দেখা গিয়েছে তাঁরা হলেন, থিরুভাল্লার তিজিন থ্যাঙ্কাছেন ও ছাঙ্গানাছেরির শিল্পা। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি নদীর ওপর ছোটো ডিঙি নৌকায় বসে আছে দু’জনে। চিত্রগ্রাহক তাঁর সহযোগীদের নির্দেশ দিচ্ছেন কী করতে হবে, কী ভাবে সবটা হবে। অন্য দিকে নৌকার ওপর দু’জনে একটি কলা পাতা মাথায় দিয়ে বসে আছেন। ঠিক যেন বৃষ্টি হচ্ছে এমন একটি ভাব। চিত্রগ্রাহক ব্যাপারটিকে আরও মাখো মাখো করার জন্য একে অপরকে চুম্বন করতে নির্দেশ দেন। সেই মতোই একে অপরকে চুম্বন করতে যাবেন আর তখনই ঘটল ঘটনাটি। দু’জনেই ভারসাম্য হারিয়ে ফেললেন। আর নৌকা উলটে দু’জনই পড়ে গেলেন নদীর জলে। ব্যস, আর পায় কে? সঙ্গে সঙ্গে ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট আর মুহূর্তে হাসির খোরাক হয়ে তা ভাইরাল।

https://www.facebook.com/WeddplannerWeddingStudio/videos/1596808883782488/

এই ফটোশুট করেছিল ওয়েডপ্ল্যানার্স ফটোগ্রাফি স্টুডিও। পরে অবশ্য একটি সাংবাদ মাধ্যমকে আয়োজক সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গোটাটাই পরিকল্পনা করেই করা। কিন্তু সেটি ওই হবু দম্পতি কে বলা হয়নি। চিত্রগ্রাহকদের মধ্যে বিনসি নির্মলন বলেন, আসলে সংস্থার ওয়েবসাইটের জন্য মজাদার কিছু দরকার ছিল। কিন্তু ওই দম্পতি সাধারণ ফটোশুটের জন্যই তাদের ডেকেছিল।তিনি বলেন, দম্পতি প্রথমে ভেবেছিল গোটাটাই একটি দুর্ঘটনা। তা ভেবে হেঁসেওছিলেন। কিন্তু শুটের পর তাঁদের ঘটনাটি খোলসা করে জানানো হয়। জানার পর তাঁরা বলেন, এটাতে খুবই মজা হয়েছে।

ভিডিওটি ইতিমধ্যেই এক লক্ষ ৯০ হাজার ভিউ হয়েছে। লাইক পেয়েছে চার হাজার।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest