চড়ছে পারদ, সঙ্গী আর্দ্রতার অস্বস্তি, দাবদাহে দগ্ধ কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#কলকাতা: দিন দুয়েকের মেঘ-শামিয়ানা উধাও। ফিরে এসেছে গা-জ্বালানো চড়া রোদ। আগামী দিন তিনেকের মধ্যে কোনও সম্ভাবনা নেই কালবৈশাখীর। কারণ, ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে হাওয়ার স্বাভাবিক অভিমুখ বদলে গিয়েছে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। আবহবিদদের একাংশ জানাচ্ছেন, হাওয়ার অভিমুখ স্বাভাবিক হওয়ার আগে কালবৈশাখীর দেখা পাওয়া যাবে না।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী কয়েকদিন কলকাতার তাপমাত্রা থাকবে ৩৭ ডিগ্রির কাছে। কোনও কোনও দিন শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়া দফতরের কর্তারা। গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। সোমবার থেকে অস্বস্তিকর হতে শুরু করেছে শহরের তাপমাত্রা। মঙ্গলবারের পর বুধবারেও তা আরও অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। বুধবার সকালে পারদ শুরুই হল ৩৭.২ থেকে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও বাড়ছে।এদিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা দুই ডিগ্রি বেশী। আর্দ্রতা সর্বোচ্চ ৯১ সর্বনিম্ন ৪৮ শতাংশ।

কলকাতার পাশাপাশি গরমে হিমশিম বাংলার বিভিন্ন জেলাও। আসানসোলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছুঁয়েছে ৪০ ডিগ্রিতে। বাঁকুড়ায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বর্ধমানে তাপমাত্রা ৩৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মেদিনীপুরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পারদ ছুঁয়েছে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে, পুরুলিয়ায় পারদ ছুঁয়েছে ৩৯.৭ ডিগ্রিতে। ‘ফণী’ যেতেই স্বমহিমায় কলকাতা-সহ বঙ্গে দাপট দেখাতে শুরু করেছে গরম। যতক্ষন না বেশি গরম থেকে সমপরিমাণ এবং বৃষ্টির জন্য জ্বালীয় বাষ্প তৈরি হচ্ছে ততদিন বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। সেই দিন আসতে এখনও দিন দুই তিনেক লাগতে পারে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। কলকাতার জন্য তা কত দীর্ঘায়িত হয় সেটাই দেখার।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest