জল সংরক্ষণের জন্য বিশেষ দিবস পালনের ডাক, ১২ জুলাই পদযাত্রায় হাঁটবেন মমতা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#কলকাতা: আগামী ১২ জুলাই ‘জল বাঁচান, জীবন বাঁচান’ দিবসের ডাক দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার এসএসকেএম হাসপাতালে একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এই কথা বলেন তিনি।

সোমবার চিকিৎসক দিবসের অনুষ্ঠানে এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই জল সংরক্ষণের গুরুত্বের কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “আমরা আজকেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি ১২ জুলাই ‘জল বাঁচান, জীবন বাঁচান’ দিবস পালন করব। ওই দিন দুপুর তিনটের সময় আমরা একটা মিছিল করব। আমি নিজেও জোড়াসাঁকো থেকে গান্ধীমূর্তি পর্যন্ত হাঁটব। সবার কাছে আবেদন জানাই, যে যেখানে সুযোগ পাবেন এই দিনটি পালন করুন। জল বাঁচানো মানে প্রকৃতিকে বাঁচানো। আগামী দিনে বিদ্যুৎ নিয়েও একটা করব।” ইতিমধ্যেই বিদ্যুৎ অপচয় রুখতে সচেতনতা প্রচার শুরুর পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্যের বিদ্যুৎ মন্ত্রক। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে রাজ্যবাসীর কাছে আবেদন জানিয়েছে সপ্তাহে একদিন আধঘণ্টা বাড়ির বিদ্যুৎ বন্ধ রাখতে। তাহলে বিদ্যুতেরও সাশ্রয় হবে আর পরিবেশও বাঁচবে।

১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ট্রমা কেয়ার সেন্টার তৈরি করা হয়েছে এসএসকেএম। এ দিন সেটারই উদ্বোধনে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এ দিন ‘চিকিৎসক দিবস’ হওয়ার উপলক্ষ্যে বিশিষ্ট চিকিৎসকদের সম্মান জানানোর সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার। সোমবার সেই অনুষ্ঠানে এসে মুখ্যমন্ত্রী বিশিষ্ট চিকিৎসকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। তার পর সমস্ত চিকিৎসককে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, “আজ বিধানচন্দ্র রায়ের জন্মদিন। রাজনীতির বাইরে চিকিৎসক হিসেবেও তিনি বিখ্যাত ছিলেন। তাই প্রতি বছর এই দিনটিকে চিকিৎসক দিবস হিসেবে পালন করি।” এ দিন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও বিশিষ্ট চিকিৎসক বিধানচন্দ্র রায়ের জন্ম ও মৃত্যুদিন। এই উপলক্ষ্যে বিধানচন্দ্রের ছবিতে মালা দেন।

উল্লেখ্য, ১০০ কোটির বেশি টাকা খরচ করা হয়েছে এই ট্রমা কেয়ার সেন্টার তৈরি করতে। ২৫০টি বেড থাকছে এখানে। পিপিপি মডেলে আরও ১৪ কোটি খরচ করে স্ক্যান ও এমআরআই-এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest