ধর্মবিশ্বাসের সঙ্গে সংঘাত, সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনয় ছাড়ার কথা ঘোষণা করলেন ‘দঙ্গল’ খ্যাত জায়রা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#মুম্বই: পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তায় ইতি টানলেন জায়রা ওয়াসিম। নিজের ইনস্টাগ্রামে সাড়ে পাঁচ পাতার একটি পোস্টে অভিনয় থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করার কথা ঘোষণা করলেন তিনি। সেই পোস্ট নিজের টুইটার, ফেসবুক অ্যাকাউন্টেও শেয়ার করেছেন জায়রা। ফিল্মি কেরিয়ার তাঁর বিশ্বাস এবং ধর্মের মাঝখানে এসে দাঁড়িয়েছে এবং সে কারণেই যে তিনি অভিনয় ছাড়ছেন, জায়রার পোস্টে বারবারই সে কথা উঠে এসেছে।

রবিবার তিনি ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে লিখেছেন, পাঁচ বছর হয়ে গেল তিনি বলিউডে পা রেখেছেন। অনেক কষ্ট করে বলিউডে নিজের একটা জায়গাও করে নিয়েছেন। অনেক মানুষের ভালোবাসা, আশীর্বাদ, সমর্থনও পেয়েছেন। কিন্তু তা সত্বেও তিনি বলিউড ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাঁর এই জীবনযাত্রা তাঁর ধর্ম ও বিশ্বাসের ওপর একটা হুমকি, আঘাতের মতো।

তিনি বলেন, এই সিদ্ধান্ত নিতে বেশ সময় লেগেছে। বলেন, তিনি নিজেকে এই জগৎ, এই পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন। হয়তো পেরেছেনও। কিন্তু তিনি এই জগতের নন। খাপ খান না। জায়রা ভেবেছিলেন, ভাগ্যের দরজা খুলে গেল। তিনি খুব খুশি থাকবেন। একটা অন্য রকমের জীবন। পাঁচ জনের এক জন হয়ে উঠবেন। সকলের কাছে উদাহরণের মতো হবেন। নব প্রজন্মের কাছে আদর্শ স্বরূপ হবেন।  কিন্তু না। তিনি উপলব্ধি করেছেন, তিনি খুশি নন।

বলিউডে পাঁচ বছর সম্পূর্ণ হল ‘দঙ্গল’ অভিনেত্রীর। এই বিষয়ে কিছু স্বীকারোক্তিও করেছেন তিনি। লিখেছেন, “আমার কাজ, আমার পরিচিতি নিয়ে আমি খুশি নই। অনেকদিন ধরে আমার মনে হচ্ছে অন্য কেউ হওয়ার জন্যই আমি পরিশ্রম করছি। যখনই আমি বুঝতে শিখেছি কিসের জন্য আমি সময় দিচ্ছি, পরিশ্রম করছি, তখনই আমি বুঝেছি এখানে আমাকে মানালেও আমি এর জন্য উপযুক্ত নই। এই জগৎ আমাকে অনেক ভালবাসা, সমর্থন দিয়েছে। কিন্তু পাশাপাশি এর জন্য আমি আমার বিশ্বাস থেকে সরে গিয়েছি। আমার কাজের সঙ্গে আমার ধর্মবিশ্বাসের সংঘাত হচ্ছে।” জায়রার মতে, তিনি যতই নিজেকে বোঝান যা তিনি করছেন সব ঠিক ততই তাঁর জীবন থেকে ‘আর্শীবাদ’ হারিয়ে যাচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “নতুন ভাবে সবকিছু শুরু করার জন্য এ ছাড়া আর কিছু করার নেই আমার।”

জায়রার সংযোজন,‘কোরানের বিশাল এবং ঐশ্বরিক জ্ঞানের মধ্যে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি। প্রকৃতপক্ষে হৃদয় তার সৃষ্টিকর্তার জ্ঞান, তাঁর গুণাবলী, তাঁর করুণা এবং তাঁর আদেশের জ্ঞান অর্জনে শান্তি পায়।’ নিজের ব্যক্তিগত বিশ্বাসের বদলে আল্লাহ-র উপরেই যে ভীষণ ভাবে বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন জায়রা, তার উল্লেখও রয়েছে পোস্টে। এতদিন নিজের বিবেকের সঙ্গে প্রতারণা করে কী ভাবে সৃষ্টিকর্তা দ্বারা সৃষ্টির প্রকৃত উদ্দেশ্য ভুলে নিজের জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি, সেটারও উল্লেখ রেখেছেন ওই পোস্টে। শেষে সকলের প্রতি জায়রার উপদেশ— সাফল্য, খ্যাতি, সম্পদ যে পর্যায়ে পৌঁছে যাক না কেন, তাতে যেন কখনও শান্তি এবং নিজের বিশ্বাস না হারিয়ে যায়।

বহুদিন থেকে যে কারণেই হোক জায়রা যে শান্তিতে ছিলেন না তা অবশ্য বছর খানেক আগেই তাঁর অন্য একটি পোস্ট থেকে জানা গিয়েছিল। এর আগে ২০১৮ সালে নিজেকে ভীষণ অবসাদগ্রস্ত জানিয়ে পোস্ট করেছিলেন জায়রা। সেই পোস্টে তিনি জানিয়েছিলেন, গত চার বছর ধরে দিনে পাঁচ বার করে অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট খেতে হয় তাঁকে। সপ্তাহের পর সপ্তাহ ঘুম হয় না। এমনকি মানসিক অবসাদ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে, কখনও কখনও তাঁর আত্মহত্যার চিন্তাও মাথায় এসেছিল বলে জানিয়েছিলেন জায়রা। কিন্তু এত অবসাদ কেন তাঁকে গ্রাস করেছিল তা তখন স্পষ্ট করেননি তিনি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest