বাড়ল জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের আওতায় থাকা স্কলারশিপের অর্থ, প্রথম দিনেই ফাইলে সই মোদীর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রীর দফতরে দায়িত্বভার নিয়েই প্রথম দিনেই বড় সিদ্ধান্ত নিলেন নরেন্দ্র মোদী। জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের আওতায় প্রধানমন্ত্রী বৃত্তি যোজনায় পরিবর্তনে অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের আওতায় প্রধানমন্ত্রী স্কলারশিপ দেওয়া হয়। সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে বা মাওবাদী হামলায় বা তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিরাপত্তা বাহিনীর যে জওয়ান বা পুলিশ কর্মীর মৃত্যু হয়, তাঁদের সন্তানদের জন্য এই প্রকল্পের আওতায় ভাতা দেওয়া হয়। মৃত জওয়ান বা পুলিশ কর্মীর পরিবারের পুত্র সন্তান পড়াশোনার জন্য এতদিন মাসে ২ হাজার করে ভাতা পেত, তা বাড়িয়ে আড়াই হাজার টাকা করলেন প্রধানমন্ত্রী। কন্যা সন্তানদের জন্য এই প্রকল্পের আওতায় ভাতা ছিল মাসে ২২৫০ টাকা, তা বাড়িয়ে তিন হাজার করা হল। মন্ত্রিসভার বৈঠকে ওই প্রস্তাবে অনুমোদন করার পর তা এ দিন নিজেই টুইট করে ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। টুইটারে লিখেছেন, ‘দেশের রক্ষায় যাঁরা নিযুক্ত, আমাদের সরকার প্রথম সিদ্ধান্ত তাঁদের উত্সর্গ করলাম। ন্যাশনাল ডিফেন্স ফান্ডে প্রধানমন্ত্রী স্কলারশিপ যোজনায় বড় বদল অনুমোদন করা হল। সন্ত্রাস ও মাওবাদী হামলায় শহিদ পুলিস আধিকারিকদের পরিবারও এবার স্কলারশিপের সুবিধা পাবেন’।

এদিন দফতরে পা দিয়ে সর্দার পটেল ও মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে ফুল দেন প্রধানমন্ত্রী।  তারপর কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকেও হাজির হন মোদী। ওই বৈঠকে স্কলারশিপ বাড়ানোর সিদ্ধান্তে সর্বসম্মতিতে অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা।

পর্যবেক্ষকদের মতে, মোদীর দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম সিদ্ধান্তটিও সুচিন্তিত। আপাত দর্শনে কেবল ভাতা বাড়ানো হল ঠিকই। কিন্তু রাজনৈতিক ভাবে জাতীয়তবাদের মোড়কটিও থাকল। হতে পারে আগেই থেকেই এর প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলেন নরেন্দ্র মোদী।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest