ভোট মিটতেই টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ‘‌চৌকিদার’‌ বাদ দিলেন মোদী

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#নয়াদিল্লি: তাঁর নিজস্ব টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে নামের আগে ‘‌চৌকিদার’‌ শব্দবন্ধ সরিয়ে দিলেন নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবার জনাদেশে ফের ক্ষমতায় ফেরার খবর পেয়ে গিয়েছে বিজেপি। বিকেলের মধ্যে চৌকিদার শব্দটি মুছে দিয়ে তার কারণ হিসেবে মোদী টুইটারে লিখেছেন, ‘‌এবার সময় এসেছে চৌকিদারের উদ্যমকে দ্বিতীয় স্তরে নিয়ে যাওয়ার। এই উদ্যমকে সর্বদা জাগ্রত করে রাখতে হবে আর ভারতের উন্নতির চেষ্টা করে যেতে হবে। চৌকিদার শব্দটি টুইটার থেকে সরিয়ে দিলাম কারণ ওটা আমার নিজস্ব হয়ে থাকবে।’‌

দলের অন্য নেতানেত্রীদেরও তাঁদের নামের আগে থেকে চৌকিদার শব্দবন্ধ মুছে দিতে অনুরোধ করে দেশবাসীকে ধন্যবাদ দিয়ে মোদী টুইট করেছেন, ‘‌দেশের মানুষ চৌকিদা হয়ে তাঁদের পরিষেবা দিয়েছেন। জাতপাতের দ্বন্দ্ব, সাম্প্রদায়িক হিংসা, দু্র্নীতি এবং কর্মক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্বর ক্ষেত্রে দেশের সুরক্ষায় চৌকিদার এখন একটা প্রতীক হয়ে গিয়েছে।’‌
ভোটের আগে নিজেকে চৌকিদার বলে প্রচার করেছিলেন মোদী। টুইটার অ্যাকাউন্টে নামের আগে চৌকিদার শব্দবন্ধ বসিয়েছিলেন। শুধু মোদীই নয়, সব বিজেপি নেতানেত্রীরাই নিজেদের নামের আগে চৌকিদার লেখা শুরু করে দিয়েছিলেন। ভোট মিটে গিয়েছে। বিজেপি একাই তিন শতাধিক আসন নিয়ে সংসদে ফিরছে। তাই আর বোধহয় চৌকিদারি জাহির করার প্রয়োজন নেই বোধ করছেন না ভাবী প্রধানমন্ত্রী।

মার্চ মাসে এই চৌকিদার শব্দটি নিয়ে ভোটপ্রচার শুরু করেন নরেন্দ্র মোদী। দেশের উদ্দেশে বার্তা দেন, ‘আমিও চৌকিদার’। ডাক দেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে চৌকিদারি করার। তাঁর দলের কর্মী, সমর্থকদের কাছেও অনুরোধ করেন, তাঁদের সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্টে নামের আগে চৌকিদার বসাতে। তিনি বলার পরেই অমিত শাহ, অরুণ জেটলি, রবিশঙ্কর প্রসাদ, পীযূষ গয়াল, স্মৃতি ইরানি, নিতিন গডকড়ী, সুষমা স্বরাজ প্রমুখ সমস্ত নেতা টুইটারে তাঁদের নামের আগে চৌকিদার বসান।শুধু তা-ই নয়। দেশ জুড়ে বহু সমর্থকও সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘চৌকিদার’ হয়ে ওঠেন। মোদী মার্চে বলেন, “দেশের সেবায় চৌকিদার দৃঢপ্রতিজ্ঞ। কিন্তু আমি একা নই। এই দেশে যাঁরাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে, সামাজিক ক্ষয়ের বিরুদ্ধে কোনও না কোনও ভাবে রুখে দাঁড়চ্ছেন, তাঁরা সবাই চৌকিদার। দেশের উন্নয়নের লড়াইয়ে যাঁরা সামিল, তাঁরা সকলেই চৌকিদার। তাই তো আজ দেশের প্রতিটি মানুষ গলা মিলিয়ে বলছেন, ম্যায় ভি চৌকিদার!”

২০১৪ সালের ফলকেও ছাপিয়ে দিয়েছে এবারের ফল। তিনশোর বেশি আসন নিয়ে প্রত্যাবর্তন করেছে মোদী সরকার। সে জন্য দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা, ধন্যবাদ ভারত! আমাদের জোটের আপনারা ভরসা রেখেছেন। সাধারণ মানুষের আশাপূরণে আরও পরিশ্রম করার শক্তি দিলেন আপনারা। বিজেপি কর্মীদের দৃঢ়তা, অধ্যবসায় ও কঠোর পরিশ্রমকে কুর্নিশ করছি। ঘরে ঘরে গিয়ে উন্নয়নমুখী কাজগুলির প্রচার করেছেন তাঁরা।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest