স্নাতকের পোশাক পরে মোদীর সভায় ‘পকোড়া’ বিক্রি, আটক ১২ কলেজ পড়ুয়া

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

#চণ্ডীগড়: মঞ্চে তখন বক্তৃতা করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর মাঠের এক্কেবারে পিছনে গরম গরম ভাজা হচ্ছে ‘মোদী পকোড়া।’ মোদীর সভায় মোদী পকোড়া বিক্রি করায় ১২ জন কলেজ পড়ুয়াকে আটক করল পুলিশ। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে চণ্ডীগড়ে।

মঙ্গলবার চণ্ডীগড়ে দলীয় প্রার্থী তথা অভিনেত্রী কিরণ খেরের প্রচারে নির্বাচনী সভা করতে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর সমাবেশের আগে সভাস্থলের পাশেই স্নাতকের সমাবর্তনের কালো পোশাক পরে পকোড়া ভেজে বিক্রি করা শুরু করেন পড়ুয়ারা। এক প্রতিবাদী ছাত্রী বলেন, “মোদীর সভায় আমরা পকোড়া বেচতে চাই, যাতে তিনি বুঝতে পারেন যে একজন শিক্ষিত যুবার জন্য পকোড়া বিক্রি করাটা কতটা মহান কাজ।” এর পাশাপাশি, এক ছাত্রকেও চেঁচিয়ে বলতে শোনা যায়, “ইঞ্জিনিয়ারদের তৈরি পকোড়া খেয়ে যান, বিএ ও এলএলবি পকোড়া বিক্রি হচ্ছে।” পুলিশ জানিয়েছে, সভার মাঝামাঝি সময়ে ওই ১০-১২ জনকে আটক করা হয়েছিল। সভা শেষের পর আবার তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। ওই দলে থাকা এক তরুণী পরে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “মোদীজির পকোড়া যোজনায় আমরা কাজ পেয়েছি। তাই বিক্রি করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ আমাদের ধরে আনল। এ তো প্রধানমন্ত্রীরই অপমান।”

প্রসঙ্গত, গত বছর জানুয়ারি মাসে একটি সাক্ষাত্‍‌কারে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, যাঁরা পকোড়া বিক্রি করে দিনে ২০০ টাকা আয় করছেন, তাঁদের বেকার বলা যায় না। মোদীর এই মন্তব্যের পর বিভিন্ন মহলে শুরু হয়ে যায় প্রতিবাদ। তাঁর বিরুদ্ধে তোপ দাগে বিরোধীরাও। এ বার নির্বাচনে অন্যতম ইস্যু দেশে ক্রমে বাড়তে থাকা বেকারত্ব। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও সাফ জানিয়ে দেন বেকারত্বের ইস্যুতেই এ বার নির্বাচনে লড়াই হবে। কারণ দেশে চাকরির ছবিটা খুবই খারাপ। এ বছরই প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, দেশের বেকারত্বের হার বেড়েছে ৬.১%। যা ১৯৭০ সালের পর থেকে সর্বাধিক।

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest