রেকর্ড আক্রান্ত, রেকর্ড মৃত্যু! ২৪ ঘণ্টায় করোনায় দেশে মৃত ২৬০, আক্রান্ত ৯৩০৪

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

নয়াদিল্লি : আগেই পূর্বাভাস ছিল যে ক্রমশ জুন মাসে দেশে করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে এগোবে। সেভাবেই প্রায় প্রতিদিন বাড়ছে নয়া কেসের সংখ্যা ও বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘন্টাতেই সারা দেশে করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ৯ হাজার ৩০৪। যা এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

ভারতে মোট করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ২ লক্ষ ১৬ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী সারা দেশে করোনার বলি ৬ হাজার ৭৫। যদিও এখন দেশে করোনা রোগীর সুস্থ হয়ে ওঠার হার প্রায় ৪৮ শতাংশ। ১ লক্ষ ৪ হাজার ১০৭ জন সুস্থও হয়ে উঠেছেন কিন্তু তাতেও সংক্রমণের গতি কমছে না।

আরও পড়ুন: ফলের মধ্যে বিস্ফোরক ভরে মারা হয়েছে আরও একটি হাতিকে, মিলল নৃশংস অত্যাচারের প্রমাণ

দেশে সবচেয়ে করোনা বিধ্বস্ত তিনটি রাজ্য হলো মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু ও দিল্লি। মহারাষ্ট্রে শুধু বুধবারই নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ২৭৬ জন। মৃত্যু ১২২ জনের। যা মহারাষ্ট্রে এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি।

তামিলনাড়ুতেও একদিনে সর্বোচ্চ এক হাজারেরও বেশই করোনা আক্রান্তর হদিশ মিলেছে। যার দরুন সে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তর সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে। দিল্লির অবস্থাও  শোচনীয়। রাজধানীতে মোট করোনা আক্রান্ত ২৩,৬৪৫।
নতুন করে ভয় বাড়াচ্ছে উপসর্গহীন করোনা বাহকরা। যাদের অ্যাসিম্পটমেটিক বলা হচ্ছে। অসমের প্রায় ৯০ শতাংশ রোগীই অ্যাসিম্পটমেটিক। বন্যা বিধ্বস্ত সে রাজ্যেও গত ২৪ ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২৬৯ জনের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে।

গত সাত দিনে চিন্তা বাড়িয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্নাটক, হরিয়ানার, অসম, বিহারের মতো রাজ্য যেখানে করোনা সংক্রমণ আগে অপেক্ষাকৃত কম ছিল।দেশে পয়লা জুন থেকে শুরু হয়েছে আনলক ১, যেখানে তিন ধাপে যাবতীয় বিধিনিষেধ উঠিয়ে দিতে উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্র।

আরও পড়ুন: গুজরাতের রাসায়নিক কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ, নিহত ৮, আহত ৫০

Gmail
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest