করোনার থাবা এবার রুজি-রুটিতে, চাকরি গেল Zomato-র ৫০০ কর্মীর

ওয়েব ডেস্ক: উবেরের পর এবার জোম্যাটো। করোনার জেরে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ে কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিল এই অনলাইন খাবার ডেলিভারির অ্যাপও। শুক্রবারই জোম্যাটোর সিইও দিপিন্দার গোয়েল জানিয়ে দিলেন, কোম্পানির প্রায় ১৩ শতাংশ কর্মীকে বরখাস্ত করা হল। সেই সঙ্গে অন্তত ছ’মাসের জন্য কমে যাচ্ছে বাকিদের বেতন।

তবে উবেরের তুলনায় খানিকটা মানবিক জোম্যাটো। সিইও বলেন, “করোনার জেরে নানা ধরনের প্রতিকূলতার সম্মুখীন হচ্ছি আমরা। তাছাড়া লকডাউন থাকায় সমস্ত কর্মীদের কাজ দিতে পারছি না। কঠিন পরিস্থিতিতে আমাদের কর্মীরা কাজ করছে। কিন্তু ১৩ শতাংশ কর্মীকে আর কাজে রাখা সম্ভব হবে না।

আরও পড়ুন: অন্তহীন দুর্ভোগ! পরিযায়ী শ্রমিকদের যন্ত্রণার এই ১২ টি ভিডিয়ো আপনাকে কাঁদাবেই…

তারা যাতে অন্য চাকরি খুঁজে নিতে পারে, তার জন্য আগামী কয়েকদিন আমরা ভিডিও কলে আলোচনা করব। তবে যাদের চাকরি যাচ্ছে, কোম্পানি তাদের আগামী ৬ মাস ৫০ শতাংশ বেতন দেবে।” একই সঙ্গে তিনি জানান, এমন কিছু এজেন্সি রয়েছে যারা জোম্যাটোকে কর্মী দেয়। অর্থাৎ যে কর্মীরা কোম্পানির পে রোলের বাইরে, তাঁরাও যাতে আগামী দু’মাসের বেতন পান, সে ব্যবস্থাও করা হবে।

করোনা কেবল শরীরে মনে নয়, ভাতে মেরেছে বিশ্ববাসীকে। আগামীতে এর ভয়াবহ পরিণতি দেখতে হবে গোটা বিশ্বকে। মারাত্মক এই পরিস্থিতিতে লাভ লোকসানের অঙ্ক না কষে টিকে থাকার কথা ভাবা উচিত প্রত্যেকের। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই সরকার বাহাদুরের ভূমিকা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। বেসরকারি কোম্পনীগুলির ভূমিকাও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। মুনাফার কথা কম ভেবে তাদের আরও একটু মানবিক হতে হবে। তাহলেই আমরা সকলে বাঁচতে পারব। কেবল চাকরি ছাঁটাই অৰ্থনীতিতে বড় বিপদ নিয়ে আসবে। তা অর্থনীতিকে আরও কমজোর করে দেবে।কারণ আয় না থাকলেও ওই মানুষগুলির চাহিদা একই থাকবে। তাদের পিটার জ্বালা নিবারণ হবে কি দিয়ে। এর উত্তর খুঁজতে হবে সকলকে।

আরও পড়ুন: যোগীর রাজ্যে এবার নিষিদ্ধ লাউডস্পিকারে আজান, নির্দেশ এলাহাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশ

Gmail 2