করোনায় মৃত ব্যক্তির সৎকার হবে সরকারি তত্ত্বাবধানে, পরিবারকে দেওয়া হবে না দেহ

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কলকাতা: কলকাতার প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্তের দেহ সৎকারে চরম সতর্কতা নিতে চলেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। ওই দেহ থেকে যেন কেউ সংক্রমিত না হন তা নিশ্চিত করতে WHO-র নির্দেশিকা মেনে চলা হবে বলে স্বাস্থ্য ভবন সূত্রের খবর। সোমবার দুপুরে বিধাননগরের বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় দমদমের বাসিন্দা ওই প্রৌঢ়ের। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, চাইলে প্রৌঢ়ের দেহ দেখতে পাবেন পরিজনরা। তবে তা ছুঁতে পারবেন না তাঁরা।

আরও পড়ুন: শুধুমাত্র করোনা আক্রান্তের চিকিৎসা হবে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে, বাকি রোগীদের অন্যত্র সরানোর নির্দেশ

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট মৃত রোগীর ফুসফুস থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা প্রবল। কাজেই পোস্টমর্টেম বা অটোপসি না করাই ভাল এমনটাই পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। মর্গে এই ধরনের মৃতদেহ ৪ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডের নিচে তাপমাত্রায় রাখতে হবে অর্থাৎ পরিপূর্ণভাবে কোল্ড চেম্বারে এই ধরনের ভাইরাস আক্রান্ত মৃতদেহ সংরক্ষণ করতে হবে। মৃতের দেহ থেকে সাবধানে খুলে ফেলতে হবে সব নল। হাইপোক্লোরাইড (ব্লিচিং পাউডারের মতো পদার্থ যা থেকে ক্লোরিন বেরোতে থাকে) দিয়ে বন্ধ করতে হবে নল লাগানোর ছিদ্রগুলি। এর পর দেহের ওপর ছড়ানো হবে জীবাণুনাশক।

আরও পড়ুন: মমতার অনুরোধে সাড়া, মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে সমস্ত ঘরোয়া উড়ান

সংশ্লিষ্ট মৃত রোগীর যে ঘরে চিকিৎসা হচ্ছিল সেই ঘর এবং সেই ঘর থেকে যে দিকে তাকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে সমগ্র ফ্লোর, সিলিং, দেওয়াল, বেড, ইকুইপমেন্টস ইউজ করা হয়ে ছিল তা বিশেষ সলিউশন এবং ফিউমিকেশন করতে অর্থাৎ জীবাণুমুক্ত ভাইরাস মুক্ত করতে হবে। রোগীর ব্যবহার করা যাবতীয় চিকিৎসা সামগ্রী, যেমন, নল, তুলো নিয়ম মেনে নষ্ট করতে হবে।

এরপর বিশেষ ধরনের ভাইরাস এবং জীবাণুরোধক ব্যাগের মধ্যে এই দেহকে ঢুকিয়ে ভাল করে বেঁধে নিতে হবে। যারা মৃতদেহ বহন করবেন বা মৃতদেহর  কাছে যাবেন তাদের বিশেষ ধরনের মাস্ক, হেলমেট, গায়ের পোশাক, পায়ের জুতো পরতে হবে। মৃতদেহ বহনকারী গাড়ি ফিউমিকেশন করা হবে। পরিজনদের যেতে দেওয়া হবে না মৃতদেহের কাছে। বডি ব্যাগ খুলে মৃতদেহের সঙ্গে থাকা ব্যক্তি মুখ দেখিয়ে দেবেন পরিবারকে, নির্দেশ এমনটাই। দেহ পোড়ানো বা কবর দেওয়ার পর যুক্তদের সম্পূর্ণ পরিষ্কার হতে হবে বিশেষ পদ্ধতিতে। তবে জানানো হয়েছে, সৎকারের শেষে চাইলে অস্থি ভষ্ম নিতে পারে মৃতের পরিবার।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest