আজ থেকে এক সপ্তাহ আন্তর্জাতিক উড়ান বন্ধ কলকাতা বিমানবন্দরে, ডোমেস্টিক বিমান পরিষেবাতেও কাটছাঁট

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কলকাতা: করোনা আটকাতে এ বার কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত বিদেশ থেকে আসা বিমান পরিষেবা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিল। আজ, শনিবার দিল্লি থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বোয়িং-৭৭৭ বিমান উড়ে গিয়েছে রোমের উদ্দেশে। ওই বিমানটি ইতালিতে আটকে পড়া ভারতীয়দের নিয়ে ফিরবে রবিবার ভোরে। তার পর সাত দিন অর্থাৎ ২২ মার্চ থেকে ২৯ মার্চ সমস্ত আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার।

আরও পড়ুন:  শুনশান রাস্তাঘাট, অমিল বাস, বন্ধ দোকানপাট, জনতা কার্ফু-তে স্তব্ধ রাজ্য

শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত দুবাই, দোহা ও আবুধাবি থেকে আসা ৬৮৭ জন যাত্রীকে রাজারহাটের কোয়রান্টিনে পাঠানো হয়েছে। এমনই এক যাত্রী দেবলীনা হাঁটি শনিবার জানিয়েছেন, শুক্রবার মাঝ রাতে দুবাই থেকে নামার পরে তাঁদের বাসে করে ওই কোয়রান্টিন সেন্টারে নিয়ে গিয়ে পরীক্ষা করা হয়। যাঁদের নিয়ে সন্দেহ দেখা দেয়নি, তাঁদের ছেড়ে দেওয়ার সময়ে বাড়িতে ১৪ দিন গৃহবন্দি থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়াও শুক্রবার রাত ও শনিবার সকালে সিঙ্গাপুর এবং দিল্লি থেকে ইউরোপ ঘুরে আসা ২৬ জন যাত্রীকেও ওই কোয়রান্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। বিমানবন্দর কর্তাদের কথায়, রবিবার সকালের পরে চিন্তা থাকবে শুধু অভ্যন্তরীণ যাত্রীদের নিয়ে। আপাতত কলকাতায় দিনে গড়ে ২০ হাজার অভ্যন্তরীণ যাত্রী নামছেন। তার মধ্যে অসংখ্য পড়ুয়া রয়েছেন। এঁরা বিভিন্ন রাজ্যে পড়াশোনা করতে গিয়েছিলেন। ভিন্ রাজ্য থেকে কলকাতায় আসা প্রত্যেক যাত্রীকে বিমানবন্দরের বাইরে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। সেখানে যাঁদের দেহে সংক্রমণের সামান্য লক্ষণ দেখা যাচ্ছে, তাঁদের কোয়রান্টিন সেন্টারে পাঠানো হচ্ছে। সেখানে দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষা করা হচ্ছে। বিমানবন্দরে অভ্যন্তরীণ যাত্রীদের পরীক্ষা করছেন রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা।

আরও পড়ুন: ভয়াবহ পরিস্থিতি! করোনা-মৃত্যুতে ফের রেকর্ড, ইতালিতে ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৭৯৩

কেন্দ্রীয় বিমান মন্ত্রকের নির্দেশ মেনে শুক্রবার থেকে কলকাতায় নামা অভ্যন্তরীণ সব বিমানকে জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। মন্ত্রকের নির্দেশ, উড়ানে পাইলট ও বিমানসেবিকা মিলে যত জন কর্মী থাকবেন, ততগুলি বিশেষ পোশাক রাখতে হবে। যদি কোনও যাত্রীর মধ্যে কাশি-জ্বরের লক্ষণ দেখা দেয় এবং সেখান থেকে সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে, তা হলে বিমানকর্মীদের বিশেষ পোশাক পরতে হবে। ওই যাত্রীকে অন্য যাত্রীদের থেকে দূরে সরিয়ে নিতে হবে।

 

এ দিকে, জনতা কার্ফুর কথা মাথায় রেখে রবিবার ডোমেস্টিক বিমান পরিষেবায় কাটছাঁট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেশ কিছু বিমান সংস্থা। এর মধ্যে এক নম্বরে রয়েছে গো-এয়ার। তারা রবিবারের সব বিমানসূচি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইন্ডিগো ৬০ শতাংশ বিমান বাতিলের স্পাইসজেট ৫০-৬০ শতাংশ ডোমেস্টিক বিমান পরিষেবা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়া এবং ভিস্তারা শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা চালু রাখার জন্য যতটুকু বিমান পরিষেবা চালু রাখা প্রয়োজন, ততটুকুই চালু রাখবে। এমনকী, কোনও যাত্রী যদি শেষমুহূর্তে যাত্রা বাতিল করতে চান, তাঁকে পুরো টিকিটের টাকাই ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সবগুলি বিমান সংস্থা।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest