দিঘা থেকে ৫১০ কিমি দূরে আমফান, শুরু বৃষ্টি-দমকা হাওয়া, কোথায় কোথায় ছোবল মারবে জেনে নিন…

ওয়েব ডেস্ক: আরও কাছে চলে এল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আমফান। এই মুহূর্তে আমফান ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে মাত্র ৩৬০ কিলোমিটার দূরে। দিঘা থেকে ৫১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ৬৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে।

স্থলভাগে যখন আছড়ে পড়বে তখন এর ঘূর্ণনের গতিবেগ হবে ১৫৫-১৬৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়। এমনকি তা ১৮৫ কিলোমিটারও ছাড়িয়ে যেতে পারে। সেই সঙ্গে হবে প্রবল জলোচ্ছ্বাস।

আমফানের মোকাবিলা করতে সুন্দরবন এলাকায় এক ব্যাটালিয়ন মোতায়েন করা হয়েছে।আর এক ব্যাটালিয়ন মোতায়েন করা হয়েছে ইছামতী নদীতে।বিএসএফ সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘আমফান’ আগে মাথা হিট করবে, তার পর চোখ, তার পর লেজ…কাল-পরশু ঘরে থাকার পরামর্শ মমতার

দিঘা, কাঁথি, খেজুরি এবং নন্দীগ্রাম-সহ সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকায় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, কোস্টাল পুলিশ এবং নুলিয়ারা টহলদারি চালাচ্ছে। সঙ্গে মাইকিং-ও চলছে ।শঙ্করপুর থেকে তাজপুরের মাঝে কয়েকটি জায়গায় সমুদ্রবাঁধ দুর্বল হয়ে পড়েছে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় মেরামতির কাজ শুরু হয়েছে সেখানে।

আগামী ২-৩ ঘণ্টার মধ্যেই বজ্রবিদ্যুত্-সহ ঝোড়ো হাওয়া শুরু হবে পূর্ব মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবন লাগোয়া এলাকায়। এই সময় হাওয়ার গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ৩০-৪০ কিলোমিটার।আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, ঝড়ের তাণ্ডবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হতে পারে দুই ২৪ পরগনায়। তার পর কলকাতায়।

কলকাতায় সকাল থেকে ঝড় বইবে। গতি থাকবে সর্বোচ্চ ঘণ্টায় ১৩০ কিমি। হাওড়া-হুগলিতে হাওয়ার গতিবেগ থাকবে সর্বোচ্চ ঘণ্টায় ১২০ কিমি।

পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, কলকাতায় ঘূর্ণনের গতিবেগ থাকবে ১১০-১৩০ কিলোমিটার।উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে ঘূর্ণনের গতিবেগ হতে পারে ১৬৫-১৯৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা।

উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৪-৬ মিটার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। নীচু এলাকাগুলো তাতে প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
আমপানের প্রভাবে বুধবার ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হবে পশ্চিম মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি এবং কলকাতায়।

আজ সামান্য কিছুটা শক্তি হারিয়েছে, তবে এখনও ‘এক্সট্রিমলি সিভিয়ার সাইক্লোনে’র রূপ নিয়েছে। ফলে সমুদ্র থেকে যখন স্থলভাগে আমপান আছড়ে পড়বে তার গতি থাকবে প্রবল। আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে সাগরদ্বীপ এবং সুন্দরবন অঞ্চলে। যদিও এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না ঠিক কোথায় ছোবল মারবে আমপান। তবে যা গতিপথ রয়েছে তাতে মনে করা হচ্ছে সাগরদ্বীপ, কাকদ্বীপ এবং সুন্দরবন এলাকায় সবচেয়ে ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

আরও পড়ুন: বঙ্গের আরও কাছে সুপার সাইক্লোন ‘আমফান’, বাংলা-ওড়িশার উপকূলীয় অঞ্চলে জারি চরম সতর্কবার্তা

Gmail 2