বাঙালির প্রাণের উত্তম-এর কাহিনিকে এবার রূপোলি পর্দায় হাজির করছেন অতনু বসু। ছবির নাম ‘অচেনা উত্তম’। গত কয়েকদিন ধরেই উত্তম কুমারের এই বায়োপিক নিয়ে টলিপাড়ায় জোরচর্চা চলেছে। হবে নাই বা কেন? উত্তম কুমারের জুতোয় পা গলানোটা তো আর সহজ কাজ নয়! শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল টলিগঞ্জের কোনও এক চট্টোপাধ্যায়ই উত্তম কুমারের ভূমিকায় অভিনয় করবেন। জল্পনা সত্যি প্রমাণ করে বুধবার রাতে জানা গেন শ্বাশত চট্টোপাধ্যায়কেই দেখা যাবে উত্তম কুমারের ভূমিকায়।

এদিন দক্ষিণ কলকাতার এক নামী হোটেলে অনুষ্ঠিত হল ‘অচেনা উত্তম’-এর শুভ মহরত। হাজির ছিলেন ছবির সঙ্গে যুক্ত নামীদামী মুখেরা। মহানায়কের বায়োপিকে সুচিত্রা সেনের ভূমিকায় দেখা মিলবে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর, উত্তম পত্নীর চরিত্রে দেখা যাবে শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়কে, আর সুপ্রিয়া দেবী হচ্ছেন নবাগতা সায়ন্তনী রায় চৌধুরী। তুরুপের তাস অতনু সামনে আনলেন মহরতের সন্ধেবেলা। সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের ভূমিকায় ছোট পর্দার ‘রানিমা’ দিতিপ্রিয়া রায়। দিতিপ্রিয়া কিছুদিন আগেই ‘অভিযাত্রিক’ ছবিতে ‘অপর্ণা’ চরিত্রে অভিনয় করে শর্মিলা ঠাকুরের জুতোয় পা গলিয়েছিলেন।

এ ভাবেই কি ছোট পর্দা থেকে সরে ফিল্মের জগতে প্রবেশ করছেন তিনি? মঞ্চে বসেই অভিনেত্রী বললেন, ‘‘অতনুদা নিজে বিরাট চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন। আমাকেও চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন। আমি চেষ্টা করব আমার মতো করে সেই চরিত্র তুলে ধরার।’’ উত্তমকুমারকে নিয়ে সাধারণের কৌতূহল অফুরন্ত। আসল মানুষটি কেমন ছিলেন? এই জিজ্ঞাসার শেষ নেই। জি বাংলার ধারাবাহিক ‘রাণী রাসমণি’ ধারাবাহিকে এক সঙ্গে অভিনয়ের সুবাদে দিতিপ্রিয়াও উত্তমকুমারকে নিয়ে নানা প্রশ্ন করতেন মহানায়কের নাতি গৌরব চট্টোপাধ্যায়কে। দিতিপ্রিয়ার আশা, সেই কৌতূহল অনেকটাই মেটাবে ‘অচেনা উত্তম।’

আরও পড়ুন: রাধিকা-কর্ণর জায়গা নিচ্ছে ‘কড়ি খেলা’! শেষের মুখে ‘কি করে বলব তোমায়’?

দিতিপ্রিয়ার কথার রেশ ঋতুপর্ণার কথাতেও। জানালেন, ‘মহানায়িকা’র চরিত্র পেয়ে চিন্তা, আনন্দ দুইই হচ্ছে তাঁর। কারণ, ‘ম্যাডাম সেন’ বাঙালির আইকন, নস্টালজিয়া। বড় পর্দায় সেই চরিত্র জীবন্ত হতে চলেছে তাঁর হাত ধরে। কথা দিলেন, ‘‘পরিচালকের ইচ্ছে, স্বপ্নকে ক্যামেরার সামনে ফুটিয়ে তোলার আপ্রাণ চেষ্টা করব।’’

‘উত্তমকুমার’ শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের হাতে মাইক, বললেন ‘‘কারও পক্ষেই ওই জায়গায় পৌঁছনো সম্ভব নয়।’’ জানালেন, ‘‘যা কথাবার্তা শুনলাম, চাপ বেড়ে গিয়েছে! কিন্তু চাপ আমি নেব না।’’ অভিনেতা শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়ের ছেলে হওয়ার সুবাদে ছোট থেকেই তিনি তুলনা শুনে অভ্যস্ত। আর উত্তমকুমার তাঁর কাছে ‘জীবন্ত ঈশ্বর’।

অচেনা উত্তম-এ তরুণ বয়সের মহানায়ক ও গৌরী দেবী হিসাবে দেখা মিলবে তীর্থরাজ বসুর, ও স্নেহা দাসের। উত্তম ঘনিষ্ঠ পরিচালক ‘সলিল দত্ত’ অরিন্দম বাগচী, ‘শক্তি সামন্ত’ অনিন্দ্য সরকার। আছেন সম্পূর্ণা লাহিড়ি, অয়না চট্টোপাধ্যায়। অয়নাকে রাণী রাসমণি ধারাবাহিকে দেখা যাচ্ছে ‘মা সারদা’ হিসেবে। এদিন ছবির বাকি কাস্ট অ্যান্ড ক্রু হাজির থাকলেও দেখা মিলল না শ্রাবন্তীর।

আগামী মাসে শুরু হচ্ছে ছবির শ্যুটিং। এই ছবি প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছেন মুম্বইয়ের প্রোডাকশন কোম্পানি, অলকানন্দ আর্টস। মহানায়কের জীবন নিয়ে কাজ করতে ব্যাপক রিসার্চ করতে হচ্ছে গোটা টিমকে। সমালোচনা,তুলনা সবকিছুর জন্য তৈরি তাঁরা, তবে নিজেদের তরফে কোনও খামতি রাখতে চান না কেউই। উত্তমকে নিয়ে রিসার্চের দায়িত্বভার মূলত সামলাচ্ছেন শিবাশিস বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ছবির সিনেমাটোগ্রাফির দায়িত্বে রয়েছেন সুপ্রিয় দত্ত, সংগীতের দায়িত্বভার সামালবেন উপালি।

উত্তর বঙ্গ এবং কলকাতায় হবে ছবির শ্যুটিং। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতির জন্য কোমর বেঁধে ময়দানে নেমে পড়েছে টিম ‘উত্তম’।

আরও পড়ুন: মা হতে চলেছেন শ্রেয়া ঘোষাল, শেয়ার করলেন বেবি বাম্পের ছবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *