আরও সঙ্কটে সৌমিত্র,নতুন করে জ্বর, কপালে ভাঁজ চিকিৎসকদের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আরও সঙ্কটে অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থা। আচ্ছন্ন ছিলেনই। মানসিক বিভ্রমও ছিল। সেই সব সমস্যা এখনও একই রকম রয়েছে অশীতিপর অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। অচৈতন্য থাকলেও শারীরিক অস্থিরতা রয়েছে অস্বাভাবিক বেশি।

সোমবারও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বিষয়ে জারি করা মেডিক্যাল বুলেটিন বলছে, করোনার জেরে মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপ অস্বাভাবিক হয়ে যাওয়ার (কোভিড রিলেটেড এনসেফালোপ্যাথি) কারণেই এই সঙ্কট। শ্বাসকষ্ট না-থাকলেও ফুসফুসের উপর চাপ কমাতে মাঝেমধ্যেই গড়ে ১৫ লিটার প্রতি মিনিট হারে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে তাঁকে।

নিউরোলজিক্যাল অর্থাৎ মস্তিষ্কের স্নায়ু সংক্রান্ত সমস্যা এই মুহূর্তে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থাকে সঙ্কটজনক করে তুলেছে। সেই কারণে চিকিৎসকেরা ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেওয়ার যাবতীয় ব্যবস্থাও প্রস্তুত রেখেছেন।সোমবার হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর মূত্রথলিতেও সংক্রমণ ঘটেছে। ফলে ৮৫ বছরের সৌমিত্রের শারীরিক অবস্থা নিয়ে ফের নতুন করে উদ্বেগ তৈরি করেছে।

আরও পড়ুন : #BollywoodStrikesBack: রিপাবলিক,টাইমস নাওয়ের বিরুদ্ধে এবার হাইকোর্টে সলমন,শাহরুখ, অক্ষয় কুমার-সহ ৩৪ টি প্রযোজনা সংস্থা

সোমবার সকাল থেকেই বারেবারে চেষ্টা করা হয়েছিল তাঁর মস্তিষ্কের এমআরআই করানোর। অবশেষে দুপুরের পর তা সম্ভব হয়। এমআরআই রিপোর্ট নিয়ে মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা খুঁটিনাটি পরীক্ষা করে দেখেন। সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল সূত্রের খবর, একটা পর্যায়ে উত্তেজিত থাকা, এজিটেটেড হওয়া এবং আচ্ছন্নভাব এগুলো রয়েই যাচ্ছে। পূর্ণমাত্রায় সচেতন নন। মঙ্গলবার বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেডিকেল বোর্ড।

কোভিডে সংক্রমণের পর মধ্য কলকাতার বেলভিউ নার্সিং হোমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন সৌমিত্র। মঙ্গলবার তাঁকে ওই নার্সিং হোমে ভর্তি করানো হয়েছিল। এর পর গত শুক্রবার থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তবে দ্বিতীয় বার প্লাজমা থেরাপির পর সৌমিত্রর অবস্থার উন্নতি লক্ষ করা যায়।

রবিবার তাঁর মেয়ে পৌলমী বলেছিলেন, ‘বাবা খুব ভালো আছে, এমন নয়। কিন্তু ওঁকে জীবনদায়ী ব্যবস্থায় রাখা হয়েছে বলে যে বিভ্রান্তিমূলক খবর মাঝেমধ্যেই ছড়াচ্ছে, তা-ও ঠিক নয়।’

ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ অরিন্দম করের নেতৃত্বাধীন ১৫ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড সৌমিত্রের চিকিৎসা করছ। যার মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে সামিল করা হয়েছে সরকারি দুই চিকিৎসক, ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ বিভূতি সাহা ও সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ যোগীরাজ রায়কে।

হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ অরিন্দম করের অধীনে চিকিৎসা চলছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন,”সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ভালো নেই। শ্বাসযন্ত্রের ক্রিয়া স্বাভাবিক নয়। কারণ ফুসফুসে সংক্রমণ রয়েছে। আচ্ছন্ন ভাব রয়েছে। পূর্ণ মাত্রায় সচেতন নন তিনি। আজকে জ্বর এসেছে । সেটা চিন্তার কারণ। এখনো পর্যন্ত তাকে কোনো লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়নি। সোমবার অর্থাৎ আজ এমআরআই করা হয়েছে মস্তিষ্কে। সেখানে কোন কিছু তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় পাওয়া যায়নি। অভিনেতার মস্তিষ্কের নিউরোলজিক্যাল পরিস্থিতি ভালো নয়। সেটাই চিন্তার কারণ। তবে আমরা চিকিৎসকেরা আশাবাদী যে তিনি সুস্থ হয়ে উঠবেন। কারণ তার শরীরের সমস্ত অর্গান সিস্টেম এখনো ভালো পর্যায়ে রয়েছে। স্বাভাবিক কাজকর্ম করছে। করোনা ততটা বিপজ্জনক পর্যায়ে নেই।”

আরও পড়ুন : বিপাকে বিপ্লব দেব, নেতৃত্ব বদলের জন্য নাড্ডার কাছে নালিশ ঠুকতে গেলেন এক ডজন বিজেপি বিধায়ক

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest