ঝিনুকের উপর রাগে অশালীন আক্রমণ প্রমিতাকে, সাইবার সেলের দ্বারস্থ অভিনেত্রী

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আর পারছেন না অভিনেত্রী প্রমিতা চক্রবর্তী। সোশ্যাল মিডিয়া খুললেই তাঁকে নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে হাজারও মিম, ট্রোল। কেউ বলছেন তিনি গণ্ডার আবার কেউ বা বলছেন তিনি ‘পয়সার পিশাচ’।  ‘এখানে আকাশ নীল’ ধারাবাহিকে ঝিনুকের চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে ব্যক্তিগত জীবনেও যে এমন ট্রোল সহ্য করতে হবে তাঁকে, তা দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি প্রমিতা। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে অভিনেত্রী সাইবার সেলের দ্বারস্থ হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

লকডাউনের পর সদ্য শুরু হয়েছে ‘এখানে আকাশ নীল’। ধারাবাহিকের গল্প এখন বইছে অন্য খাতে। উজান-হিয়ার দূরত্বের ফাঁক গলে ঝিনুক এখন অনেক আপনজন। একদম টাটকা খবর, এক দিকে বিয়ের পথে উজান-ঝিনুক। অন্য দিকে, ফিরছে হিয়া। কিন্তু আদতেও কি দর্শকদের আপনজন হতে পেরেছেন ঝিনুক? সোশ্যাল মিডিয়ার উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের দিকে চোখ রাখলেই তা ঠাহর করতে পারবেন! কারণ, দর্শকরা তো খুঁজছেন হিয়াকে। তাঁরা মোটেই উজান-ঝিনুকের বিয়ে মেনে নিতে পারছেন না। বরং টেলিদর্শকদের কাছে উজান-হিয়ার দুষ্টু-মিষ্টি সম্পর্কটাই প্রিয়। কিন্তু সেই ঝাল মেটাতে গিয়ে এ কী করলেন তাঁরা? দেখলে, সভ্য সমাজের যে কেউ অবাক হবেন।

আরও পড়ুন: নস্টালজিক! রোনাল্ডো-বিপাশার চুম্বনের পুরনো ছবি নতুন করে ভেসে উঠল নেটদুনিয়া

image

আর এখানেই আপত্তি নেটাগরিকদের।  উজান-হিয়ার মাঝে ঝিনুককে একদম মেনে নিতে পারছেন না কেউ। ফলে, সব রাগ জড়ো হয়েছে ঝিনুকের উপর। সবার স্পষ্ট বক্তব্য, উজান-হিয়ার প্রেম, বিয়ে দেখতে চান তাঁরা। ঝিনুকের উপস্থিতি তাঁরা সহ্য করতে পারছেন না।

কিন্তু পরিস্থিতি জটিল হতে আরম্ভ করেছে। বিষয়টা শুধু দর্শকদের হিয়া আর ঝিনুককে পছন্দ করার মধ্যে নেই। ব্যক্তিগত ভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রমাগত আক্রমণে নাজেহাল প্রমিতা চক্রবর্তী ওরফে ঝিনুক। প্রায় বিধ্বস্ত প্রমিতা বললেন, ‘‘এই ধারাবাহিকে আমার নতুন চরিত্র। মানুষের গ্রহণ করতে সময় লাগে। তাই বলে এক জন মহিলা হিসেবে আমাকে যে ধারার অশালীন মন্তব্য করা হচ্ছে, আমার পরিবারকেও অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে, এগুলো কী?’’ ক্ষোভ উগরে দিলেন প্রমিতা। ধারাবাহিকে অভিনয় করতে এসে এ ভাবে যে ব্যক্তিগত আক্রমণের শিকার হবেন ভাবতেও পারেননি প্রমিতা।

প্রমিতা খুব শীঘ্রই সাইবার সেলে অভিযোগ জানাবেন। তিনি বললেন, ‘‘এখন কোনও মহিলাকে সাইবার বুলিং করা খুব সোজা। যা খুশি লেখেন যাঁরা তাঁরা ভাবেন কেমন লিখলাম। বুঝুক এ বার! আমি এই ধরনের মন্তব্যে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত। এই অন্যায়ের প্রতিকার চাই আমার। আর কোনও মেয়ের সঙ্গে যাতে এ রকম কিছু করা না হয় তার জন্য ঘটনা সামনে আনলাম।’’

আরও পড়ুন: আদিত্য পাঞ্চোলি, মহেশ ভট্ট থেকে ইমরান হাসমি, তোমার কেরিয়ারই নেপোটিজমে ভরা- কঙ্গনাকে তোপ নাগমার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest