Aryan Khan Drug Case: The star kid has to follow this routine in jail

সকাল ৬টায় ঘুম থেকে ওঠা, মেনু ডাল-ভাত-রুটি, আর্থার রোড জেলে কী ভাবে দিন কাটছে Aryan- এর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

মাদককাণ্ডে গ্রেফতার তারকা-পুত্রকে গতকালই আর্থার রোড জেলে স্থানান্তরিত করেছে এনসিবি। একই মামলায় গ্রেফতার আরও পাঁচ জনের সঙ্গে আরিয়ানকে রাখা হয়েছে মুম্বইয়ের এই হাইপ্রোফাইল জেলের ১ নম্বর ব্যারাকে। জেলের ফার্স্ট ফ্লোরে স্পেশাল কোয়ারানটিন ব্যারাক এটি, করোনার জেরে এখানেই প্রথম পাঁচ দিন নিভৃতবাসে থাকবেন তাঁরা। পরে কোভিড টেস্টের পর অন্য ব্যারাকে শিফট করা হবে তাঁদের।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদন বলছে, আরিয়ান-সহ এই মামলা গ্রেফতার সকলের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ। তাঁদের সকলের করোনা টিকার দুটি ডোজই নেওয়া রয়েছে বলে এনসিবি সূত্রে খবর। কিন্তু তারকা-সন্তান বলে কোনও রকম ‘বিশেষ আয়োজন’ করা হবে না তাঁর জন্য। আর পাঁচ জন হাজতবাসীর মতোই থাকবেন ‘কিং খান’-এর পুত্র। কোন রুটিন মেনে আগামী কয়েক দিন চলবেন বাদশা-পুত্র?

প্রতিদিন ঘড়ি ধরে ঠিক ৬টায় ঘুম থেকে উঠিয়ে দেওয়া হবে প্রত্যেক অভিযুক্তকে।

প্রাতঃরাশ দেওয়া হবে সকাল ৭টার সময়।

জেলে যা রান্না হয়, অভিযুক্তরা যা খান তা-ই খাবেন। বাইরের খাবার সেখানে নিষিদ্ধ।

বেলা ১১টার মধ্যে অভিযুক্তদের দুপুরের খাবার দিয়ে দেওয়া হবে।

দুপুর এবং রাতের খাবারের তালিকায় থাকবে রুটি, তরকারি, ডাল এবং ভাত। এর বাইরে আর কিছুই দেওয়া হবে না হাজতবাসীদের।

খাওয়াদাওয়ার পর জেলের ভিতরেই হাজতবাসীদের হাঁটাচলা করতে দেওয়া হয়। কিন্তু আরিয়ান এবং তাঁর সঙ্গীদের ক্ষেত্রে এখনও সেই নিয়ম প্রযোজ্য নয়। তিন থেকে পাঁচ দিন পর্যন্ত নিভৃতবাসে থাকার পর জেলের মধ্যে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ঘোরাফেরা করতে পারবেন তাঁরা।

সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে আবার রাতের খাবার দিয়ে দেওয়া হবে।

বরাদ্দ খাবারের বাইরে ক্যান্টিন থেকে আরও খাবার চাইলে আরিয়ান এবং তাঁর সঙ্গীদের টাকা দিতে হবে। মানি অর্ডারের মাধ্যমে সেই টাকা আনানো যেতে পারে।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest