বাসু চ্যাটার্জির প্রয়াণে সেলেবদের শোকজ্ঞাপন, দেখে নিন কে কী বললেন…

মুম্বই: বলিউডে যেন মৃত্যুমিছিল লেগেছে। শুরু হয়েছিল প্রতিভাবান অভিনেতা ইরফান খানের মৃত্যু দিয়ে। বি-টাউনে সেই মৃত্যু মিছিলে শামিল হয়েছেন অভিনেতা ঋষি কাপুর। ইরফানের মৃত্যুর একমাসের মাথায় ফের বিষাদের সুর বলিউডে। অসময়ে চলে গেলেন সুরকার ওয়াজিদ খান। অনুরাগীরা শোক কাটিয়ে ওঠার আগেই পরলোকে পাড়ি দিলেন গীতিকার আনওয়ার সাগর। বৃহস্পতিবার চলে গেলেন বর্ষীয়ান পরিচালক বাসু চ্যাটার্জি (Basu Chatterjee)। ফিল্মি দুনিয়ার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ব্যাক্তিত্বরাও এই মহান পরিচালকের মৃত্যুতে সমবেদনা জানিয়েছেন।

টুইট বার্তায় পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকর লেখেন, “প্রবাদপ্রতিম পরিচালকের মৃত্যুতে গভীত ভাবে শোকাহত। তাঁর সুক্ষ্ম রসবোধ এবং সহজ করে ছবির গল্প বলার ক্ষমতা সারা জীবন মনে থেকে যাবে।”

 ১৯৩০ সালে রাজস্থানের আজমেঢ় শহরে বাসু চ্যাটার্জির জন্ম।  বাসুবাবুর মৃত্যুর খবর সুনিশ্চিত করে প্রথম টুইটটি করেছিলেন ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টিভি ডিরেক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অশোক পণ্ডিত। তিনি লেখেন, “দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি কিংবদন্তি পরিচালক বাসু চ্যাটার্জি জি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। দুপুর দুটোয় শান্তাক্রুজ শ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। এটা আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য অনেক বড় ক্ষতি। আমরা আপনাকে মনে রাখবো স্যার।”

অভিনেত্রী দিব্যা দত্তা লেখেন ‘ধন্যবাদ ওই হাসিগুলোর জন্য,অদ্ভূত এক ভালোলাগায় ভরপুর ছবি দেওয়ার জন্য..এবং সেইগুলোর সারল্যটা আলাদা..ধন্যবাদ আপনার ছবিতে ‘খট্টামিঠা’ স্বাদ যোগ করবার জন্য! আপনকে স্মরণ করব দাদা!

শোকপ্রকাশ করেছেন, পরিচালক মধুর ভান্ডারকর, সঙ্গীত পরিচালক জিত গঙ্গোপাধ্যায়ের মতো শিল্পীরাও।

আরও পড়ুন: ফের শোকের ছায়া বলিউডে, প্রয়াত ‘ওয়াদা রাহা সনম’-এর গীতিকার আনওয়ার সাগর

সত্তরের দশকে অ্যাকশন ছবির জমানাতেও এক অদ্ভূত সারল্য দিয়ে আম আদমির জীবনকে অত্যন্ত সহজ সরলভাবে রুপোলি পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন বাসু চট্টোপাধ্যায়। এটাই তাঁর সাফল্য,এখানেই তিনি আর সকলের চেয়ে আলাদা। অমল পালেকরের সঙ্গে জুটি বেঁধে একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন বাসু চট্টোপাধ্যায়।

অমিতাভ বচ্চন,রাজেশ খান্না, দেব আনন্দের মতো সুপারস্টারদের সঙ্গেও কাজ করেছেন তিনি। তবে বাসু চট্টোপাধ্যায়ের ছবিতে সুপারস্টারেরা ধরা দিয়েছেন একজন অভিনেতা হিসাবে। মনজিলে অমিতাভ বচ্চন, চক্রব্যূহতে রাজেশ খান্না, শকিনসে মিঠুন চক্রবর্তী, মন পসন্দে দেব আনন্দকে একদম ভিন্ন অবতারে পেয়েছে দর্শকরা।

সাংবাদিক রাজদ্বীপ সরদেশাই লিখলেন, বাসু চ্যাটার্জিকে ভোলার নয়। তাঁর ছোটি সি বাত থেকে রজনীগন্ধা, খাট্টা মিঠা, বাতো বাতো মে। সাতের দশকে সিনেমা সিল্পের তিনি এক উজ্জ্বল নাম। তাঁর মৃত্যুতে পরিবারের প্রতি রইল সমবেদনা।

বাসু চ্যাটার্জির হাত ধরেই ব্যোমকেশ বক্সিকে চিনতে শিখল ভারতীয় সিনেমা। খুব ছোট ছোট বিষয়ের মধ্যে দিয়েই খুশির রেশ বইয়ে দিতে পারতেন মানুষটা পরিবারের তরফে জানা গিয়েছে বার্ধক্যজনিত কারণেই বাসু চ্যাটার্জির মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন: মহেশ বাবুকে পছন্দ করি! মন্তব্য করে ধর্ষণের হুমকি পেলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বোন মীরা

Gmail