শুভ জন্মদিন সুরের জাদুকর! ৫৪-য় পা দিলেন এ আর রহমান, জন্মদিনে ফিরে দেখা সেরা পাঁচ গান!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আজ এ আর রহমানের জন্মদিন। ৫৪-য় পা দিলেন সুরের জাদুকর। নাম-যশ-খ্যাতি সব পেয়েছেন তিনি। কিন্তু এত সাফল্যের পরেও রহমান মাটির কাছাকাছি থাকতেই ভালবাসেন। মৃদুভাষী সঙ্গীত পরিচালকের সমস্ত খেলা হয় সুরের সঙ্গে। নাম না জানা অসংখ্য বাদ্যযন্ত্রের আবিষ্কর্তা তিনিই। নিজের গানে সেইসবের ব্যবহারও করেছেন রহমান। বলিউডে গানের জগতে নতুন প্রতিভাদের প্রতিষ্ঠা করার ব্যাপারেও তাঁর দক্ষতা অসীম।

রহমানের তিন সন্তান আমিন, খতিজা এবং রহিমা। অদ্ভুত ভাবেই এ আর রহমানের ছেলে আমিনের জন্মদিনও আজই, অর্থাৎ ৬ জানুয়ারি।হিন্দু পরিবারে জন্ম হলেও পরে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন এ আর রহমান। প্রথমে নাম ছিল দিলীপ কুমার। কিন্তু ২৩ বছর বয়সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে দিলীপ হয়ে যান আল্লারাখা রহমান। গুরুতর অসুস্থ হয়ে গিয়েছিলেন রহমানের বোন। এক সুফি সাধু তাঁর বোনকে সুস্থ করে তোলেন। এরপরই ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হন এ আর রহমান।

সঙ্গীতের দুনিয়ায় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগে দূরদর্শনের ‘ওয়ান্ডার বেলুন’ অনুষ্ঠানে শিশুশিল্পী হিসেবে নজর কেড়েছিলেন রহমান। একসঙ্গে চারটি কি-বোর্ড বাজানোর দক্ষতা ছিল তাঁর।এ আর রহমান যে সঙ্গীতের দুনিয়ায় অসামান্য প্রতিভা হয়ে উঠবেন এই বিশ্বাস ছিল তাঁর মা করিমা বেগমের। ছেলের প্রাথমিক সঙ্গীতের জ্ঞান শুরু হয় তাঁর হাত ধরেই। মায়ের সঙ্গে বরাবরই আত্মার নিবিড় যোগ ছিল তাঁর। বহুবার বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে সে কথা নিজেই জানিয়েছেন সঙ্গীত পরিচালক। অস্কার থেকে শুরু করে বাকি সমস্ত পুরস্কারের কৃতিত্ব বরাবর মা করিমা বেগমকেই দিয়ে এসেছেন এ আর রহমান। সম্প্রতি প্রয়াত হয়েছেন করিমা বেগম।

দক্ষিণী পরিচালক মণিরত্নমই সর্বপ্রথম এ আর রহমানকে সুযোগ দিয়েছিলেন। পরিচালকের ধারনা ছিল সঙ্গীতের জগতে অসামান্য কিছু করে দেখাবে চেন্নাইয়ের এই প্রতিভাবান। ১৯৯২ সালে মণিরত্নমের ‘রোজা’ ছবিতে সঙ্গীত পরিচালনা করেন রহমান। তাঁর সুরের জাদুতে মুগ্ধ হন সকলে। সিনেমা রিলিজের ২৮ বছর পরেও সমান জনপ্রিয় ‘রোজা’-র সবকটি গান। ২৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পেয়ে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন রহমান। ‘রোজা’-তে তাঁর অসামান্য কাজের জন্য পেয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কারও। এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি এ আর রহমানকে।

তার পর বম্বে (Bombay), দিল সে (Dil Se), তাল (Taal), সাথিয়া (Saathiya), স্লামডগ মিলিওনিয়ার (Slum Dog Millionaire), গুরু (Guru) থেকে শুরু করে একের পর এক সৃষ্টি। তবে বলিউড ছাড়াও হলিউডের বেশ কয়েকটি সিনেমায় সুর দিয়েছেন তিনি। চারটি জাতীয় পুরস্কার, দু’টি অস্কার, দু’টি গ্র্যামি, একটি BAFTA, একটি গোল্ডেন গ্লোব সহ অসংখ্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার রয়েছে ঝুলিতে। ২০১০ সালে তাঁকে পদ্মভূষণ সম্মানেও সম্মানিত করা হয়। জন্মদিনে ফিরে দেখা যাক রহমানের তৈরি কিছু অনবদ্য গান।

আরও পড়ুন: প্রেম করছেন শ্রাবন্তীর ছেলে ঝিনুক! জেনে নিন কার সঙ্গে?

দিল সে রে (দিল সে)

শাহরুখ খান (Shah Rukh Khan) ও মণীষা কৈরালাকে (Manisha Koirala) একসঙ্গে দেখা গিয়েছে দিল সে (Dil Se) সিনেমার এই মেলোডিতে। গুলজারের (Gulzar) লেখা এই গানের সুর দিয়েছেন এ আর রহমান। গানটি গেয়েছেন অনুরাধা শ্রীরাম (Anuradha sriram) ও অনুপমা (Anupama)। গানের সুর আজও জীবন্ত।

জয় হো (স্লামডগ মিলিওনিয়ার)

স্লামডগ মিলিওনিয়ার (Slumdog Millionaire) সিনেমার এই গান বিশ্ব জুড়ে দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। সুর দিয়েছিলেন এ আর রহমান। গানের কথা লিখেছেন গুলজার (Gulzar) ও তন্বী শাহ (Tanvi Shah)। রহমান ছাড়া গানে গলা মিলিয়েছেন সুখবিন্দর সিং (Sukhwinder Singh,), তন্বী শাহ (Tanvi Shah), মহালক্ষ্মী আইয়ার (Mahalakshmi Iyer) ও বিজয় প্রকাশ (Vijay Prakash)। বেস্ট অরিজিনাল সং সেগমেন্টে অস্কার (Academy Award) জেতে গানটি। গানের কথার জন্য গ্র্যামিও (Grammy Award) জিতে নেয় এই গান।

চলে চলো (লগান)

আমির খানের (Amir Khan) কেরিয়ারের অন্যতম সেরা সিনেমা লগানের (Lagaan) এই গান সব সময়ে যেন একটা নতুন কিছু করার উদ্দম দেয়। জাভেদ আখতারের (Javed Akhtar) কলমে লেখা গানের কথাগুলি আজও জীবন্ত। গানটি গেয়েছিলেন রহমান স্বয়ং ও শ্রীনিবাস (Srinivas)। যদিও এই সিনেমার প্রতিটি গানই দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল, তবে স্বদেশপ্রেমের পটভূমিতে রচিত এই গানটি আলাদা জায়গা করে নেয়।

ইয়ে যো দেশ হ্যায় মেরা (স্বদেশ)

স্বদেশ (Swades) সিনেমায় শাহরুখের অভিনয় আজও বারবার প্রশংসিত হয়। এই সিনেমার গানেও মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছিলেন রহমান। গানটি রিলিজ হওয়ার পর বিশ্বের নানা প্রান্তে দারুণ প্রশংসিত হয়েছিল। প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের বলা ভালো প্রকৃত ভারতের সৌন্দর্যকে তুলে ধরে এই গান। গানের ভিডিওতে শাহরুখের উপস্থিতি এক আলাদা মাত্রা যোগ করে। যাঁরা দেশ থেকে বেরিয়ে গিয়ে নিজের নিজের ক্ষেত্রে সফল, তাঁদের মনের অন্তর্দ্বন্দ্বকে ব্যক্ত করে এই গান। নিজের দেশে ফিরে নিজের মানুষের জন্য কিছু করতে অনুপ্রেরণা জোগায়।

তেরে বিনা (গুরু)

অভিষেক বচ্চন ( Abhishek Bachchan) ও ঐশ্বর্য রাই বচ্চনকে (Aishwarya Rai Bachchan) একসঙ্গে দেখা গিয়েছে এই মেলোডির ভিডিওতে। এভারগ্রিন এই কম্পোজিশনের মালিক এর আর রহমান। গানে গলা মিলিয়েছেন রহমান নিজেই। সঙ্গে রয়েছেন মুরতুজা খান (Murtuza Khan), কাদির খান (Quadir Khan) ও চিন্ময়ী (Chinmayi)। পাকিস্তানের লেজেন্ড উস্তাদ নুসরত ফতে আলি খানকে (Nusrat Fateh Ali Khan) উৎসর্গীকৃত গুরু সিনেমার এই গান আজও দারুণ জনপ্রিয়।

আরও পড়ুন: মরুভূমির বুকে যশ-নুসরতের দিনযাপন, গেলেন আজমীর শরীফ মাজারে

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest