সলমন খানকে খুনের পরিকল্পনা, পুলিসের জালে কুখ্যাত বন্দুকবাজ!

কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই-এর দলের এক শার্প শ্যুটার ধরা পড়ল পুলিশের জাল।গত ১৫ অগাস্ট উত্তরাখণ্ড থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। উত্তর প্রদেশের ফরিদাবাদের বাসিন্দা প্রবীণ নামে এক রেশন ডিলারকে খুনের দায়ে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। গত ২৪ জুন প্রবীণকে খুন করেছিল রাহুল।

রাহুলকে জিজ্ঞাবাদ করেই পুলিশ চাঞ্চল্যকর তথ্য পায়। বেশ কিছুদিন ধরেই বলিউড তারকা সলমান খানকে খুনের ষড়যন্ত্র করছে এই বন্দুকবাজ। গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের নির্দেশেই সলমান খানকে খুনের পরিকল্পনা করে বলে পুলিশি জেরায় জানিয়েছে রাহুল। এমনকি লরেন্স বিষ্ণোইয়ের কথামতো মুম্বইয়ে গিয়ে রেইকিও করে এসেছে সে।

আরও পড়ুন: সুশান্ত মৃত্যু: রিয়ার আবেদন খারিজ, সুপ্রিম রায়ে তদন্তভার গেল সিবিআই-এর হাতে

বর্তমানে লরেন্স বিষ্ণোই রাজস্থানের একটি জেলে বন্দি। এই বছরের গোড়াতেই মুম্বই গিয়ে সলমান খানের বাড়ির আশপাশের এলাকা রেইকি করে এসেছে সে। ডিসিপি হেডকোয়ার্টার রাজেশ দুগ্গাল জানিয়েছেন, ‘এই বছর জানুয়ারি মাসে মুম্বই যায় রাহুল। সেখানে বান্দ্রায় সলমান খানের বাড়ির আশপাশে দিন দুয়েক ছিলও সে। লরেন্স বিষ্ণোই এবং এই চক্রের আর এক সদস্য সম্পত নেহরার কথামতো এই কাজ করে সে। এর আগে সম্পত নেহরাও সলমান খানকে মারার জন্য ২০১৮-র জুন মাসে রেইকি করেছিল। তারপরে অবশ্য সে গ্রেফতার হয়ে যায়।’

লরেন্স বিষ্ণোইয়ের হয়ে সলমান খানকে খুনের ষড়যন্ত্র করার দায়ের হায়দরাবাদ থেকে ২০১৮ সালে গ্রেফতার করা হয় সম্পত নেহরাকে। লরেন্স বিষ্ণোই বিষ্ণোই সম্প্রদায়ের একজন সদস্য। এই বিষ্ণোই সম্প্রদায় কৃষ্ণসার হরিণ সংরক্ষণ করে। ২০১৮-য় সলমান খান রাজস্থানের যোধপুরে দুটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করেছিলেন। সেই কারণেই লরেন্স বিষ্ণোই সলমান খানকে মেরে ফেলার চেষ্টা করেন বলে মনে করছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে যে গত জানুয়ারি মাসে বান্দ্রায় রেইকি করে যাবতীয় তথ্য লরেন্স বিষ্ণোইকে জানিয়েছিল রাহুল। তবে করোনা অতিমারী শুরু হয়ে যাওয়ায় নিজেদের পরিকল্পনা এরা কাজে রূপায়িত করতে পারেনি।

আরও পড়ুন: সুশান্ত মৃত্যুতে সুবিধা নিচ্ছেন কিছু ‘অর্ধ-শিক্ষিত উঠতি নায়িকা’, শাহের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ কঙ্গনা!