Nirbhaya Movie Poster Has Been Launched On Second Day Of Laxmi Puja

Nirbhaya: বিচার চাইছে ‘নির্ভয়া’; লক্ষ্মীপুজোয় মুক্তি পেল অংশুমান প্রত্যুষের আগামী সিনেমার পোস্টার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বড়পর্দা থেকে ওয়েবসিরিজ বারবারই নিভর্য়া কাণ্ড নিয়ে তৈরি হয়েছে চিত্রনাট্য। এবার সেরকমই একটি ধর্ষণ কাণ্ড নিয়ে বাংলায় একটি কোর্টরুম ড্রামা তৈরি করেছেন পরিচালক অংশুমান প্রত্যুষ (Anshuman Pratyush)। ছবির নাম ‘নির্ভয়া’ (Nirbhaya), তবে এই ছবির সঙ্গে নির্ভয়া কাণ্ডের ঘটনার কোনও মিল নেই। ১৩ বছর বয়সী একটি মেয়েকে কেন্দ্র করে এগিয়েছে ছবির গল্প। ছবিতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছে ছোটপর্দার জনপ্রিয় মুখ পটল কুমার খ্যাত অভিনেতা হিয়া দে (Hiya Dey)। এছাড়াও এই ছবিতে অভনয় করেছেন সব্যসাচী চক্রবর্তী, শ্রীলেখা মিত্র, প্রিয়াঙ্কা সরকার, গৌরব চক্রবর্তী ও শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়।

পোস্টারে এক মেয়ের কাতর আর্তি। ভরা ‘শিক্ষিত’ সমাজের কাছে তাঁক অপমান-লাঞ্ছনার বিচার চাইছে সে। তার আর্জি- “দয়া নয়, বিচার চাই।” নির্ভয়ার পোস্টারই সমাজের কাছে আরও প্রশ্ন ছুঁড়ে দিল- “মাটির দেবী প্রতিমা যেখানে পূজিতা, ঈশ্বর-রূপে পুজো পান, সেখানে বাস্তবের নারীরা কেন এত অবহেলিত, লাঞ্ছিত?”

২০১২-র কনকনে ডিসেম্বরের রাত। দিল্লি-সহ গোটা দেশ শিউরে উঠেছিল নির্ভয়া গণধর্ষণ-কাণ্ডের বীভত্সতায়। সেই স্মৃতি এখনও অনেকের মনেই দগদগে। তবু দোষীদের শাস্তি দিতে লেগে গিয়েছিল সাট-সাতটা বছর। সেই ঘটনাকেই নতুন করে সামনে তুলে আনলেন পরিচালক অংশুমান। তাঁর মতে— ধর্ষণ রুখতে কঠোরতম আইন, নজিরবিহীন সাজার দাবি তোলেন অনেকেই। কিন্তু ক’জন ধর্ষিতার কথা ভাবেন? তাঁর জন্য কী দাবি করেন? ধর্ষকের শাস্তিতেই কি তাঁরও সুবিচার? এই প্রশ্নগুলোই ছবিতে তুলে ধরা হবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক।

জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটালকে পরিচালক অংশুমান প্রত্যুষ জানান, ‘ছবিতে এক তরুণী গ্যাং রেপের শিকার হয়। তারপরই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে যায় মেয়েটি। কীভাবে ধীরে ধীরে বদলে যায় তাঁর জীবন সেই নিয়েই ছবির গল্প। ধর্ষিতার পরিচয় গোপন রাখার উদ্দেশ্যেই ২০১২ সালে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ ধর্ষণকাণ্ডের নির্যাতিতার নাম রাখা হয়েছিল নির্ভয়া। আমার ছবির নাম নির্ভয়া রাখা হয়েছে কারণ এই ছবির মাধ্যমে সেই সমস্ত নির্যাতিতাদের সম্মান জানাতে চেয়েছি।’

এই ছবির ট্যাগলাইন ‘সমাজের লক্ষ্মী’, সেই প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, ‘আমি মনে করি মেয়েরাই সমাজের মেরুদণ্ড, তারাই সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাবে, তারাই লক্ষ্মী, আমার নিজেরও মেয়ে আছে তাই আমি বুঝি যে একটি মেয়ে কতটা গুরুত্বপূর্ণ একটা পরিবারে।’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest