Odia Actress Rashmirekha Ojha's untimely death raised many questions

Rashmirekha Ojha: ‘আত্মহত্যা’র নেপথ্যে কি দ্বিতীয় পুরুষ? ধোঁয়াশা বাড়াচ্ছে ট্যাটু, অডিয়ো টেপও

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ক্রমশ রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে ওড়িয়া অভিনেত্রী রশ্মিরেখা ওঝার (Rashmirekha Ojha) মৃত্যুতে । পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, আত্মহত্যাই করেছেন ২৩ বছরের অভিনেত্রী (Odisha Actress Death) । যদিও, অভিনেত্রীর পরিবারের দাবি,তাঁদের মেয়ে আত্মহত্যা করেননি । উঠে আসছে অভিনেত্রীর পুরুষসঙ্গী সন্তোষ পাত্র এবং আর এক প্রাক্তন প্রেমিকের নাম।

শনিবার, ১৮ জুন রাতে রশ্মিরেখার ঝুলন্ত দেহ পাওয়া যায় যে ভাড়াবাড়ি থেকে। সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁসজড়ানো দেহের পাশে রাখা একটি টেবিলে পড়েছিল সুইসাইড নোটও। পুলিশ জানিয়েছে, সুইসাইড নোটে বাবার উদ্দেশে কয়েক লাইন ছাড়া লিভ ইন সঙ্গী সন্তোষের সম্পর্কেও উল্লেখ করেছিলেন ২৩ বছরের অভিনেত্রী। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, এই মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয় বলে লেখা ছিল সুইসাইড নোটে। সেই সঙ্গে লেখা ছিল, ‘তোমাকে মিস্‌ করছি বাবা। ওপর থেকেও তোমাকে মিস্‌ করব।’ সন্তোষের বিরুদ্ধে যাতে ঘটনার আঁচ না আসে, সে আর্জিও করা ছিল তাতে।

নয়াপল্লির ওই ভাড়াবাড়িতে তাঁর পুরুষসঙ্গী সন্তোষের সঙ্গে থাকতেন রশ্মিরেখা। তবে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে। সে কথা নাকি তাঁর ভাড়াবাড়ির মালিকও জানতেন না। এমনকি, বিষয়টি ঘূণাক্ষরেও টের পাননি বলে সংবাদমাধ্যমে দাবি করেছেন রশ্মিরেখার বাবা। তদন্তে গোটা বিষয়টি খোলসা হওয়ার আগেই অবশ্য এ নিয়ে ময়দানে নেমে পড়েছে ওড়িশার সংবাদমাধ্যমগুলি। পিছিয়ে নেই নেটমাধ্যমও। ইতিমধ্যেই অভিনেত্রীর সম্পর্কে ছবি-ভিডিয়ো চালাচালি হওয়া শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: Sonam Kapoor: ঢিলেঢালা গোলাপি ড্রেস, রুমালের ভাঁজে লেখা নাম, স্বপ্নের মতো সাধ সোনমের

রাজা নামের এক ব্যক্তির নাম ট্যাটু করা ছিল অভিনেত্রীর হাতে। কনক নিউজ নামে স্থানীয় এক টেলিভিশনে চ্যানেলে রশ্মিরেখার সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন রাজা। ওই চ্যানেলে তাঁর দাবি, ‘‘বছরখানেক আগে আমাদের পরিচয় হয়েছিল। আমার ভাল বন্ধু ছিল রশ্মিরেখা। ফোনে কথাবার্তাও হত। আমার জন্মদিনে নিজের হাতে নামটা ট্যাটু করিয়েছিল।’’ রাজার দাবি, ‘‘আমাদের বিয়ে হওয়ার কথাও ছিল। দুই পরিবারের মধ্যে বিয়ে নিয়ে কথাবার্তাও হয়েছিল। তবে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ওর পরিবার বিয়ের কথা আর এগিয়ে নিয়ে যায়নি।’’

রাজার আরও দাবি, রশ্মিরেখার সঙ্গে গত ছ’মাস তাঁর কোনও যোগাযোগ নেই। এমনকি, ওই সময়ের মধ্যে ফোনেও কথাবার্তা হয়নি তাঁদের। এমন মন্তব্যেও নাকি ধোঁয়াশা বেড়েছে। কারণ ওড়িশার সংবাদমাধ্যমগুলির দাবি, একটি ভাইরাল হওয়া অডিয়ো টেপে রশ্মিরেখা এবং সন্তোষের কথোপকথন শোনা গিয়েছে।

কী শোনা গিয়েছে সেই অডিয়ো টেপে? টেলিফোনে নাকি রশ্মিরেখা এবং সন্তোষের ওই কথোপকথনে রাজার প্রসঙ্গ উঠে এসেছে। তাতে সন্তোষ জানতে চাইছেন, রশ্মিরেখা কেন রাজাকে ‘ব্লক’ করে রেখেছেন? সেই সঙ্গে রাজাকে কল না করার জন্য রশ্মিরেখাকে পরামর্শ দিচ্ছেন সন্তোষ, এমনও নাকি শোনা গিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে একে আত্মহত্যার ঘটনা মনে করলেও গোটা কাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছে সন্তোষ এবং রাজার নামও। ভুবনেশ্বর এবং কটক শহরের পুলিশ কমিশনারেটের তরফে জানানো হয়েছে, সন্তোষ এবং রাজাকে এই মৃত্যুর ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আরও পড়ুন: গুরুতর অসুস্থ তরুণ মজুমদার, SSKM হাসপাতালে ভরতি কিংবদন্তি পরিচালক

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest