'Punjab is the cradle of terrorism, price must be paid', said Kangna

‘পাঞ্জাব সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর,চোকাতে হবে মূল্য’, মোদির নিরাপত্তার গলদ নিয়ে সরব কঙ্গনা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

পাঞ্জাবকে ‘সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর’ বলে ক্ষোভ উগরে দিলেন ‘কন্ট্রোভার্সি ক্যুইন’ কঙ্গনা রানাওয়াত (kangna ranaut)। কী লিখেছেন কঙ্গনা? ইনস্টাগ্রামে বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রীকে লিখতে দেখা গিয়েছে, ‘‘পাঞ্জাবে যা হয়েছে তা লজ্জাজনক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত নেতা/ প্রতিনিধি/ ১৪০ কোটি ভারতীয়র কণ্ঠস্বর। তাঁর প্রতি আক্রমণ মানে প্রতিটি ভারতীয়র উপরে আক্রমণ- এটা আমাদের গণতন্ত্রের উপরই হামলা। পাঞ্জাব সন্ত্রাসের আঁতু‌ড়ঘর হয়ে উঠছে। আমরা এখনই ওদের না থামালে দেশকে সেজন্য বড় মূল্য চোকাতে হবে।’’

বুধবার ভোটমুখী পাঞ্জাবে সফরে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভাতিন্ডা বিমানবন্দর থেকে ফিরোজপুর যাওয়ার পথে বিক্ষোভের জেরে প্রায় মিনিট কুড়ি একটি ফ্লাইওভারে আটকে থাকতে হয় প্রধানমন্ত্রীকে। এই ঘটনাতেই প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় গাফিলতির অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ৩ সদস্যের হাই প্রোফাইল তদন্ত কমিটি গড়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

‘টিকু ওয়েডস শেরু’ ছবি নিয়ে ব্যস্ত কঙ্গনা। নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি ও অবনীত কাউরের সঙ্গে এই ছবিতে অভিনয় করবেন তিনি। এছাড়াও ‘ধকড়’ ছবিতেও দেখা যাবে তাঁকে। ২০২১ সালে একের পর এক বিতর্কে জড়িয়েছেন কঙ্গনা রানাউত। কখনও দেশের স্বাধীনতা নিয়ে মন্তব্য করে নেটিজেনদের রোষানলে পড়েছিলেন অভিনেত্রী, তো কখনও ঝামেলায় জড়িয়েছেন গীতিকার জাভেদ আখতারের সঙ্গে।

নয়া বছর ফের বিতর্ক দিয়ে শুরু করলেন পদ্মশ্রী কঙ্গনা। বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এর আগে বেশ কয়েকবার কঙ্গনার নাম এফআইআর হয়েছে। পাঞ্জাবের কৃষক আন্দোলন নিয়েও দিলজিৎ সিংয়ের(diljit dosanjh) সঙ্গে তাঁর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। আপত্তিকর মন্তব্যের জন্য এখনও ব্লক হয়ে আছে কঙ্গনার টুইটার।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest