মানুষের কাজে লাগুক, সংসদীয় কার্যালয়কে আইসোলেশন সেন্টার করে দিলেন দেব

এর আগেও বহুবার সাধারণ মানুষকে নানা ভাবে সাহায্য করেছেন সাংসদ তথা অভিনেতা দেব। আবারও মানবিকতার পরিচয় দিলেন তিনি। করোনা রোগীদের জন্য পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরায় নিজের সংসদীয় কার্যালয়কে আইসোলেশন ক্যাম্প বানিয়ে দিলেন দেব। ইতিমধ্যে বেড এবং অন্যান্য সরঞ্জাম নিয়ে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি।

জননেতা দেব যে প্রতি নিয়ত মানুষের পাশে থাকার কি নিরন্তর চেষ্টা করে চলেছেন, তা এই করোনা পরিস্থিতির দুঃসময়ে তার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকটিভিটি দেখলেই বেশ বোঝা যায়। যখনই কেউ সাহায্য প্রার্থী হয়ে চাইছেন তার কাছে কোনো রকম সাহায্য, রীতিমতো নিয়োজিত প্রাণ ভাবেই হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন দেব।কখনো কখনো তো আবার সবার আড়ালে, নিঃশব্দে করে চলেছেন বিস্ময়কর কর্মকাণ্ড। যেমনটা করলেন এবারেও।

আরও পড়ুন: মানবিক মিমি! সাংসদের চেষ্টায় পরিবারের কাছে ফিরলেন রাণাঘাটের নিঁখোজ বৃদ্ধ

৮০ বছরের বৃদ্ধা অসহায় ঊষা দোলুইয়ের কথা জানিয়ে টুইটারে একটি টুইট করেন অনুসুয়া সরকার নামে এক মহিলা।প্রাকৃতিক দুর্যোগে তাঁর মাটির বাড়ি ভেঙে গিয়েছে। যে কোনও সময় তা ধসে পড়তে পারে। এই খবর টুইটারে জানতে পেরে সঙ্গে সঙ্গে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেন দেব। অবিলম্বে ত্রাণ ও টাকা পৌঁছে দেন ওই বৃদ্ধার কাছে। শধু অন্যত্র আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদেরও নিজের খরচায় রাজ্যে ফিরিয়ে আনেন তিনি।

কেমন হয়েছে ডেবরার সেই আইসোলেশন ক্যাম্প? টুইটারে একটি ভিডিও শেয়ার করে, তারও ঝলক দেখালেন সাংসদ। একেবারে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন। বেশ কয়েকটি শয্যাও রয়েছে। এপ্রসঙ্গে সাংসদ দেবের সাফ মন্তব্য, “আশা করি এই উদ্যোগে এলাকার কিছু মানুষ হলেও উপকৃত হবেন। রাজনীতি কিংবা রাজনৈতিক স্বার্থ সরিয়ে রেখে এটাই মানুষের পাশে দাঁড়ানোর উপযুক্ত সময়। প্রত্যেক রাজনৈতিক দলেরই উচিত তাদের দলীয় কার্যালয়গুলিকে এখন মানুষের সেবার জন্য কাজে লাগানো।”

ডেবরা সংসদীয় কার্যালয়ের আইসোলেশন ক্যাম্পের যাবতীয় তদারকি করছেন সংশ্লিষ্ট বিধানসভার বিশিষ্ট সমাজসেবী সীতেশ ধাড়া। ‘হোম আইসলেশন’ এই উদ্যোগ নেওয়ার ফলে অনেক করোনায় আক্রান্ত এবং তাদের পরিবারই উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়, কোনো মানুষ যদি নিজের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকতে সমস্যা বোধ করেন, তবে তারা এই ভবনকে নিজেদের আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: মীরাক্কেল’-এর বিচারক হওয়ার দৌড়ে এবার উঠে এল নাম রুদ্রনীলও