কানামাছি খেলা শেষ…ইরফানের পাশেই চিরঘুমে ওয়াজিদ, কান্নায় ভেঙে পড়লেন ভাই সাজিদ

মুম্বই: ২০২০ সালে বলিউডে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত! করোনা সংকটের মাঝেই একের পর এক নক্ষত্রপতন বি-টাউনে। ইরফান খান, ঋষি কাপুরের মৃত্যুর পর এবার নক্ষত্রপতন বলিউড মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে। প্রয়াত মিউজিক পরিচালক জুটি সাজিদ-ওয়াজিদের ওয়াজিদ খান।

“কানামাছি খেলায় একজন শুধু খুঁজেই যায়, আর অন্য জন কিছুতেই কাছে আসতে চায় না। ফাঁকি দিয়ে চলেই যায়…” ইরফান খানের মৃত্যুতে টুইটারে কথাগুলো লিখেছিলেন ওয়াজিদ খান। দুনিয়া বুঝতে পারেনি নিজেও তখন কতটা অসুস্থ ছিলেন ওয়াজিদ। এক দিকে কিডনিতে সংক্রমণ, অন্যদিকে হৃদপিণ্ডে ব্লকেজ।

ভর্তি ছিলেন মুম্বইয়ের চেম্বুরের এক হাসপাতালে। এরই মধ্যে তিন দিন আগে কোভিড পজেটিভ ধরা পড়ে তাঁর। সঙ্গে ম্যাসিভ কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট। ব্যস সব শেষ। রবিবার গভীর রাতে মারা যান ওয়াজিদ। খবরটা প্রথম জানিয়েছিলেন সোনু নিগম। এরপর ওয়াজিদের ভাই সাজিদ পিটিআই কে জানান, “হার্ট অ্যাটাকে মারা গিয়েছেন তিনি। ওর কোভিড টেস্ট রিপোর্ট পজেটিভ এসেছিল।” গায়ক এবং সুরকার সেলিম মার্চেন্টও পিটিআই করে বলেন, “কিছু দিন আগেই কিডনি ট্র্যান্সপ্ল্যান্ট হয় ওয়াজিদের। সেখান থেকেই কিডনিতে সংক্রমণ ছড়ায়। চার দিন ধরে তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল।” জানা গিয়েছে, ছিল উচ্চরক্তচাপের সমস্যাও।

বয়স মাত্র ৪২ বছর হলেও একসঙ্গে এত রোগের ধাক্কা নিতে পারেননি তিনি। যে ইরফানের জন্য একমাস আগে তিনি নিজের টুইটার থেকে শোকবার্তা পাঠিয়েছিলেন এক মাস দু’ দিন পর তাঁর পাশেই মুম্বইয়ের ভারসোভা কবরস্থানে ঠাঁই হল ওয়াজিদের।

ইরফানের জন্য লেখা ওয়াজিদের টুইট 

এদিন ওয়াজিদ খানকের অন্তিম দর্শনে এসে কান্নায় ভেঙে পড়লেন তাঁর দাদা সাজিদ খান। হাজির ছিলেন ওয়াজিদের দীর্ঘদিনের বন্ধু অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চলি। যে সাজিদ-ওয়াজিদ জুটি প্রায় কুড়ি বছর ধরে ‘দাবাং’, ‘তেরে নাম’-এর মতো ব্লকবাস্টার ছবির সুপারহিট গান উপহার দিয়েছেন সেই জুটিতেই ভাঙন ধরল আজ। চলে গেলেন ওয়াজিদ। স্মৃতি আঁকড়ে বসে রইলেন সাজিদ খান।

https://www.instagram.com/p/CA4oOmSnEnj/?igshid=yh7xeglm6arg
Gmail 3