মাধুরীর জন্য ডিভোর্সেও রাজি সঞ্জয় দত্ত, তারপরও কেন ছেড়ে গেলেন ‘ধকধক গার্ল’?

ওয়েব ডেস্ক: নয়ের দশক। ‘থানেদার’ রিলিজ করেছে। আরব সাগর পেরিয়ে গঙ্গাপাড়েও ঢেউ তুলেছে ‘তাম্মা তাম্মা লোগে’—গান। যে গানে মাধুরী দীক্ষিতের নাচ আর সঞ্জয় দত্তের হি-ম্যানশিপ। সারা দেশ পাগলের মতো দুলছে গানের তালে। সেই প্রথম মাধুরীর মনেও হাল্কা দোলা দিয়ে গেল সেই গান, সেই দৃশ্য, সেই ছবি….এবং সেই সহ অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত। মাধুরী-সঞ্জয়ের প্রেম সবাই জানেন। কেন ভাঙল? আসল কারণ কেউ জানেন না। আজ মাধুরীর জন্মদিন। চলুন, জেনে নিই সেই না জানা কথা—

বিখ্যাত অভিনেতা মা-বাবা নার্গিস-সুনীল দত্তের বখে যাওয়া ছেলে সঞ্জুবাবা। অভিনয়ে দুরন্ত। তার থেকেও বেশি দুর্দান্ত ছিলেন প্রেম আর নেশা করতে। পৃথিবীর হেন মাদক নেই যাতে অভ্যস্ত ছিলেন সঞ্জয়। ক্যান্সারে মায়ের মৃত্যু আমূল বদলে দেয় তাঁকে। কিন্তু নারী আসক্তি তখনও পুরোমাত্রায়। কিন্তু মাধুরী যেন অন্যরকম তাঁর চোখে। সেই অন্যরকম লাগাটাই অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠতে লাগল ধীরে ধীরে। মাধুরী কোন পরিবারের মেয়ে, প্রেমে পড়তে পড়তে একবারও খোঁজ নিয়েও দেখেননি। শুধু এটুকু অনুভব করেছিলেন, এই মেয়ে বদলে দিতে পারে তাঁর জীবন। এর জন্য তিনি ডিভোর্সও করতে পারেন স্ত্রী রিচা শর্মাকে। একবার এক সাক্ষাৎকারে সঞ্জয় স্বীকারও করেছিলেন, তাঁর তখন শুধুই মাধুরীকে প্রয়োজন। ডিভোর্স না করেও বিয়ে করতেই পারতেন। কারণ, নমাসে, ছমাসে আমেরিকায় দেখতে যান ক্যান্সারে আক্রান্ত রিচা আর মেয়ে ত্রিশলাকে। কিন্তু মাধুরী ভালো মেয়ে। শিক্ষিত পরিবার থেকে এসেছে। ডিভোর্স না করে বিয়ে করলে ওঁর অসম্মান হবে। তাই বিচ্ছেদেও আপত্তি ছিল না সঞ্জয়ের।

Z

সঞ্জয় যখন হাবুডুবু খাচ্ছেন মোহিনী মায়ায় তখন কী অবস্থা মাধুরীর? বলিউড সাক্ষী, আগুন লেগেছিল তাঁর মনেও। কারণ, অনিল কাপুর, আমির খান, জ্যাকি শ্রফ—এঁদের সঙ্গে অভিনয় করলেও সঞ্জয়ের মতো কেমিস্ট্রি তৈরি হয়নি কারোর সঙ্গে। ফলে, ভালোলাগা বাড়তেই ফোনে কথা। শুটিংয়ের ফাঁকে আড্ডা। অবসরে টুকটাক আউটিং। দিনগুলো যেন রঙিন হয়ে উঠল মাধুরীর কাছে। অভিনয়, নাচ তিনি আজন্ম ভালোবাসেন। কিন্তু সঞ্জয় পাশে থাকলে লাইট-ক্যামেরা-সাউন্ড-অ্যাকশন যেন অন্য মন রাঙিয়ে দেয়।

এদিকে দেশের বাইকে বা শহরের বাইরে তাঁদের শুটিং পড়লে ম্যারাথন ন্যাশনাল, ইন্টার ন্যাশনাল ফোন হত তাঁদের। যাতে বেশি সময় একে অন্যের সঙ্গে কাটাতে পারেন তার জন্য আমির খানের সঙ্গে অভিনীত ছবি দিল সুপারহিট হওয়ার পরেও তাঁর সঙ্গে আর জুটি না বেঁধে মাধুরী পরপর সই করেন সাজন, সাহিবান, মহানতা, খলনায়ক।

মাধুরী একটি ম্যাগাজিনের সাক্ষাতকারে শুধু বলেন, সঞ্জয় দত্ত তাঁকে সব সময় হাসান। তাঁর জীবনের অন্যতম প্রিয় মানুষ হলেন সঞ্জয়। যিনি তাঁকে হাসিয়ে জোকারের কাজ করেন। তবে সম্পর্ক নিয়ে মাধুরী কোনও মন্তব্য করেননি। ওই সময় অনেকেই মন্তব্য করতে শুরু করেন, সঞ্জয় এবং মাধুরী বোধ হয় নতুন করে সংসার পেতেই ফেলবেন।

আরও পড়ুন: ঘনিষ্ঠ দৃশ্যে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ছিলেন মাধুরী, জড়িয়েছেন একাধিক সম্পর্কেও…

main qimg fd3e8866287ab60282e8ae0e4719168b

সঞ্জয় এবং মাধুরীর সম্পর্ক নিয়ে জোর গুঞ্জন শুরু হলে, নিউ ইয়র্ক থেকে ফিরে আসেন মুন্নাভাইয়ের প্রথম স্ত্রী রিচা শর্মা। মেয়ে ত্রিশলাকে নিয়ে ওই সময় বিদেশ থেকে সঞ্জয়ের কাছে ফিরে আসেন রিচা। তিনি জানান, সঞ্জয় এবং তিনি একে অপরের সঙ্গে অনেকদিন দূরে থেকেছেন। তাই এবার ভালবাসার মানুষকে ফিরে পেতে চান। সঞ্জয় কখনওই তাঁর সঙ্গে বিচ্ছেদ চান না বলে জানিয়েছেন। তাই সঞ্জয় আবার নতুন করে তাঁর কাছে ফিরে আসবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন রিচা।

তবে রিচার ওই মন্তব্যের ১১ দিন পরই তিনি ফের নিউ ইয়র্কে ফিরে যান এবং স্পষ্ট জানান, ভবিষ্যতে যা হবে, মেনে নেবেন তিনি। এই নিয়ে তাঁর কোনও আফশোষ নেই। রিচা নিউ ইয়র্কে ফেরার পর তাঁর বোন এনা শর্মা মুখ খোলেন। মাধুরীকে তিনি ‘অমানবিক’ বলে আখ্যা দেন। শুধু তাই নয়, মাধুরী ইচ্ছে করলেই যে কোনও কাউকে নিজের জীবনে পেতে পারেন। কিন্তু কেন তিনি সঞ্জয়ের মতো একজন বিবাহিত পুরুষের দিকে ঝুঁকছেন তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন এনা।

কিন্তু ঘটনার মোড় ঘুরে গেল টাডা আইনে প্রথম যখন ধরা পড়লেন সঞ্জয়। হতবাক বলিউড দেখল, জেলবন্দি সঞ্জয়কে একবারের জন্যও দেখতে তো গেলেনই না উপরন্তু বিয়ে করলেন আমেরিকার চিকিৎসক শ্রীরাম নেনেকে! অনুরাগীরা ফুঁস উঠলেন মাধুরীর বিরুদ্ধে। আসল ঘটনা কিন্তু কেউ জানল না।

পরে জানা যায় উটিতে ছবির শুটে মাধুরীকে টপকে সঞ্জয়কে প্রেম নিবেদন করেছিলেন উঠতি নায়িকা সোমি আলি। যিনি একই সঙ্গে সলমন খানের সঙ্গেও প্রেম করছিলেন সেই সময়! সঞ্জয়ও নাকি হালকা ব্যথা অনুভব করেছিলেন তাঁর প্রতি! মাধুরী সেটা টের পেয়েছিলেন।এরপর সঞ্জয়ের জীবন থেকে চিরতরের জন্য বেরিয়ে যান ধকধক গার্ল।

আরও পড়ুন: Dancing Diva: দেখে নিন মাধুরীর আইকনিক ডান্স পারফরম্যান্স…

Gmail 2