‘বোঝে না সে বোঝে না’ জুটির কামব্যাক, এবার বড় পর্দায় একসঙ্গে যশ-মধুমিতা!

অরণ্য সিং রায় আর পাখির রসায়ন আজও ভুলতে পারেনি ছোটপর্দার দর্শকরা। কথা হচ্ছে স্টার জলসার সুপারহিট ধারাবাহিক ‘বোঝে না সে বোঝে না’ জুটির। এই সিরিয়ালের সুবাদে রাতারাতি সুপারস্টারের তকমা পেয়েছিলেন যশ দাশগুপ্ত ও মধুমিতা সরকার। এখন দুজনেই জমিয়ে কাজ করছেন বড় পর্দায়। তবে এই ধারাবাহিকের পর আর একসঙ্গে দেখা যায়নি ‘যশ-মিতা’ জুটিকে। দু-জনের ভক্তদের বহুদিনের আবদার একসঙ্গে ছবিতে অভিনয় করুক অরণ্য-পাখি। অবশেষে সেই প্রার্থনা পূরণ হওয়ার মুখে! এমনই জল্পনা শোনা যাচ্ছে টলিগঞ্জের অলিতে-গলিতে।

খবর, প্রযোজক সংস্থা এসভিএফের নতুন এক প্রোজেক্টে একসঙ্গে দেখা যাবে এই জুটিকে। এফভিএফের হাত ধরেই রুপোলি পর্দায় ডেব্যিউ যশ ও মধুমিতার। ২০১৬-য় গ্যাংস্টার ছবির সঙ্গে যশের সিলভার স্ক্রিনে যাত্রা শুরু, মধুমিতা অবশ্য হালে ছোট পর্দা ছেড়ে বড় পর্দায় কাজ শুরু করেছেন। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতেই মুক্তি পেয়েছিল মধুমিতার ডেব্যিউ ছবি ‘লাভ আজ কাল পরশু’।

আরও পড়ুন: সবাইকে চমকে দিয়ে বিয়ে, অবশেষে রিসেপশনের ছবি শেয়ার সানা খানের

ছবি প্রসঙ্গে যশ বললেন, ‘‘গত বছরই আমাকে ও মধুমিতাকে জুটি করে ছবির কথা হয়েছিল। সৌমিক হালদার পরিচালনা করবেন বলেই শুনি। কিন্তু নানা কারণে তখন হয়নি। কিছু দিন আগে মণিদার (মহেন্দ্র সোনি) সঙ্গে আমাদের নিয়ে ছবির কথা হয় প্রাথমিক স্তরে। আগামী ফেব্রুয়ারিতে আমার ডেট নিয়েও কথা হয়।’’

এসভিএফের হাত ধরেই যশের বড় পর্দায় অভিষেক। পরপর ছবিও করেছেন। কিন্তু তার পর প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় অভিনেতার। যশের কথায়, ‘‘এসভিএফের সঙ্গে চুক্তি শেষ হলেও সাত বছরের সম্পর্ক। শ্রীকান্তদা (মোহতা) চলে যাওয়ার পর ছোটখাটো সমস্যা তৈরি হলেও, ভালবাসা একই আছে। তাই এখন আমার দিক থেকে ছবি করতে কোনও আপত্তি নেই। বাকিটা ওদের হাতে।’’

যশ এবং মধুমিতা ছোটপর্দায় সফল জুটি হলেও, সে সময়ে অফস্ক্রিন তাঁদের বিবাদের কথা শোনা যায়। যদিও মধুমিতা বললেন, যশের সঙ্গে ছবি করতে তাঁর আপত্তি নেই। তবে সংস্থা থেকে তাঁকে অফিশিয়ালি কিছু জানানো হয়নি। যশের কথায়, ‘‘মধুমিতার সঙ্গে সম্পর্কের তিক্ততা নিয়ে যা রটেছিল, তা গুজব। তবে এটা ঠিক যে, আমরা বেস্টফ্রেন্ড ছিলাম না। পুরোপুরি পেশাদার সম্পর্ক।’’

আরও পড়ুন: মন্দিরে আরতির সময় চুম্বন, লাভ জেহাদ প্রচারের অভিযোগে #BoycottNetflix-এর ডাক