এবার ‘গোলি মারো’ স্লোগান কলকাতার বিজেপি কর্মীদের মুখে, উত্তেজনা রাজপথে

কলকাতা: যে স্লোগান গত কয়েক মাস ধরে গোটা ভারতে উত্তেজনার পারদ চড়িয়েছে, সেই স্লোগানের রব এবার উঠল খোদ কলকাতায়। রবিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভাকে কেন্দ্র করে শহরের বিভিন্ন জায়গা থেকে একাধিক মিছিল আসে। আর সেই মিছিল থেকে স্লোগান ওঠে, “দেশকে গদ্দারো কো, গোলি মারো শালো কো!” যা নিয়ে ফের বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছে।

এ দিন দুপুর ২.২০ মিনিট নাগাদ এসপ্ল্যানেড মেট্রো স্টেশনের ৬ নম্বর গেট দিয়ে বেরিয়ে আসেন সাত থেকে আট জন বিজেপি কর্মী সমর্থক। তাঁদের হাতে ছিল দলীয় পতাকা। সেই সময় গ্র্যান্ড হোটেলের পাশের গলিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন কিছু মানুষ। তাঁদের হাতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) বিরোধী পোস্টার। অমিত-বিরোধী পোস্টারও ছিল বিক্ষোভকারীদের হাতে। সেই সময় বিক্ষোভকারীদের লক্ষ করে আচমকাই দিল্লির কায়দায় ‘গোলি মারো’ স্লোগান দিতে থাকেন ওই বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

আরও পড়ুন: CAA লাগু করেই ছাড়ব, শহীদ মিনারের সভায় হুঁশিয়ারি শাহের

ওই বিজেপি কর্মীরা স্লোগান দিতে দিতে ব্যারিকেডের দিকে এগিয়ে আসতে থাকেন। পাল্টা ব্যারিকেডের বাইরে বার হওয়ার চেষ্টা করেন বিক্ষোভকারীদের কয়েকজন। মুহূর্তে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ঘটনাস্থলে কলকাতা পুলিশের শীর্ষ কর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তাঁরা দু’পক্ষের মাঝে চলে আসেন। তাঁরা দ্রুত দু’পক্ষকে আলাদা করে দেন। আটক করা হয় তিন জনকে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ) মুরলীধর শর্মা, অতিরিক্ত কমিশনার ডিপি সিংহ-সহ কয়েক জন পুলিশ কর্তা।

উপস্থিত পুলিশকর্তারা বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলেন। তাঁদের সরে যেতে অনুরোধ করেন। শেষ পর্যন্ত গ্র্যান্ড হোটেলের পাশের গলির ওই জমায়েত সরে যায়। তবে পুরসভা ভবন পর্যন্ত গলিতে তখনও বিক্ষোভ চলছিল। এ দিন ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী থাকায় কোনও রকম অপ্রীতিকতর পরিস্থিতি তৈরি হয়নি।

আরও পড়ুন: নাগরিকত্বের প্রমাণ নেই মোদীর, জানাল পিএমও

দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার পর্বে বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ সিং এই স্লোগান তুলেছিলেন। তা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক হয়। সেজন্য নির্বাচনের কমিশনের ‘সামান্য’ শাস্তির মুখে পড়েন অনুরাগ। কিন্তু দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।আপ-এর বিপুল জয়ের পর, অমিত শাহ স্বীকার করে নেন,  উস্কানি এবং বিদ্বেষমূলক কথাবার্তা বলা ঠিক হয়নি। কিন্তু ক’দিনের মধ্যেই পরিস্থিতি ফের বদলে যায়। দিল্লি সংঘর্ষের চলতি আবহে বিজেপির কপিল মিশ্র, প্রবেশ বর্মার মতো বিজেপি নেতারা অবাধে উস্কানিমূলক স্লোগান চালিয়ে গিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকী গত মঙ্গলবার বিজেপি বিধায়ক অভয় বর্মার মিছিলেও ওঠে ‘গোলি মারো’ স্লোগান। শনিবার দিল্লির সবথেকে জনবহুল মেট্রো স্টেশন রাজীব চকেও শনিবার একই স্লোগান তোলেন কয়েকজন যুবক।