পরিযায়ী মানেই কোভিড আক্রান্ত মনে করা অন্যায়, মমতাকে খোঁচা ধনখড়ের, পাল্টা মন্তব্য নেটিজেনদের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কলকাতা: শুক্রবার সকালে টুইট করে রাজ্য সরকারকে আরও একবার আক্রমণ করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যপালের এমন টুইট অবশ্য সেই অর্থে একেবারেই নয়া নয়। এটিকে তিনি এক প্রকার অভ্যেসে পরিণত করেছেন। এমনটাই অভিযোগ অনেকের।

এ দিন তিনি টুইট করে তিনি জানান, ‘‘যে পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্যে ফিরে আসছেন, তাঁরা আমাদের আপনজন। তাঁরা পেটের দায়ে রাজ্য ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন। ওঁরা আমাদের সম্পদ, কেউ ফেলনা নন। আমাদের ছেলেমেয়েরা প্রতিকূল পরিস্থিতিতে পড়ে নিজেদের ঘরে, আপনজনের কাছে ফিরতে চাইতেই পারেন। বিশ্বব্যাপী মহামারীর প্রেক্ষাপটে নিজেদের বাড়ি ফিরে আসলে তাঁদের উষ্ণ আমন্ত্রণ প্রাপ্য। তাঁদেরকে কোভিড সংক্রমণকারী হিসেবে দেগে দেওয়া অন্যায়, অত্যন্ত হতাশাব্যঞ্জক এবং হৃদয়বিদারক। মানবিক মূল্যবোধ অটুট রেখেও কোভিড-১৯ সংক্রান্ত সমস্ত নিয়মাবলী এবং নির্দেশ মেনে চলা যায়।”

গত বুধবারও একটি টুইট করে রাজ্যপাল ঘূর্ণিঝড় আমফানের ধাক্কায় বিপর্যস্ত রাজ্যের মানুষদের হাতে আরও বেশি করে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। পাশাপাশি তিনি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আর্জি জানান এই সময় এমন একটা বিষয় নিয়ে রাজনীতি না করার। তবে অনেকের অভিযোগ রাজ্যপাল সব মরসুমেই এই কাজটি করে থাকেন।

রাজ্যপাল অভিযোগ করেন, কলকাতা এবং তার বাইরের বিভিন্ন অঞ্চলের ভয়াবহ দুর্ভোগের তথ্যগুলি সমস্ত সামনে আনতে চান না মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী, সংবাদমাধ্যমের সামনে কথা বলার মতো যথেষ্ট সময়ও নেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে।

রাজ্যপালের এমন টুটের পরে নেটনাগরিকরাও ছেড়ে কথা বলেননি। তিনি বিজেপির হয়ে রাজনীতি করছেন সে কথা প্রকাশ্যে লিখেছেন অনেকেই। কেউ কেউ তাঁকে নিয়ে মস্করা করতেও ছাড়েননি। অনেকে লিখেছে তিনি তো পরিযায়ী। তাহলে ফিরেই বা যাচ্ছেন না কেন!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest