খুশকির সমস্যায় ভুগছেন? রোদে ত্বক পুড়ে গিয়েছে?অব্যর্থ ভাতের ফ্যান

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ভাত ঝরঝরে করতে ভালো করে ভাতের মাড় ঝরিয়ে নেন সকলেই। এর পর সেটি ফেলে দেন সকলে। ত্বক থেকে চুলের যত্নে কাজে লাগিয়ে দেখুন ভাতের মাড়। ফল মিলবে ম্যাজিকের মতো।

আসুন জেনে নেওয়া যাক দৈনন্দিনের নানা কাজে ভাতের মাড়ের আশ্চর্য সব ব্যবহার…

ভাতের ফ্যান ফেলে না দিয়ে আজ থেকে তা কাজে লাগান। কারণ, আপনার চুলের যত্নের জন্য ফ্যান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যাঁরা খুশকির সমস্যায় জেরবার, তাঁরা প্রতিদিন ফ্যান দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহখানেক ফ্যান ব্যবহার করলে আপনি ওই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বাধ্য। এছাড়াও ফ্যানের সঙ্গে অ্যাভোকাডো দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করতে পারেন। সুন্দর চুল পেতে ওই মিশ্রণ অবশ্যই কাজে লাগান।

images?q=tbn%3AANd9GcTgBTIgjVbJIMKQHmbXFal 3Fn71vSY9TGrnQ&usqp=CAU

স্নান করার সময় সবার আগে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এর পরে, ওই ভাতের ফ্যান বা মাড় ভালো করে ম্যাসাজ করুন। ১০- ১৫ মিনিট পর্যন্ত রেখে দিন। এর পর জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এইভাবে সপ্তাহে কমপক্ষে এক থেকে দুইবার ব্যবহার করুন। কয়েক মাসের মধ্যে আপনি নিজের ফলাফল পাবেন।

আরও পড়ুন : যখন তখন মন খারাপ এসে ঘিরে ধরে? ভালো করার সহজ ৮ উপায়

স্নান করার সময় সবার আগে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এর পরে, ওই ভাতের ফ্যান বা মাড় ভালো করে ম্যাসাজ করুন। ১০- ১৫ মিনিট পর্যন্ত রেখে দিন। এর পর জল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এইভাবে সপ্তাহে কমপক্ষে এক থেকে দুইবার ব্যবহার করুন। কয়েক মাসের মধ্যে আপনি নিজের ফলাফল পাবেন।

silky hair

ভাতের ফ্যানে কার্বোহাইড্রেট অর্থাৎ ইনোসিটল থাকে যা চুলের ঘর্ষণকে হ্রাস করে গোড়া থেকে শক্তিশালী করে তোলে। এছাড়া এতে অনেক পুষ্টি উপাদান রয়েছে, যার কারণে চুল চকচকে করে তোলে। এর পাশাপাশি নমনীয়ও হয়ে ওঠে।

চুলের পাশপাশি ত্বকের ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই ফ্যান। ভাতের মাড় ঠাণ্ডা করে তুলা দিয়ে মুখের ও হাত-পায়ের রোদে পোড়া অংশে নিয়মিত মাখতে পারলে বাড়বে ত্বকের জেল্লা। এই পদ্ধতিতে ত্বকের যত্ন নিতে পারলে ত্বক থাকবে সতেজ, বজায় থাকবে ত্বকের আর্দ্রতা। এছাড়াও ত্বকের হাইপার পিগমেন্টেশন আর ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া ঠেকাতে ভাতের মাড় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আরও পড়ুন : করোনাকে ‘নকআউট’ করুন, ঘরে থেকেই কমান ভিটামিন ডি-র ঘাটতি

Gmail 6
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest