2-DG : কোভিডের সব ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকরী হবে ২-ডিজি, দাবি গবেষণায়

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

করোনাভাইরাসের সব ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকরী হবে ডিআরডিও-র কোভিড-প্রতিরোধী ওষুধ ২-ডিঅক্সি-ডি-গ্লুকোজ (২-ডিজি)। এমনটাই দাবি করেছে ইনস্টিটিউট অফ নিউক্লিয়ার মেডিসিন অ্যান্ড অ্যালায়েড সায়েন্সেস। সংস্থার অন্যতম শীর্ষ বিজ্ঞানী অনন্ত নারায়ণ ভট্ট বলেন, এই ওষুধের কার্যপ্রক্রিয়া অনুযায়ী, সার্স-সিওভি-২ এর সব ভেরিয়েন্টের মোকাবিলা করতে সক্ষম ২-ডিজি।

একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন অনন্ত নারায়ণ। সেখানে তিনি দাবি করেন, অক্সিজেন নির্ভরতা কমাতে এবং উপসর্গের দ্রুত নিরাময়ের ক্ষেত্রে দারুন কার্যকর ভূমিকা নিয়েছে এই ওষুধ। তিনি যোগ করেন, ৬৫ বছর বা তার অধিক বয়সীদের ক্ষেত্রেও সমান কার্যকর ওই ওষুধ। ডিআরডিও-র চেয়ারম্যান জি সতীশ রেড্ডি বলেন, অনন্য কিছু বৈশিষ্ট্যের দৌলতে ২-ডিজি সফলভাবে করোনা আক্রান্তের শরীরে সার্স সিওভি-২ ভাইরাসের বৃদ্ধি রোধে সক্ষম। তিনি যোগ করেন, এই ওষুধ অত্যন্ত সহজেই উৎপাদন ও মজুত করা যায়।

গত ১৭ মে ডিআরডিও-র ‘অ্যান্টি কোভিড ড্রাগ’-এর প্রথম ব্যাচের উদ্বোধন করেছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন।পরে, চলতি মাসের গোড়ায় ডিআরডিও-র তরফে জানানো হয়, জরুরি ভিত্তিতে কোভিড রোগীর ওপর সংযুক্ত থেরাপি হিসাবে ব্যবহার করা যাবে ২-ডিজি ওষুধ। ডিআরডিও-র তরফে জানানো হয়, চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন মেনেই এই ওষুধ নেওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুন: জঙ্গি হানায় ফের রক্তাক্ত কাশ্মীর, লস্করের হামলায় নিহত দুই পুলিশকর্মী সহ ৪

তবে ব্যবহারের অনুমতি পেলেও ওষুধ নেওয়ার ক্ষেত্রে রাখা হয় কিছু বিধিনিষেধ। বলা হয়, মাঝারি বা গুরুতর কোভিড রোগীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০ দিন এই ওষুধ প্রয়োগ করা যেতে পারে। এছাড়া, অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবিটিস, গুরুতর হৃদরোগের সমস্যা, হেপাটিক পেশেন্ট ছাড়াও রেচন বা মূত্রাশয় সম্পর্কিত রোগীর ওপর এই ওষুধ প্রয়োগ করা যাবে না। সবথেকে বড় বিষয়, ডিফেন্স রিসার্সের এই ওষুধ ১৮ অনূর্ধ্ব, গর্ভবতী মহিলা বা ‘ল্যাকটেটিং মাদারস’দের দেওয়া যাবে না।

ডক্টর রেড্ডিস ল্যাবরেটরিজ-এর মাধ্যেমে বাজারে পাওয়া যাবে এই ওষুধ। একটা ছোট প্যাকেটের দাম রাখা হয়েছে ৯৯০ টাকা। ইতিমধ্যেই, এই ওষুধ তৈর করতে শুরু করেছে রেড্ডিস ল্যাব। তবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে ওষুধ কেনার ক্ষেত্রে ছাড় দেবে কোম্পানি। বর্তমানে পাউডার ফর্মে পাওয়া যাবে এই ওষুধ। জলে গুলেই খেতে হবে কোভিড-প্রতিরোধী ওষুধ।

ডক্টর রেড্ডিস ল্যাবরেটরিজ-এর মাধ্যেমে বাজারে পাওয়া যাবে এই ওষুধ। একটা ছোট প্যাকেটের দাম রাখা হয়েছে ৯৯০ টাকা। ইতিমধ্যেই, এই ওষুধ তৈর করতে শুরু করেছে রেড্ডিস ল্যাব। তবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে ওষুধ কেনার ক্ষেত্রে ছাড় দেবে কোম্পানি। বর্তমানে পাউডার ফর্মে পাওয়া যাবে এই ওষুধ। জলে গুলেই খেতে হবে কোভিড-প্রতিরোধী ওষুধ।

আরও পড়ুন: করোনার টিকা নেওয়ার পর দেশে প্রথম মৃত্যু, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় প্রথম মৃত্যু ‘স্বীকার’ করল কেন্দ্র!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest