কেরলে হাতি খুনের ঘটনার তদন্তে চিহ্নিত ৩ সন্দেহভাজন, শুরু ধর্মীয় রাজনীতির চেষ্টা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ওয়েব ডেস্ক: বারুদে ঠাসা আনারস খেয়ে কেরলের মালাপ্পুরমে (Malappuram) একটি গর্ভবতী হাতির মৃত্যুর ঘটনায় তোলপাড় গোটা দেশ। কেরল রাজ্য সরকার এই মর্মান্তিক ঘটনার তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের আশ্বাস দিয়েছে। তিন জন সন্দেহভাজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। এরই মধ্যে হাতি-হত্যার তদন্তে উঠে এল অন্য এক তথ্য।

তদন্তকারীদের একাংশ এমনটাও অনুমান করছেন, বুনো শুয়োরের উপদ্রব থেকে বাঁচতে কোনো কোনো জায়গায় এ ধরনের অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অবলম্বন করে স্থানীয়রা। হাতি-হত্যার সঙ্গে সেই ঘটনার যোগসূত্র রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখছেন বনকর্তারা।

আরও পড়ুন: বিশ্ব সাইকেল দিবসেই থেমে গেল ‘Atlas’ এর চাকা,কর্মহীন প্রায় ৭০০ শ্রমিক

কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন বৃহস্পতিবার টুইটে দাবি করেন, এখনও পর্যন্ত তিনজন সন্দেহভাজনকে চিহ্নিত করেই এগোচ্ছে তদন্ত। তিনি আরও লেখেন, “পুলিশ এবং বনদপ্তর একযোগে তদন্ত শুরু করেছে। জেলাপুলিশ এবং জেলা বনদপ্তরের প্রধান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। অভিযুক্তদের শাস্তি দেওয়ার জন্য আমরা প্রয়োজনীয় সমস্ত পদক্ষেপই নেব।” সুবিচার মিলবে বলেও আশ্বাস কেরলের মুখ্যমন্ত্রীর।

২৩ মে প্রথম রক্তাক্ত অবস্থায় হাতিটিকে দেখা যায় বলেই দাবি বনাধিকারিকদের। তবে ২ জুন তার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। কেরলের বনাধিকারিক মোহন কৃষ্ণণ সোশ্যাল মিডিয়ায় অন্তঃসত্ত্বা হাতিটির মর্মান্তিক মৃত্যুর কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন। তারপরই ঘৃণ্য এই ঘটনাটি ভাইরাল হয়ে যায়। 

বৃহস্পতিবার সকালে টুইটে ঘটনার কড়া নিন্দা করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। ‘এটা ভারতের সংস্কৃতি নয়’ বলে টুইটে উল্লেখও করেন তিনি। তার কয়েকঘণ্টা পরই টুইট করেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। তিনজনকে সন্দেহভাজন হিসাবে চিহ্নিত করে তদন্ত এগোচ্ছে বলেই জানান তিনি।

এই ঘটনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব নেটিজেনরাও। হাতি খুনের ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক রূপ দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ কারও কারও। তাঁদের দাবি, হাতিটি মারা গিয়েছে কেরালার পালাক্কড়ে। যেখানে প্রায় ৬৮ শতাংশ হিন্দু বসবাস করেন। অথচ দাবি করা হচ্ছিল ৭০ শতাংশ মুসলমান বসবাসকারী মালাপ্পুরমে ঘটনাটি  ঘটেছে। মুসলমান বিদ্বেষ তৈরি করতে বিজেপি এই কারসাজি করছে বলেই অভিযোগ। 

আরও পড়ুন: মোদির জন্য আসছে মিসাইল হানা এড়াতে সক্ষম বিশেষ ভিভিআইপি বিমান

Gmail
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest