Amarinder Singh resign as Chief Minister of Punjab, may quit Congress

‘বহুবার অপমানিত হয়েছি, সামনে আরও রাস্তা খোলা’, মুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়লেন ‘বিরক্ত’ অমরিন্দর সিং

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

দলে অন্তর্কলহের জেরে এবার পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিলেন ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং (Amarinder Singh)। শনিবার কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করে ইস্তফার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন তিনি। বিকালে রাজভবনে গিয়ে নিজের ইস্তফাপত্র জমা দিয়ে এসেছেন। তাঁর সঙ্গে গোটা মন্ত্রিসভাও পদত্যাগ করেছে। খুব শীঘ্রই সম্ভবত কংগ্রেসের সঙ্গেও সম্পর্ক ছিন্ন করতে পারেন পাঞ্জাবের ক্যাপ্টেন।

কংগ্রেসের পরিষদীয় দলনেতা অমরেন্দ্রর সঙ্গে কোনও আলোচনাই না করেই পঞ্জাবের দায়িত্বপ্রাপ্ত এআইসিসি সাধারণ সম্পাদক হরিশ রাওয়ত কংগ্রেস বিধায়কদের বৈঠক ডাকেন বলে অভিযোগ। চণ্ডীগড়ের প্রদেশ কংগ্রেস দফতরে আয়োজিত ওই বৈঠকে অমরেন্দ্র বা তাঁর অনুগামীরা যোগ দেননি। বরং অমরেন্দ্রর নেতৃত্বে রাজনৈতিক কৌশল নির্ধারণের জন্য আলাদা ভাবে বৈঠক করেন তাঁরা। চলতি ঘটনাপ্রবাহ পঞ্জাব কংগ্রেসের ভাঙনের ইঙ্গিতবাহী বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশ। প্রসঙ্গত, আশির দশকে অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে সেনা অভিযানের প্রতিবাদে কংগ্রেস ছেড়েছিলেন পাটিয়ালার রাজ পরিবারের সন্তান তথা প্রাক্তন সেনা অফিসার অমরেন্দ্র। কয়েক বছর পরে ফের দলে ফেরেন তিনি।

জুলাই মাসে অমরেন্দ্রের আপত্তি সত্ত্বেও নভজোৎ সিংহ সিধুকে পঞ্জাব প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির দায়িত্ব দিয়েছিলেন সনিয়া। এর পর ধারাবাহিক ভাবে দু’গোষ্ঠীর বিরোধ প্রকাশ্যে এসেছে। সিধু অনুগামী একাধিক মন্ত্রী ও বিধায়ক প্রকাশ্যে অমরেন্দ্রর অপসারণের দাবিতে সরব হয়েছেন। অন্যদিকে, রাহুল গান্ধী কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সৌন্দর্যায়নের নামে ঐতিহাসিক স্মারক জালিয়ানওয়ালা বাগের রূপ বদল নিয়ে প্রকাশ্যে কেন্দ্রের সমালোচনা করলেও অমরেন্দ্র জানিয়েছেন, নরেন্দ্র মোদী সরকারের ওই উদ্যোগ তাঁর ভাল লেগেছে।

আগামী বছরের গোড়ায় উত্তরপ্রদেশে, উত্তরাখণ্ডের সঙ্গে পঞ্জাবেরও বিধানসভা ভোট হওয়ার কথা। অমরেন্দ্র দল ছাড়লে ওই রাজ্য কংগ্রেসের হাতছাড়া হতে পারে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের পূর্বাভাস। অমরেন্দ্রর সঙ্গে আম আদমি পার্টি (আপ)-র গোপন যোগাযোগ নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে। ইস্তফা ঘোষণার পরে অমরেন্দ্র নিজেই কংগ্রেস ছাড়ার সম্ভাবনা উস্কে দেন। তিনি বলেন, ‘‘আমাদের সামনে সব বিকল্পই খোলা রয়েছে।’’

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest