assam cabinet approves cow protection bill to be tabled in next assembly.

উত্তরপ্রদেশের পর এবার গো সংরক্ষণ বিল আসছে অসমে, নিয়ম না মানলে জেল, জরিমানা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

গো সংরক্ষণ বিল আসছে অসমে। অসমের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশে গরু পাচারের ক্ষেত্রে কড়া বিধি আরোপ করার রাস্তায় যাওয়ার উদ্যোগ। তবে গরুর মাংস কাটা কোনওভাবেই আইন করে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে না। পাশাপাশি অসমের বাইরে থেকে অসমের মধ্যে যাতে গরু না আসে সেটাও আইন করে বন্ধ করার ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কেবলমাত্র কৃষিক্ষেত্র ও পশুপালনের জন্য় গরু নিয়ে আসার ছাড়পত্র সবদিক খতিয়ে দিতে পারে। তবে Prevention of cruelty to animals Act 1960কে মান্যতা দিয়েই যাবতীয় কাজ করার কথাও আইনে থাকছে।

বিষয়টি খোলসা করেছেন মন্ত্রী পীযুষ হাজারিকা। পরের মাসে পরবর্তী সেশনে এটিকে উপস্থাপনা করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। হাজারিকা বলেন, ‘আমরা আগেই জানিয়েছিলাম গরু সুরক্ষা বিল আমাদের সরকার নিয়ে আসবে। রাজ্য বিধানসভায় এই বিলটি তোলার ব্যাপারে গতকাল অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।’

এদিকে এই বিলের উপজীব্য বিষয়গুলি ঠিক কী কী সেটা ঠিক জানা যায়নি। তবে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা আগেই জানিয়েছিলেন ‘বাইরে থেকে অসমে গরু আনা ও অসম থেকে বাইরে গরু নিয়ে যাওয়ার বিষয়টিকে আইন করে নিষিদ্ধ করা হবে।’ তবে ওয়াকিবহাল মহলের মতে আন্তর্জাতিক সীমানা ব্যবহার করে বাংলাদেশে গরু পাচারের বিষয়টিকে একেবারে বন্ধ করার জন্যই এই বিল আনা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ১১ দিন টানা ছুটি ব্যাঙ্কে, কাজ থাকলে মিটিয়ে নিন আজই

উত্তরপূর্ব ভারতের মূল প্রবেশদ্বার হল অসম। গরু ছাড়াও অন্যান্য নানাধরণের সামগ্রী দেশের অন্য়ান্য প্রান্ত থেকে অসমে আসে। এদিকে এই বিলের মাধ্যমে খ্রীষ্টান প্রভাবিত এলাকাতে গো মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রে বড় প্রভাব পড়বে। পাশাপাশি বিলে উল্লেখ করা হচ্ছে, যে সমস্ত এলাকায় হিন্দু, শিখ, জৈন ধর্মাবলম্বী বাসিন্দারা বাস করেন ও কোনও মন্দির অথবা সত্র অথবা কোনও ধর্মীক্ষেত্রের ৫ কিলোমিটারের মধ্যে গো মাংস বিক্রির অনুমতি দেওয়া যাবে না। এই নিয়ম না মানলে ৩ থেকে ৮ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। ৩ থেকে ৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানাও হতে পারে। অল অসম মাইনরিটি স্টুডেন্টস অ্য়াসোসিয়েশনের দাবি, গোমাংসের জন্য এত কড়াকড়ি হলে কেউ কেউ তো বলবে মসজিদের কাছে শুয়োরের মাংস বিক্রিতেও নিষেধ করা দরকার।

তবে রাজনৈতিক মহলের মতে অসম হতে চলেছে দ্বিতীয উত্তরপ্রদেশ। আর নিজেকে দ্বিতীয যোগী আদিত্যনাথ হিসাবে প্রমান করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন হিমন্ত বিশ্ববর্মা। সেই কারণেই এই পদক্ষেপ গুলো নিচ্ছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বাজ পড়ে তিন রাজ্যে মৃত ৬৮! শুধু উত্তর প্রদেশেই প্রাণ হারালেন ৪১ জন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest