BJP's weapon 'smuggling' against Trinamool! Biplob Deb warns of arrest

তৃণমূলের বিরুদ্ধে BJP-র অস্ত্র ‘পাচার’! গ্রেফতারের হুঁশিয়ারি বিপ্লব দেবের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বাংলা দখল করে এখন তৃণমূলের পাখির চোখ ত্রিপুরা। ইতিমধ্যেই বিজেপি শাসিত ত্রিপুরাকে পাখির চোখ করে ঝাঁপিয়ে পড়েছে তৃণমূল। আর সেই সূত্রে বিভিন্ন দল থেকে নেতা-কর্মীরা আসতে শুরু করেছেন বাংলার শাসক দলে। আর এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলে নতুন যোগ দেওয়া নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারির মতো হুঁশিয়ারিও দিয়ে রাখলেন মুখ্য়মন্ত্রী বিপ্লব দেব (Biplab Deb)।

রবিবার একটি ফেসবুক পোস্টে তিনি কার্যত হুঁশিয়ারির সুরে বলেন, ‘তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হবে।’ তৃণমূলের নাম না করে পোস্টে তিনি লেখেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ থেকে একটি দল আমাদের রাজ্যে এসেছে। এই দলের নেতৃত্বরা পশ্চিমবঙ্গে অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। এখানে যাদের দলে টানছে, তাঁরাও অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। আমার কাছে যা তথ্যপ্রমাণ রয়েছে, তার ভিত্তিতে আমি তাঁদের গ্রেফতার করাব।’

আরও পড়ুন: ত্রিপুরা বিধানসভার স্পিকার পদ থেকে ইস্তফা বিজেপি নেতা রেবতীমোহনের

তৃণমূলের সক্রিয়তায় এখন বাকি দলগুলিতে ভাঙন ধরছে ত্রিপুরায়, তা বলাই বাহুল্য। এমনকী মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের পোস্টেও একপ্রকার তা মান্যতা পেল। এই পরিস্থিতিতে বিরোধী ভোটকে তৃণমূলের দিক থেকে বিজেপির দিকে আনতে দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যেও বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। লিখেছেন, ‘আমি দলের কার্যকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলবো প্রত্যেক বিরোধী সিপিএম এর সমর্থকদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। তাদের কাছে গিয়ে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ান তুলে ধরুন। তাদের বোঝান ২৫ বছরের সরকার কি করেছে আর আমরা গত সাড়ে তিন বছরে কি করেছি ও করছি।’ (বানান অপরিবর্তীত)।

বিজেপির অন্দরেও অবশ্য মাথাব্যথা কম নেই। সুদীপ রায় বর্মনের সঙ্গে বিজেপির বিচ্ছেদ ও তৃণমূল ঘনিষ্ঠতার জল্পনা ছড়িয়েছে ত্রিপুরায়। ত্রিপুরার রাজনৈতিক মহলের মতে, সুদীপ রায় বর্মন এখন যতই বিদ্রোহের ইঙ্গিত দিন না কেন, আপাতত মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বিপ্লব দেবের উপরেই আস্থা রাখতে চাইছেন বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব৷ একসময় মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ সুদীপ রায় বর্মন যে তৃণমূলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখছেন, তা দিনের আলোর মতো স্পষ্ট। এবং তা বিজেপি নেতৃত্বের আর অজানাও নয়৷ সম্প্রতি দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের মাঝপথেই রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে বেরিয়ে যান সুদীপ৷ তার পরেও তাঁর দাবি মানেনি দল। এই পরিস্থিতিতে বিপ্লব দেবের ফেসবুকে পোস্ট বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে শাসক দল।

আরও পড়ুন: নকশাল, টুকরে টুকরে গ্যাং-কে মদত দিচ্ছে Infosys! গুরুতর অভিযোগ RSS-মুখপত্রে, তীব্র সমালোচনায় ‘সুর বদল’

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest