Delhi will sink in complete darkness if coal is not supplied to power stations in two

Coal Crisis: দু’দিনের মধ্যে কয়লার জোগান না হলে অন্ধকারে ডুবতে চলেছে দিল্লি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আর মাত্র দু’দিন। তার মধ্যে পর্যাপ্ত কয়লা না পেলে অন্ধকারে ডুবে যাবে রাজধানী দিল্লি (Delhi)। শনিবার এমনই দাবি করলেন দিল্লির বিদ্যুৎমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন। এর আগে তামিলনাড়ু (Tamil Nadu) ও ওড়িশাও (Odisha) দাবি জানিয়েছে, কয়লার (Coal) জোগান স্বাভাবিক না হলে তাদের তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলি অচল হয়ে পড়বে। এবার একই সুর শোনা গেল দিল্লি প্রশাসনের গলাতেও।

সত্যেন্দ্র জৈন বলেন, “ন্যূনতম এক মাসের কয়লা মজুত থাকা উচিত তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রগুলিতে। কিন্তু দিল্লির তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রগুলিতে কয়লার মজুত একেবারে তলানিতে পৌঁছেছে। এক দিনের মতো কয়লা মজুত রয়েছে তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রগুলিতে। এর মধ্যে যদি কয়লা সরবরাহ না করা হয়, তা হলে ব্ল্যাকআউট পরিস্থিতি তৈরি হবে রাজধানীতে।” কোভিডের সময় অক্সিজেনের মতোই কয়লার সঙ্কট তৈরি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন জৈন। তিনি বলেন, “বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। সঙ্কট তৈরি করে সেই সমস্যা সমাধান করে প্রচার পাওয়ার একটা চেষ্টা চলছে।”

দেশে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র রয়েছে ১৩৫টি। সারা দেশের প্রয়োজনীয় বিদ্যুতের প্রায় ৭০ শতাংশই এখানে উৎপাদিত হয়। এই সব কেন্দ্রের অর্ধেকেরও বেশি কেন্দ্রে যা কয়লা রয়েছে, তাতে তিনদিনও চলবে না! সম্প্রতি এমনই তথ্য দিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

এই পরিস্থিতিতে দিল্লির বিদ্যুৎমন্ত্রীর কেন্দ্রের কাছে আরজি, যত দ্রুত সব কেন্দ্রগুলিতে কয়লা পাঠানোর ব্যবস্থা করা হোক। তাঁর দাবি, সমস্ত কেন্দ্রই বর্তমানে মাত্র ৫৫ শতাংশ উৎপাদন করছে। সত্যেন্দ্র জৈনের অভিযোগ, এই পরিস্থিতি নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে। সেন্ট্রাল গ্রিড রেগুলেটরের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা গিয়েছে অক্টোবরের প্রথম সাত দিনে যে পরিমাণ ঘাটতি হয়েছে তা সারা বছরের ঘাটতির ১১.২ শতাংশ।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest