Gangajal GST: Mallikarjun Kharge Allegation That Central Government Impsed18 Percent GST On Gangajal Then CBIC Refuses The Claim

Gangajal GST: গঙ্গাজলের উপর ১৮ শতাংশ জিএসটি? কংগ্রেসের অভিযোগের পাল্টা বিবৃতি কেন্দ্রের

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

গঙ্গাজলের (Gangajal) উপরেও জিএসটি বসাচ্ছে সরকার! এই দাবি তুলে কেন্দ্রকে তোপ দাগল কংগ্রেস (Congress)। হাত শিবিরের দাবি, লুটপাটের চরম সীমায় পৌঁছে গিয়েছে কেন্দ্র সরকার (Central Government)। তবে কেন্দ্রের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, গঙ্গাজল বা পুজোর কাজে ব্যবহৃত কোনও জিনিসের উপরেই জিএসটি বসানো হচ্ছে না। প্রসঙ্গত কয়েকদিন ধরেই সোশাল মিডিয়ায় খবর ছড়ায়, পুজোয় ব্যবহৃত নানা জিনিসের উপরে ১৮ শতাংশ জিএসটি বসিয়েছে কেন্দ্র।

বৃহস্পতিবার উত্তরাখণ্ড পরিদর্শনে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি পার্বতী কুণ্ডে পুজো দিয়ে আদি কৈলাসের কাছে প্রার্থনাও করেন। সেই সময়ই গঙ্গাজলের উপর কর বসানোর অভিযোগ তুলে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়্গে। এদিন এক্স হ্যান্ডেলে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে হিন্দিতে তিনি লেখেন, “ভারতীয়দের কাছে জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মোক্ষদাতা মা গঙ্গার গুরুত্ব অনেক বেশি। আপনি আজ উত্তরাখণ্ডে আছেন এটা খুব ভাল। কিন্তু, আপনার সরকার পবিত্র গঙ্গার জলের উপর ১৮ শতাংশ জিএসটি আরোপ করেছে।” এটা ‘লুঠপাঠ ও ভণ্ডামির চরম পর্যায়’ বলেও মন্তব্য করেছেন খাড়্গে।

আরও পড়ুন: Bihar Viral Video: দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তির দেহ খালে ফেলে দিল পুলিশ! ভিডিও দেখলে শিউরে উঠবেন

তবে কংগ্রেস সভাপতির অভিযোগ সঠিক নয় বলে বিবৃতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় পরোক্ষ কর নিয়ন্ত্রক সংস্থা। CBIC-র তরফে বিবৃতিতে পাল্টা বলা হয়েছে, “সারা দেশে গৃহস্থদের পুজোয় ব্যবহৃত হয় গঙ্গাজল। পুজো সামগ্রী জিএসটি-র বাইরে। জিএসটি লাগু হওয়ার সময় থেকেই এটা জিএসটি-র বাইরে রাখা হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, দেশের প্রতিটি মানুষ গঙ্গানদীর সুবিধা পায় না। কিন্তু, পুজো, বিয়ে থেকে বিভিন্ন ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানে গঙ্গাজল বিশেষ প্রয়োজনীয় সামগ্রী। তাই কারও গঙ্গাজল পেতে যাতে সমস্যা না হয়, সেজন্য ২০১৬ সাল থেকেই দেশের প্রতিটি পোস্ট অফিসে গঙ্গাজল বিক্রি শুরু করে নরেন্দ্র মোদী সরকার। প্যাকেজড মিনারেল জলের মতোই বোতলে করে ঋষিকেশ ও গঙ্গোত্রীর জল বিক্রি হয়। জলের পরিমাণ অনুসারে দাম আলাদা রাখা হয়েছে। ঋষিকেশের গঙ্গাজলের ২০০ ও ৫০০ মিলিলিটার বোতলের দাম যথাক্রমে ১৫ টাকা ও ২২ টাকা। আর গঙ্গোত্রীর গঙ্গাজলের ২০০ ও ৫০০ মিলিলিটার বোতলের দাম যথাক্রমে ২২ টাকা ও ৩৫ টাকা।

আরও পড়ুন: Bank:ফিরছে কি গনেশ উল্টানোর দিন? সরকারি ব্যাঙ্ক বেসরকারীর পথে! ইঙ্গিত মোদির উপদেষ্টার

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest