Griha Laxmi Scheme: Women will get 5000 per month, TMC promises Goa before State Election 2022

Griha Laxmi Scheme: লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের পর এবার ‘গৃহলক্ষ্মী’, প্রতি মাসে মহিলাদের অ্যাকাউন্টে ঢুকবে ৫ হাজার টাকা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

বিধানসভা ভোটের আগে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আরও বেশ কয়েকটি প্রতিশ্রুতির মধ্যে এটি ছিল বেশ গুরুত্বপূর্ণ। যে স্কিমে প্রত্যেক মাসে মহিলাদের টাকা দেওয়ার কথা বলা হয়। পশ্চিমবঙ্গের তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার পর সেই প্রকল্প কার্যকরও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ইতিমধ্যে রাজ্যে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প চালু হয়েছে। আর বাংলায় তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার পরই বাংলার বাইরে একাধিক রাজ্যকে পাখির চোখ করেছে তৃণমূল, যার মধ্যে অন্যতম গোয়া। সেই গোয়াবাসীর জন্যই এবার এরকমই এক প্রতিশ্রুতি দিল তৃণমূল। ২০২২- এর বিধানসভা নির্বাচনে ক্ষমতায় এলে চালু করা হবে গৃহলক্ষী স্কিম। গোয়ার তৃণমূল নেতৃত্বের তরফ থেকে এমনটাই ঘোষণা করা হয়েছে। সেই প্রকল্পে মহিলারা মাসে ৫ হাজার টাকা করে পাবেন।

আজ টুইটারে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে তৃণমূল। সেখানে গৃহলক্ষী প্রকল্প সম্পর্কে একাধিক তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। জানানো হয়েছে, এই প্রকল্পে মহিলাদের আর্থিক স্বাবলম্বী করা হবে। তার জন্য গৃহলক্ষ্মী কার্ড (Griha Laxmi Card) চালু করা হবে। সেই কার্ডের মাধ্যমে মহিলারা প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে পাবেন। অর্থাৎ বছরে মোট ৬০ হাজার টাকা পাবেন মহিলারা। সেই টাকা সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ পরিবারকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা হবে। আরও জানানো হয়েছে যে এই প্রকল্প কার্যকর করতে হলে রাজ্য সরকারের খরচ হবে ১৫০০ থেকে ২০০০ কোটি টাকা, যা রাজ্য বাজেটের ৬ থেকে ৮ শতাংশ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

রাজ্যে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল পরিমাণ ভোট পেয়ে ফের ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল। আর ভোটের আগে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের মতো প্রকল্পের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। তারপর তা বাস্তবায়িত করা হয়। ইতিমধ্যে এই প্রকল্পের আওতায় বহু মহিলা টাকা পাচ্ছেন। লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের মতো স্কিমগুলির উপরে তৃণমূলের আস্থা বেড়েছে বলে মনে করে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। বাংলার পাশাপাশি গোয়াতেও মহিলাদের বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলছেন মমতা। তাই সেখানেও একই কৌশল কাজে লাগাতে চাইছে ঘাসফুল শিবির। তবে বাংলার মতো সেখানেও এই প্রকল্পের মাধ্যমে তৃণমূল বাজিমাত করতে পারে কিনা এখন সেটাই দেখার বিষয়। সূত্রের খবর, ১৩ ডিসেম্বর গোয়াতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। গোয়ায় তৃণমূল সংগঠন বিস্তার করার পর এই নিয়ে দ্বিতীয় বার সে রাজ্যে যাচ্ছেন তিনি।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest