INDIA Alliance: TMC leaders clarify amid rift buzz: 'Was and will be part of INDIA bloc

INDIA Alliance: দিল্লি না গিয়েও ‘ইন্ডিয়া’ নিয়ে বার্তা মমতার! রামলীলা ময়দানে কী বললেন ডেরেক, সাগরিকা?

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

রবিবারের রামলীলা ময়দান বহু দিন পর আবার বিরোধী জোট ‘ইন্ডিয়া’কে ঐক্যবদ্ধ চেহারায় দেখল। ‘গণতন্ত্র বাঁচাও’ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখলেন রাহুল গান্ধী, সীতারাম ইয়েচুরি, তেজস্বী যাদব, অখিলেশ যাদবের মতো বিরোধী নেতা-নেত্রীরা। তৃণমূলের দূত হিসাবে এই সভায় বক্তব্য রাখেন দলের রাজ্যসভার নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন। তবে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লি না গিয়েও রবিবার উপস্থিত থাকলেন রামলীলা ময়দানে। মঞ্চে রাখা দু’টি এলইডি স্ক্রিনে বার বার ফুটে উঠছিল বিরোধী নেতা-নেত্রীদের মুখ। সেখানে ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবিও।

সভায় বক্তব্য রাখতে উঠে ডেরেক পুলওয়ামা হামলা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এর পাশাপাশি দাবি করেন যে, এটা বিজেপির সঙ্গে ভারতীয় গণতন্ত্রের লড়াই। পুলওয়ামা প্রসঙ্গে ডেরেক বলেন, “আমরা চাই সত্যিটা সামনে আসুক। আমরা এই নিয়ে শ্বেতপত্র চাই।” মঞ্চের দু’টি ফাঁকা চেয়ারের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, “আমরা দুটো আসন ফাঁকা রেখেছি। মাননীয় কেজরিওয়াল এবং মাননীয় সোরেন আপনারা আমাদের সঙ্গেই রয়েছেন।” বিজেপির উদ্দেশে আক্রমণ শানিয়ে তিনি বলেন, “কর্মসংস্থান, মুদ্রাস্ফীতি, সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলি রক্ষা করার নিরিখে মোদীর গ্যারান্টি আসলে জিরো ওয়ারেন্টি।”

অন্যদিকে, রবিবার থেকেই লোকসভা ভোটের প্রচারে নেমেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষ্ণনগরের ধুবুলিয়ায় দলীয় প্রার্থী তথা বহিষ্কৃত সাংসদ মহুয়া মৈত্রের সমর্থনে জনসভা থেকে এদিন INDIA জোট নিয়েও মুখ খুলেছেন তিনি। মমতার কথায়, “ইন্ডিয়া জোট আমি তৈরি করেছি। নামটাও আমার দেওয়া। ভোটের পর ওটা দেখে নেব।” INDIA জোটে জট নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, “বাংলায় সিপিএম-কংগ্রেস-বিজেপি আমাদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। সিপিএমকে ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকেই ভোট দেওয়া। আরও একটা লেজুড় মুসলিম পার্টি হয়েছে। সেটাকে ভোট দেওয়া মানে বিজেপিকে ভোট দেওয়া।” তিনি বলেন, “আমরা একলা লড়ছি। আমি শুনেছি সিপিএম, কংগ্রেস ইন্ডিয়া জোটের হয়ে লড়ছে বলে বলেছে। আর এখানে তো জোটই হয়নি। এখানে ঘোঁট হয়েছে।” এতেই ইঙ্গিত ছিল, ভোটের আগে আসন সমঝোতা নিয়ে টানাপোড়েনের ফলে এককভাবে লড়াই করলেও প্রয়োজনে নির্বাচন পরবর্তীতে তিনি এই জোট নিয়ে সক্রিয় হতে পারেন।

এদিন ফের কেজরিওয়ালের পাশে দাঁড়াতে দেখা গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বললেন, “বিজেপি মিথ্যে মামলায় কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করেছে, কিন্তু তাঁরা ওর কাজ করা আটকাতে পারেনি।” এরপরই বিজেপির বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, “বিজেপি মানে কী? এটা ওয়াশিং মেশিন ভাজপা!”

সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন গুজরাতের প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক চিরাগ প্যাটেল। নাম না করে মমতার টিপ্পনি, “বিজেপির ওয়াশিং মেশিনে- এক প্যাটেল ভিতরে গিয়ে এখন দুর্নীতিমুক্ত!” পর্যবেক্ষকদের মতে, মুখ্যমন্ত্রী বোঝাতে চেয়েছেন যাঁরা বিজেপির কথা মতো দলবদল করছেন না বেছে বেছে তাঁদের দিকেই লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে এজেন্সি। তবে এমন পরিস্থিতিতেও অনেকে যে শিরদাঁড়া সোজা রেখে লড়ছেন, কেজরিওয়ালের প্রসঙ্গ টেনে সেটাও স্পষ্ট করতে চেয়েছেন মমতা।

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest