Modi is the protector! To increase the popularity by showing ‘Taliban poker’ BJP's new strategy

মোদীই রক্ষাকর্তা! ‘তালিবান জুজু’ দেখিয়ে জনপ্রিয়তা বাড়ানোর নয়া কৌশল বিজেপির

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কোভিড, পেগাসাস, কৃষি আইন, জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি ইস্যুতে কেন্দ্র যখন কোণঠাসা, তখন আফগানভূমে তালিবান হানা যেন নিস্তার পাওয়ার পথ খুঁজে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তথা গেরুয়া শিবিরকে। এমনিতে বিজেপির রাজনীতির গোটাটাই জুড়ে রয়েছে পাকিস্তান তথা হিন্দু-মুসলিম বিভাজন। আফগানিস্তানে তালিবান শাসন সেই বিভাজনের লক্ষ্যে নতুন অস্ত্র তুলে দিয়েছে বিজেপির হাতে।

গত বছরের আগস্ট মাসে ৬৬ শতাংশ মানুষ মোদীকেই চাইছিলেন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে। কিন্তু এ বছরের আগস্ট মাসে সেই চিত্র অনেকটাই পাল্টে গেল। এবারের আগস্ট মাসে তা নেমে দাঁড়াল ২৪ শতাংশে। শুধু তাই-ই নয়, নতুন এই সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ হিসেবে এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছে চতুর্থ স্থানে।

হারানোর জনপ্রিয়তা বাড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই বিজেপি (BJP) নেতারা বলা শুরু করেছেন,”মোদীর মতো শক্তিশালী নেতা না থাকলে ভারতের অবস্থাও ভবিষ্যতে আফগানিস্তানের মতোই হবে।” এমনকী দেশের বেহাল আর্থিক অবস্থা, বা পেট্রল-ডিজেলের দাম নিয়ে প্রশ্ন করা হলেও দেখিয়ে দেওয়া হচ্ছে আফগানিস্তান জুজু। ভোপাল এবং বিহারের দুই বিজেপি নেতা প্রকাশ্যেই পেট্রলের দাম নিয়ে প্রশ্ন তোলায় আফগানিস্তানে চলে যাওয়ার নিদান দিয়েছেন।

আরও পড়ুন: সূচ-বিহীন প্রথম ভ্যাকসিন ভারতে, জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের ছাড়পত্র পেল জাইডাস ক্যাডিলা

বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডাও (JP Nadda) ইতিমধ্যেই ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দিয়েছেন, শুধু বিজেপির হাতেই দেশ সুরক্ষিত। শনিবারই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি উত্তরাখণ্ডের এক সৈনিক সম্মান অনুষ্ঠানে মন্তব্য করেছেন, “নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বেই ভারত শক্তিশালী এবং সুরক্ষিত।” দেশ যে আজ উন্নতির পথে এগোতে প্রস্তুত সেটাও মোদির দৌলতেই। বোঝাতে চেয়েছেন নাড্ডা। সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিজেপির আইটি সেল বোঝাতে চেষ্টা করছে, আজ পাকিস্তান, আফগানিস্তান যে সন্ত্রাস সমস্যায় বিপর্যস্ত, সেটা শুধু ভুল নীতি, আর যোগ্য নেতার অভাবে। এবং মোদী না থাকলে ভারতেও সেই পরিস্থিতিই সৃষ্টি হতে পারে।

তালিবান নিয়ে এখনও আন্তর্জাতিক মহলে অবস্থান স্পষ্ট করতে পারেনি ভারত।এই মুহূর্তে নিউইয়র্কে রয়েছেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সেখানেই সাংবাদিকদের সামনে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমরা কাবুলের পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি। যেহেতু তালিবান কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তাই আমাদের তাদের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তবে আফগানিস্তানের জনগণের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক একই রকম থাকবে। এই মুহূর্তে ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনা প্রথম লক্ষ্য বলেই জানিয়েছেন জয়শঙ্কর। তিনি বলেন সবার মতাে আমরাও আফগানিস্তানের পরিবর্তিত পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি।’

আরও পড়ুন: “মমতাগিরি”!পুলিশের হাতে রাখি বেঁধে ত্রিপুরায় রাখিবন্ধন উৎসব পালন করল তৃণমূল

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest