PM NARENDRA MODI PLAYS UP RASHTRAGAAN PORTAL AHEAD OF INDEPENDENCE DAY

‘গান করুন, জাতীয় সংগীত রেকর্ড করুন’, ‘রাষ্ট্রগান’ পোর্টাল চালু করে আবেদন মোদীর

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ তম বছরে পা রাখার আগে ‘রাষ্ট্রগান’ পোর্টাল চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। ১৫ অগস্টের আগে দেশবাসীর কাছে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার ক্ষেত্রে রেকর্ড গড়ারও আবেদন করেছেন তিনি। স্বাধীনতা দিবসের আগে জুলাই মাসের শেষ রবিবার ‘মন কি বাত'(Mann Ki Baat) অনুষ্ঠানে দেশবাসীকে এই পোর্টালে জাতীয় সংগীত (National Anthem) গেয়ে রেকর্ড করার কথা বলেন মোদি। তিনি বলেন এটি এমন একটি পোর্টাল যেখানে যে কেউ জাতীয় সংগীত গেয়ে তাঁদের নিজস্ব ভিডিও রেকর্ড করতে এবং আপলোড করতে পারে।

আরও পড়ুন: হকিতে লজ্জার হার, ক্যাঙারুদের কাছে 7-1 গোলে বিধ্বস্ত মনপ্রীতরা

রবিবার নিজের রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’-এ এই কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘স্বাধীনতার ৭৫ তম বছরে পা রাখতে চলেছি আমরা। সেই উপলক্ষে ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ পালন করবে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক। এই উৎসবের মধ্যেই রাষ্ট্রগানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার জন্য ‘রাষ্ট্রগান ডট ইন’ (rashtragaan.in) নামের একটি পোর্টাল চালু করা হয়েছে। এখানে সবাই জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার ভিডিয়ো রেকর্ড করে পাঠাতে পারবেন। আসুন আমরা ৭৫ লক্ষের বেশি ভিডিয়োর লক্ষমাত্রা নিই।’’প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এই প্রচারের সঙ্গে আমরা যুক্ত হতে পারি। আমরা ভাগ্যবান যে দেশের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের সাক্ষী থাকতে পারব। আমরা সবাই এই দিনটি উদ্‌যাপন করব। আগামী বছর ১২ মার্চ থেকে আমদাবাদের সবরমতী আশ্রমে এই উৎসবের সূচনা হবে।’’

এ দিনের অনুষ্ঠানের শুরুতেই তিনি টোকিও অলিম্পিকে ভারতের দুর্দান্ত সূচনার কথা উল্লেখ করে সকলের কাছে ভারতীয় দলকে সমর্থন করার অনুরোধ জানান।অনুষ্ঠানের সূচনাতেই প্রধানমন্ত্রী “ভিকট্রি পাঞ্চ” কর্মসূচির ঘোষণা করেন, যেখানে ভারতীয় অলিম্পিক দলকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমর্থন জানানোর কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের অলিম্পিক দলকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমর্থন জানানোর জন্য ইতিমধ্যেই ভিকট্রি পাঞ্চ ক্যাম্পেন শুরু হয়েছে। আপনারাও নিজেদের দলের সঙ্গে ভিকট্রি পাঞ্চ শেয়ার করুন ও ভারতকে সমর্থন করুন।”

আগামিকাল, ২৬ জুলাই কার্গিল বিজয় দিবস। এ দিনের অনুষ্ঠানকে স্মরণীয় করে রাখতে সকলকে ১৯৯৯ সালের কার্গিল যুদ্ধে বিজয়ী জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণের অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, “আগামিকাল কার্গিল বিজয় দিবস। কার্গিল যুদ্ধ সেনাবাহিনীর নিয়মানুবর্তিতা ও জয়ের প্রতীক, যার সাক্ষী গোটা বিশ্ব ছিল। আমি চাই, আপনারা কার্গিলেরগল্প পড়ুন। আসুন আমরা সকলে মিলে কার্গিলের সাহসী যোদ্ধাদের স্যালুট জানাই। ”

আরও পড়ুন: প্রথম ম্যাচে জয় বাংলার টেবিল টেনিস তারকা সুতীর্থার

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest