Women’s T20 World Cup: ইতিহাস গড়লেন হরমনপ্রীতরা, প্রথমবার ফাইনালে ভারত

সিডনি: বৃষ্টির জেরে বাতিল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেমিফাইনাল ম্যাচ। গ্রুপ শীর্ষে থাকার দরুন মহিলাদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছে গেল ভারত।

সেমিফাইনালে বৃষ্টির ভ্রূকূটি আগে থেকেই ছিল। পূর্বাভাস মতোই এদিন সিডনিতে অঝোর ধারায় বৃষ্টি নামে। প্রাথমিকভাবে টসের সময় পিছিয়ে দেওয়া হয়। আইসিসির নয়া নিয়ম অনুযায়ী, টি-টোয়েন্টি ম্যাচ সম্পূর্ণ করার ক্ষেত্রে কমপক্ষে প্রতিটি দলকে ১০ ওভারে খেলতে হবে। সেজন্য ভারতীয় সময় অনুযায়ী, সকাল ১১টা ৬ মিনিট টস হওয়ার কথা ছিল। ১৫ মিনিট ম্যাচ শুরুর নির্ঘণ্ট ঠিক হয়। কিন্তু বৃষ্টি থামেনি। শেষপর্যন্ত টসের নির্ধারিত সময়ের আগেই ১০টা ৪৪ মিনিট নাগাদ ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আম্পায়ার ও ম্যাচ অফিসিয়ালরা।এরকমভাবে একেবারেই ইতিহাস তৈরি করতে চাননি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটাই হল। গ্রুপ পর্যায়ে ভালো রেকর্ডের সুবাদে মহিলা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল ভারত, প্রথমবারের জন্য।

গ্রুপ এ-তে চারটি ম্যাচ জিতে শীর্ষে ছিলেন হরমনপ্রীতরা। অপরদিকে ইংল্যান্ড নেট রানরেটে এগিয়ে থাকলেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ হারায় সুবিধা হয় ভারতের। সেটাই নির্ণায়ক হয়ে যায় এদিন। বৃষ্টির জন্য এদিন একটা বলও হয়নি ম্যাচে। ম্যাচ রেফারি খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করায় নিয়ম অনুযায়ী ভারত পৌঁছে যায় ফাইনালে। তবে সেমিফাইনালে রিজার্ভ ডে না থাকায় ক্ষোভে ফুঁসছেন ব্রিটিশ ক্রিকেটাররা। খারাপ আবহাওয়ার জন্য ম্যাচ বাতিল হওয়ায় হতাশার শিকার ইংল্যান্ড শিবির। অধিনায়ক হিথার নাইট জানিয়েছেন, ‘এভাবে বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হবে ভাবতে পারছি না। সত্যিই হতাশাজনক। রিজার্ভ ডে থাকলে ভাল হত। কিন্তু কী আর করা যাবে! দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে হারের খেসারত দিতে হল। কিন্তু শেষ চারে পৌঁছেছি আমরা, সেটাই আমাদের কাছে অনেক বড় প্রাপ্তি। ফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলাম। খারাপ আবহাওয়া তাতে জল ঢেলে দিল।’

986ffce614ae438dadff8d65965fd5f2 986ffce614ae438dadff8d65965fd5f2 0 1583388636845

ফাইনালে ওঠার পর ভারত অধিনায়ক হরমনপ্রীত বললেন, “খেলা না হওয়া দুর্ভাগ্যের। তবে এটাই নিয়ম। সেটাই মানা হয়েছে। পরবর্তীকালে রিজার্ভ ডে থাকলে ভাল হয়। প্রথম দিন থেকেই জানতাম যে আমাদের সব ম্যাচ জিততে হবে। কারণ, সেমিফাইনালে যদি খেলা না হয়, ওটাই বাঁচাবে। তাই দলকে অভিনন্দন, গ্রুপের সব ম্যাচ জেতার জন্য। আমাদের সবাই ছন্দে রয়েছে। আমরা প্রথম বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে নামতে চলেছি। দলগত ভাবে নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দেওয়াই এখন লক্ষ্য। যদি সেটা করতে পারি, তবে আমরা ভাল জায়গায় থাকব। উল্টোদিকে কে থাকবে তা ভাবছি না।”

আরও পড়ুন: কর্ণাটকের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত জয়, ১৩ বছর পর রঞ্জির ফাইনালে বাংলা

তবে শুধু প্রথম সেমিফাইনাল নয়, বৃষ্টির জেরে দ্বিতীয় সেমিফাইনালও ভেস্তে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। কিছুক্ষণ পর সিডনিতেই দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই ম্যাচটিও পরিত্যক্ত হয়ে গেলে গ্রুপ পর্যায়ে ভালো রেকর্ডের সুবাদে ফাইনালে চলে যাবে প্রোটিয়ারা।