‘নীতি আরও সুস্পষ্ট করুন’, করোনা টিকাকরণ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের ভর্ৎসনার মুখে কেন্দ্র

‘‘বিভিন্ন রাজ্য বিদেশের টিকা পাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র চাইছে। রাজ্যগুলি নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় নামুক এটাই কি কেন্দ্র চাইছে?’’ রাজ্য এবং কেন্দ্রের জন্য টিকার দু’রকম দাম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বিচারপতিরা।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

কোভিডের টিকাকরণ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের একাধিক প্রশ্নের মুখে পড়ল কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে চলছিল করোনা রোগীদের ওষুধ, অক্সিজেন এবং টিকা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত মামলার শুনানি। সেখানেই শীর্ষ আদলতের এক গুচ্ছে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় কেন্দ্রের সলিসেটর জেনারেল তুষার মেহতাকে।

করোনাভাইরাসের টিকাকরণ নিয়ে কেন্দ্রের নীতির ব্যাপারেও সোমবার জানতে চেয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। বিচারপতিদের বেঞ্চ তুষারকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘‘বিভিন্ন রাজ্য বিদেশের টিকা পাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র চাইছে। রাজ্যগুলি নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় নামুক এটাই কি কেন্দ্র চাইছে?’’ রাজ্য এবং কেন্দ্রের জন্য টিকার দু’রকম দাম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বিচারপতিরা। তিন বিচারপতির বেঞ্চ বলেছেন, ‘‘কেন রাজ্যগুলিকে বেশি দামে টিকা কিনতে হবে? কেন্দ্রকেই গোটা জাতির দায়িত্ব নিয়ে হবে।’’

কোভিডের টিকাকরণ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের একাধিক প্রশ্নের মুখে পড়ল কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে চলছিল করোনা রোগীদের ওষুধ, অক্সিজেন এবং টিকা দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত মামলার শুনানি। সেখানেই শীর্ষ আদলতের এক গুচ্ছে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় কেন্দ্রের সলিসেটর জেনারেল তুষার মেহতাকে।

করোনাভাইরাসের টিকাকরণ নিয়ে কেন্দ্রের নীতির ব্যাপারেও সোমবার জানতে চেয়েছে দেশের শীর্ষ আদালত। বিচারপতিদের বেঞ্চ তুষারকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘‘বিভিন্ন রাজ্য বিদেশের টিকা পাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র চাইছে। রাজ্যগুলি নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় নামুক এটাই কি কেন্দ্র চাইছে?’’ রাজ্য এবং কেন্দ্রের জন্য টিকার দু’রকম দাম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বিচারপতিরা। তিন বিচারপতির বেঞ্চ বলেছেন, ‘‘কেন রাজ্যগুলিকে বেশি দামে টিকা কিনতে হবে? কেন্দ্রকেই গোটা জাতির দায়িত্ব নিয়ে হবে।’’

১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সিদের টিকাকরণে কেন্দ্র যে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে না, সে ব্যাপারটিও নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। শীর্ষ আদালতের প্রশ্ন, ‘‘’৪৫ বছরের ঊর্ধ্বদের টিকা নেওয়া নিশ্চিত করছে কেন্দ্রে। কিন্তু ১৮ থেকে ৪৪ বছর বসয়িদের মাত্র ৫০ শতাংশ টিকা নিশ্চিত করছে কেন্দ্র। বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে বেসরকারি হাসপাতালের ভরসায়। কিন্তু কোভিজের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সিদের মধ্যে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা যথেষ্ট বেশি। কিন্তু এ ব্যাপারে কেন্দ্র কেন উদ্যোগ নিচ্ছে না?’’

আরও পড়ুন : ইহুদি, জিউ, ইসরসাইলি আসলে সমার্থক, জেনে নিন এই শব্দগুলির আসল পরিচয়

সোমবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে বিচারপতিদের প্রশ্ন, পরিযায়ী শ্রমিক, কৃষকরা কীভাবে অ্যাপ ব্যবহার করে নিজেদের রেজিস্ট্রেশন করাবেন? কেন্দ্র কি মনে করে, সবাই ডিজিটাল মাধ্যমে এত সক্রিয়? এরপরই শীর্ষ আদালতের পরামর্শ, টিকানীতি সুস্পষ্ট ও সরল করতে হবে। তবে কো-উইন অ্যাপে টিকাপ্রাপকদের নাম নথিভুক্ত থাকা বাঞ্ছনীয়, কেন্দ্রের এই নীতির সঙ্গে একমত দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

এছাড়া এদিনের শুনানিতে সরকারি ও বেসরকারি স্তরে টিকার দু’রকম দাম নিয়েও কেন্দ্রকে প্রশ্ন করেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা। কেন্দ্রর তরফে সওয়াল করছিলেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা। তাঁকে বেশ ভর্ৎসনার মুখে পড়তে হয়। শীর্ষ আদালতের পরামর্শ, দেশজুড়ে টিকার একটাই দাম হওয়া উচিত। ইতিমধ্যে দেশে করোনা টিকা পেয়েছেন ২১ লক্ষের বেশি মানুষ। কেন্দ্রের দাবি, ২০২১এর ডিসেম্বরের মধ্যে টিকাকরণ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার লক্ষ্যে এগোচ্ছে। তবে তার মাঝেই টিকানীতি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের একাধিক সমালোচনার মুখে পড়তে হল কেন্দ্রকে।

আরও পড়ুন : ‘মাসে একবার অনর্থক কথা বলে করোনাকে রোখা যাবে না’, মোদিকে বিঁধলেন রাহুল

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest