Tensions High in Dwarka After Right-Wing Hindu Mob Vandalises Church, Santa claus effigy burnt in Agra

দিল্লিতে জয় শ্রীরাম বলে চার্চে ব্যাপক ভাঙচুর, ‘গোলি মারো’ স্লোগান, আগ্রাতে পুড়ল সান্তার কুশপুতুলে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

রাজধানীর বুকে ফের ‘গোলি মারো’ স্লোগান। এ বার ঘটনাস্থল দ্বারকার একটি চার্চ (Delhi Church vandalised)। ভাইরাল ভিডিয়োতে দেখা গিয়েছে, একদল যুবক ‘গোলি মারো’ স্লোগান দিচ্ছেন। অভিযোগ, ‘গোলি মারো’, ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিতে দিতে একটি চার্চে (Delhi Church vandalised) হামলা চালান। অভিযুক্তরা কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বজরং দলের সদস্য।

জানা গিয়েছে, রবিবার দ্বারকার ওই চার্চে প্রার্থনা চলছিল। বেশ কিছু মানুষ সেই প্রার্থনায় যোগ দিয়েছিলেন। সেই সময় আচমকা বজরং দলের সদস্যরা ধর্মান্তকরণের অভিযোগ তুলে চার্চে ভাঙচুর চালান বলে অভিযোগ। পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ তারা খবর পান মাটিয়ালা রোডের একটি চার্চের বাইরে ঝামেলা হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে উঠে এসেছে, স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ এবং কিছু দুষ্কৃতী চার্চে ব্যাপক ভাঙচুর চালান।

এই ঘটনায় মোট দুটি এফআইআর দায়ের করেছে বিন্দাপুর থানার পুলিশ। চার্চ ভাঙচুর এবং উত্তেজনা সৃষ্টির অভিযোগে একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। কোভিড-১৯ বিধি সংক্রান্ত দিল্লি বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষের গাইডলাইন অমান্য করে চার্চে জমায়েত করে প্রার্থনার অভিযোগে আর একটি এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ। দিল্লি বিপর্যয় মোকাবিলা কর্তৃপক্ষ ধর্মীয় জমায়েতের অনুমতি দিলেও এক্ষেত্রে একটি গোডাউনকে চার্চে পরিণত করে প্রার্থনা চলছিল বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন: শেয়ার বাজারে ‘ওমিক্রন’ হানা! ফের পতন নিফটি এবং সেনসেক্সের

বড়দিনের মুখে আগ্রায় সান্তাক্লজের কুশপুতুলে (Santa Claus Burnt) আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠল। অভিযোগ তির রাষ্ট্রীয় বজরং দলের সদস্যদের দিকে। আগ্রার একটি চার্চের সামনে জড়ো হয়ে বজরং দলের বেশ কয়েকজন কর্মী ‘সান্তাক্লজ মুর্দাবাদ’ (Santa Claus Burnt) স্লোগান দেন। তার পর পেট্রোল ঢালা হয় সান্তাক্লজের কুশপুতুলে। গোটা ঘটনার ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে সোশাল মিডিয়ায়।

এমজি রোডের সেন্ট জনস স্কোয়ার চার্চের সামনে সান্তাক্লজের কুশপুতুলে আগুন দেওয়া হয়। বিক্ষোভকারীদের দাবি, খ্রিস্টান সমাজ বড়দিনের উৎসবে সান্তাক্লজের আড়ালে ক্রমাগত ধর্মান্তরিত করার চেষ্টা করছে, যা বরদাস্ত করা হবে না। রাষ্ট্রীয় বজরং দলের আঞ্চলিক সাধারণ সম্পাদক অজ্জু চৌহান বলেন, ‘ছোট বাচ্চাদের সান্তাক্লজ বানিয়ে খ্রিস্টধর্মের দিকে ঝোঁক তৈরির চেষ্টা করা হচ্ছে। সান্তা কোনও উপহার দিতে আসে না, তার একমাত্র লক্ষ্য হিন্দুদের ধর্মান্তরিত করা।’

তাঁর দাবি, এমনটা আর বরদাস্ত করা হবে না। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, রাষ্ট্রীয় বজরং দল এর তীব্র বিরোধিতা করে। ধর্মান্তরের কোনও প্রচেষ্টা সফল হতে দেওয়া হবে না। এটা বন্ধ না হলে স্কুলের সামনে বিক্ষোভ শুরু হবে।

আরও পড়ুন: ছত্তিশগড়ের পুরভোটেও মোক্ষম ধাক্কা খেল বিজেপি, জিতল কংগ্রেস

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest