"We want an independent state, not a separate state," the KLO leader warned of an armed movement

ফের মাথাচাড়া দিচ্ছে কেএলও ? ‘পৃথক রাজ্য নয়, স্বাধীন রাষ্ট্র চাই’, এবার সশস্ত্র আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিলেন KLO নেতা

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

এতদিন পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে এসেছে কামতাপুর লিবারেশন অর্গানাইজেশন (KLO)। এবার সেই দাবি থেকে সরে দাঁড়াল এই বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটি। এবার আর রাজ্য নয়, সরাসরি স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের দাবিতে ভিডিও বার্তা দিল তারা। দাবি না মানলে সরাসরি সশস্ত্র আন্দোলনের পথে হাঁটার হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখল কেএলও। স্বাভাবিকভাবেই উত্তরবঙ্গের (North Bengal) এই বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের হঠাৎ সক্রিয়তা চিন্তায় রাখছে রাজ্যের গোয়েন্দাদের।

গত দু’মাসে চারটি ভিডিও বার্তা দিয়েছেন কেএলও প্রধান জীবন সিংহ। তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলাও দায়ের হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাতে ফেসবুক পেজে নয়া ভিডিও পোস্ট করে কেএলও। তাতে অবশ্য এবার জীবন সিংহকে দেখা যায়নি। বরং কোচ পাভেল নামে এক যুবক কেএলও-র বার্তা পাঠ করে। সে নিজেকে কেএলও-র বিদেশ সচিব হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। কী বলেছে ভিডিও বার্তায়?

জীবন সিংহের লেখা বার্তা পাভেল পাঠ করছে বলে দাবি করে জানায়, উত্তরবঙ্গের সাতটি জেলা, নেপালের কিছু অংশ, বিহারের কিষানগঞ্জ সংলগ্ন কিছু এলাকা, অসম ও মেঘালয়ের বেশ কিছু এলাকা ও বাংলাদেশের রংপুর এলাকা নিয়ে স্বাধীন কামতাপুর রাষ্ট্র গঠন করতে চায় কেএলও। ইতিহাসে যে কোচবিহার রাজ্যের উল্লেখ ছিল, তার যা সীমা তার পরিসর মেনেই স্বাধীন কামতাপুর রাষ্ট্র তৈরি করা হবে। এই বিবৃতিতে তারা ভারতকে তাদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে দাবি করেছে। দাবি না মানা হলে সশস্ত্র সংগ্রামের পথে হাঁটার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এই বার্তা নিয়ে জল্পনা বেড়েছে।

আরও পড়ুন : দিল্লিতে খুলছে স্কুল, বুধবার থেকেই দু’টি ধাপে ষষ্ঠ-দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস চালু হবে, তৃতীয় ওয়েবের ভয়ে দ্বিধায় অভিভাবকরা

কেএলও চিফ জীবন সিংহ-এর পর এবার নয়া ভিডিও ঘিরে হইচই। নিজেকে কেএলওর স্বঘোষিত বিদেশ সচিব পরিচয় দিয়ে পাভেল কোচ নামে এক ব্যক্তি জঙ্গল থেকে বার্তা দিল।ওই ব্যক্তি কালাশনিকভ পরিবেষ্টিত হয়ে এক ভিডিও বার্তায় কোনও এক গোপন ডেরা থেকে পৃথক কামতাপুর রাজ্যের দাবিতে সরব হয়েছেন।ওই ভিডিও বার্তায় ঝরঝরে ইংরেজিতে কথা বলেছেন পাভেল কোচ নামে পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি।

তবে জীবন সিংহের শেষ প্রকাশিত ভিডিওটি যে ধরণের জায়গা ও পদ্ধতিতে শুট করা হয়েছিল, এটিও প্রায় একই ধরণের জায়গায় শুট করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে দেখে মনে হচ্ছে।তাতে কেএলওর কেন্দ্রীয় সরকারের উপর মোহভঙ্গের বার্তা দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে যে, কেন্দ্রীয় সরকার ও ভারতীয় সংবিধানে কামতাপুরি মানুষদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সৎমায়ের ভূমিকা পালন করছে।আর কেন্দ্রীয় সরকারের হাতের পুতুল হয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও অসম প্রশাসন কামতাপুরি মানুষদের সমস্ত অধিকার থেকে বঞ্চিত করে অত্যাচার চালিয়ে আসছে।কিন্তু ওই বঞ্চনার শেষ কোথায় কেউ জানে না। তাই এবার আর সময় নষ্ট না করে পাল্টা জবাব দেওয়ার সময় এসেছে এবং তার জন্য চূড়ান্তভাবে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে কেএলও।বিষয়টিকে হালকা ভাবে নিলে তার মাশুল গুনতে হবে ভারত সরকার, অসম এবং পশ্চিমবঙ্গকে। যদিও কেএলওর ওই হুঁশিয়ারি নিয়ে মুখ খুলতে চাননি উত্তরবঙ্গের পুলিশ কর্তারা।

আরও পড়ুন : প্যারালিম্পিক্সে ইতিহাস, সেমিফাইনালে পৌঁছে টেবিল টেনিসে পদক নিশ্চিত করলেন ভাবিনা পটেল

 

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest