15 Month-long Farmers' Protest Ends, Agitators Celebrate Amid 'Victory March

Farmer Protest: বিজয় উৎসব করে বিক্ষোভ স্থল ছাড়লেন কৃষকরা, হেলিকপ্টার থেকে হল পুষ্পবৃষ্টি

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

দীর্ঘ ১৫ মাসের আন্দোলন (Kisan Andolon News) শেষে শনিবার সরকারিভাবে অস্থায়ী আস্তানা ছাড়ছেন (long agitation against farm laws)। সরানো হচ্ছে পুলিসের ব্যারিকেড। দিল্লিতে সিঙ্ঘু, টিকরি, গাজীপুর সীমানা থেকে হরিয়ানা ও পঞ্জাবের পথে কৃষকরা । ওইসব এলাকায় রীতিমতো উৎসবের পরিবেশ শনিবার। কেউ এনেছে ঘোড়ার গাড়ি, কেউ এনেছেন ট্রাক্টর। এসেছে আরও নানান ধরনের যানবাহন। সেই সব যানে তোলা হচ্ছে বিছানা, বালিশ, তোশক ও অন্যান্য সামগ্রী।জাতীও সড়কের দু’ধারে বিজয়ী কৃষকদের সংবর্ধনা জানানোর বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সিঙ্ঘু সীমানায় একটি হেলিকপ্টার থেকে পুষ্পবৃষ্টি(petals on farmers) করা হয় কৃষকদের মাথায়(Farmers Protest)। এক অনাবাসী ভারতীয় ওই হেলিকপ্টারের ব্যবস্থা করেন। শুক্রবার রাতে এখানেই মিষ্টি বিলি করা হয়। আয়োজন ছিল দেশাত্মবোধক সঙ্গীত ও নাচেরও। সব মিলিয়ে এলাহী ব্যবস্থা ছিল শনিবার।

দীর্ঘ ১৫ মাস পর শনিবার থেকে ঘরে ফিরতে শুরু করেছেন আন্দোলনরত কৃষকরা। সিঙ্ঘু, টিকরি, গাজিপুর সীমানায় দুদিন ধরেই চলছিল ঘরে ফেরার প্রস্তুতি। ঠিক ছিল শুক্রবারই বিজয় উৎসবের মাধ্যমে ঘরে ফেরার সূচনা করার কথা ছিল। কিন্তু চপার দুর্ঘটনায় প্রতিরক্ষা প্রধান বিপিন রাওয়াত-সহ ১৩ জনের মৃত্যুর কারণে উৎসবের দিন পিছিয়ে শনিবার করা হয়। প্রসঙ্গত শুক্রবার সস্ত্রীক বিপিন রাওয়াতের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে দিল্লিতে।

আস্তানার পরিকাঠামো ভাঙতে গিয়ে অনেক কৃষককে আবেগে কাঁদতেও দেখা যায়। প্রায় দেড় বছর ধরে বিভিন্ন প্রান্তের কৃষকরা একসঙ্গে থাকায় একটা আত্মীয়তার বন্ধনও গড়ে উঠেছিল। জয়ের আনন্দ এবং আস্তানা ছেড়ে যাওয়ার বিষাদ এদিন মিলেমিশে এক হয়ে যায়।

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest