কৃ্ষ্ণাঙ্গ হত্যার জের:হোয়াইট হাউসে বিক্ষোভ, ভয়ে–আতঙ্কে মাটির নীচে আত্মগোপন ট্রাম্পের

ওয়াশিংটন: কৃ্ষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে উত্তপ্ত আমেরিকা। শুক্রবার রাতে ওয়াশিংটন ডিসিতে হোয়াইট হাউসের বাইরে জড়ো হন বিক্ষোভকারীরা। জনরোষের হাত থেকে বাঁচতে সেই সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মাটিরে নীচে বাংকারে আত্মগোপন করেছিলেন বলে খবর।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এমনতিই নাজেহাল আমেরিকা, এরপর আবার মরার উপর খাঁড়ার ঘা শ্বেতাঙ্গ-কৃষ্ণাঙ্গ দ্বন্দ্ব। কিছুদিন আগেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের নির্মমভাবে হত্যার ঘটনার জেরে পুরো আমেরিকা জুড়ে এখন চলছে প্রবল বিক্ষোভ ও আন্দোলন। সেই বিক্ষোভের আঁচ গিয়ে পড়ে হোয়াইট হাউজেও। ওয়াশিংটন ডিসিতে শুক্রবার রাতে হোয়াইট হাউজের বাইরে বিক্ষোভকারীরা উপস্থিত হওয়ার পর যখন পরিস্থিতি ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে, তখনই নাকি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সুরক্ষায় তাঁকে হোয়াইট হাউজের আন্ডারগ্রাউন্ড বাঙ্কারে নিয়ে যাওয়া হয়। এই সংবাদ জানিয়েছেন দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস।

আরও পড়ুন: ১ জুন থেকে বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম, জেনে নিন নয়া দাম…

শুক্রবার যখন কয়েকশো লোক রীতিমতো আন্দোলন করতে করতে হোয়াইট হাউজের দিকে এগোন তখনই আমেরিকার সিক্রেট সার্ভিস এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পার্ক পুলিশের আধিকারিকরা তাঁদের মাঝপথেই আটকে দেওয়ার চেষ্টা করেন। যেভাবে মানুষের বিক্ষোভ আছড়ে পড়ে তা দেখে রীতিমতো ঘাবড়ে যান ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর সঙ্গীসাথীরা। অবস্থা বেগতিক দেখে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে মাটির তলার আস্তানায় পাঠিয়ে দেওয়া হলেও মেলানিয়া ট্রাম্প এবং ব্যারন ট্রাম্পকেও তাঁর সঙ্গে সেখানে পাঠানো হয়েছিল কিনা তা এখনও অস্পষ্ট।

প্রায় ঘণ্টাখানেক মাটির তলায় ঘাপটি মেরে থাকতে হয় ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। জানা গেছে, ওই বাঙ্কার থেকে তাঁকে ওপরে তোলার পরেও নাকি বেশ আতঙ্কেই ছিলেন মার্কিন সর্বেসর্বা।

শুক্রবার রাতে হোয়াইট হাউসের বাইরে বিক্ষোভের তীব্রতা দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের নিজস্ব সুরক্ষা বাহিনী। রবিবার ওয়াশিংটন ডিসি-সহ আমেরিকার ৪০টি শহরে কারফিউ জারি হয়। ১৫টি স্টেটে কাজে নামানো হয় ন্যাশনাল গার্ড মেম্বারদের।

আরও পড়ুন: ফের ঝড়ের দাপট কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে, ভাসবে গোটা রাজ্য

Gmail 3