হায়দরাবাদকে ১৭ রানে হারিয়ে এই প্রথমবার IPL ফাইনালে দিল্লি!

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

আবদুল সামাদে আর কেন উইলিয়ামসের লড়াইয়েও শেষরক্ষা হল না। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ওয়ার্নারের হায়দরাবাদকে ১৭ রানে হারিয়ে IPL ফাইনালে পৌঁছে গেল দিল্লি ক্যাপিটালস৷ এই প্রথমবার IPL ফাইনালে পৌঁছাল দিল্লি।

রবিবার IPL কোয়ালিফায়ার ২-এর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে একাই হায়দরাবাদের ফাইনালে যাওয়ার আশায় জল ঢেলে দিলেন মার্কাস স্টোইনিস। ব্যাট হাতে ৩৮ রানের ঝোড়ো ইনিংশের পাশাপাশি সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ৩টি গুরুত্বপূর্ণ উইকেটও তুলে নেন তিনি। রাবাডাও নিয়েছেন ৪টে উইকেট।

আরও পড়ুন :রবিবাসরীয় সকালে শীতের আমেজ রাজ্য জুড়ে, বর্ধমানের তাপমাত্রা নামল ১৪ ডিগ্রিতে

‌এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি অধিনায়ক শ্রেয়স আয়ার। শুরুটাও দুর্দান্ত করেন দুই ওপেনার ধাওয়ান এবং স্টইনিস। দু’‌জনেই মারমুখী মেজাজে ব্যাট করতে থাকেন। ওভার প্রতি দশ রানের গড়ে রান তোলেন। ৮.‌২ ওভারে স্টোইনিস যখন ৩৮ রান করে যখন আউট হন তখন দিল্লির রান ৮৬। তবে ভাল শুরু করেও আউট হয়ে যান শ্রেয়স (‌২১)‌।

এরপর সিমরন হেটমেয়ারকে নিয়ে দলের রান এগিয়ে নিয়ে যান তিনি। ৫০ বলে ৭৮ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলে ধাওয়ান আউট হলেও ২২ বলে ৪২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে অপরাজিত থেকে হেটমেয়ার। ২০ ওভার শেষে দিল্লির রান দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ১৮৯। হায়দরাবাদ বোলারদের মধ্যে রশিদ, হোল্ডার এবং সন্দীপ শর্মা একটি করে উইকেট নেন।

১৯০ রানের বিশাল লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে শুরুতেই ওয়ার্নারের (‌২) গুরুত্বপূর্ণ উইকেট হারায় হায়দরাবাদ। ১৭ রান করে ফিরে যান প্রিয়ম গর্গও। ওই ওভারেই মনীশ পাণ্ডেকেও (‌১৭)‌ আউট করেন স্টোইনিস।‌ এরপর উইলিয়ামসন পরিত্রাতা হিসেবে দেখা দেন। হোল্ডার দ্রুত আউট হলেও কাশ্মীরের তরুণ প্রতিভা আবদুল সামাদকে পালটা লড়াই চালিয়ে যান কিউয়ি ব্যাটসম্যান।২৭ বলে ৫০ রানও যোগ করে ফেলেন। কিন্তু এই জুটিও ভাঙেন সেই স্টইনিস।

৪৫ বলে ৬৭ রান করে উইলিয়ামসন ফিরতেই হায়দরাবাদের যাবতীয় আশা কার্যত শেষ হয়ে যায়। ১৯ তম ওভারে আবার পরপর দু’‌বলে আবদুল সামাদ (‌৩৩) এবং রশিদ খানকে (‌১১) আউট করে ম্যাচ পুরোপুরি দিল্লির পকেটে এনে দেন রাবাডা। হ্যাটট্রিকের বলটি ওয়াইড করলেও পরবর্তী বলে আবার আউট করে দেন শ্রীবৎস গোস্বামীকে (‌০)। ফলে ম্যাচ সেখানেই শেষ হয়ে যায়। ‌‌‌সবমিলিয়ে রাবাডা নেন চারটি উইকেট এবং স্টইনিস নেন তিনটি উইকেট।

আরও পড়ুন : ‘আমাদের গর্ব’, কমলা হ্যারিসের জয়ে চোখে জল তামিলনাড়ুর এই গ্রামের বাসিন্দাদের

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest