‘তথ্য গোপন করে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা অসম্ভব’, “রুটিন” অভিযোগ রাজ্যপালের

কলকাতা: করোনায় আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা গোপন করছে বলে বারবার অভিযোগ করেছেন বিরোধীরা। এবার সেই একই অভিযোগের সুর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের গলায়। সোমবার সকালে করোনা সংক্রান্ত পরপর দু’টি টুইট করেন তিনি।

রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় পরপর তিনটি টুইট করেন। প্রথম টুইটে তিনি দাবি করেছেন, “ঠিক কতগুলো পরীক্ষার রিপোর্ট এখনও প্রকাশিত হয়নি সেই ব্যাপারে ডেরেক ও ব্রায়ান যদি একটু আলোকপাত করেন। কারণ তিনি সোশ্যাল মিডিয়াতে তৃণমূলের মুখপাত্র। আমি মুখ্যসচিবকে জানিয়েছি যে এই সংখ্যাটি হয়তো ৪০,০০০ এর থেকেও কিছু বেশি, যা যথেষ্ঠই উদ্বেগজনক বিষয়।”

আরও পড়ুন: UNLOCK-1: প্রথম দিনেই যানজটে ‘লকড’ শহরের বহু রাস্তা, বাদুড় ঝোলা বাস, কোলে চড়া ভিড় অটোয়

করোনা-পরীক্ষার পর যদি সেই পরীক্ষার রিপোর্ট আসতে দেরি হয়। তাহলে করোনা পরীক্ষার উদ্দেশ্যই সফল হবেনা। এমনটাই দাবি করেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি রাজ্যে ‘করোনাভাইরাসে আক্রান্তকারীর সংখ্যা তথ্যবিকৃতির কারণেই ক্রমশ বাড়ছে’, টুইট করে একথা দাবি করেন জগদীপ ধনখড়। ‘তথ্যগোপন করে কোনও কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা যে করা যায়না,’ সেকথাও স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন রাজ্যপাল। কারণ ‘সঠিক তথ্য মানুষের কাছে পৌঁছলে মানুষ আগেভাগে সচেতন হতে পারতেন’, এতে ‘করোনা আক্রান্তকারীর সংখ্যা কিছুটা হলেও হ্রাস টানা সম্ভব হত’ বলে জানালেন জগদীপ ধনখড়।

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে বারবার সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল। করোনা নিয়ে সংঘাতও এই প্রথম নয়। তবে মুখ্যসচিবের সঙ্গে রাজ্যপালের ঘণ্টাদুয়েকের বৈঠকের পর করোনা সংক্রান্ত মতবিরোধ কিছুটা হলেও ঘুচেছিল বলে মনে করেছিল রাজনৈতিক মহল। তবে সোমবার সকালের পরপর দু’টি টুইটে যে নবান্ন-রাজভবন সম্পর্কের আবারও অবনতি হল বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের। 

আরও পড়ুন: ফের ঝড়ের দাপট কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে, ভাসবে গোটা রাজ্য

Gmail 3