আলিপুর চিড়িয়াখানায় খাঁচার জাল কেটে চুরি ৩টি ধনেশ পাখি, ফের প্রশ্নে নিরাপত্তা

চিড়িয়াখানার তরফে জানানো হয়েছে, গতকাল রাত ১২টা থেকে ১২.৩০ মিনিটের মধ্যে চুরি হয়েছে পাখিগুলি। পাখিগুলির বাজারমূল্য প্রায় ২০ লক্ষ টাকা।
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest

ফের আলিপুর চিড়িয়াখানা থেকে চুরি গেল বন্যপ্রাণ। এবার গায়েব হল তিনটি বিরল ধনেশ পাখি। যার পর চিড়িয়াখানার নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এই ঘটনার সঙ্গে পাচারচক্রের যোগ থাকতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। বিশাল আকৃতির তিনটি পাখি নিয়ে পাচারকারীরা কী ভাবে চিড়িয়াখানা থেকে বেরিয়ে গেল প্রশ্ন উঠছে তা নিয়েও।

চিড়িয়াখানা সূত্রে জানা গিয়েছে, চুরি যাওয়া পাখিগুলির নাম কিল বিলড টিউকান। তারা আকারে বেশ বড়। গত বছর বাংলাদেশ থেকে পাচার হয়ে আসার পর সেগুলিকে উদ্ধার করে বনদফতর। এর পর তাদের ঠিকানা হয় জলহস্তির আবাসের সামনে পাখির খাঁচায়। বৃহস্পতিবার সকালে চিড়িয়াখানার কর্মীরা খাবার দিতে গিয়ে দেখেন সেখানে নেই পাখিগুলি। তার পর দেখা যায় খাঁচার নেট কাটা। চিড়িয়াখানার তরফে জানানো হয়েছে, গতকাল রাত ১২টা থেকে ১২.৩০ মিনিটের মধ্যে চুরি হয়েছে পাখিগুলি। পাখিগুলির বাজারমূল্য প্রায় ২০ লক্ষ টাকা।

চিডি়য়াখানার অধিকর্তা বলেন, ‘‘এই প্রজাতির মোট ৪টি পাখি ছিল চিড়িয়াখানায়। সিংহের এনক্লোজারের উল্টোদিকে একটি বড় খাঁচায় ছিল তারা। দিনকয়েক আগে ৩টি পাখি সামান্য অসুস্থ হয়ে পড়ায় চিকিৎসার সুবিধার জন্য ওই বড় খাঁচার ভিতরেই একটি ছোট খাঁচায় তাদের রাখা হয়। বুধবার রাতে দুষ্কৃতীরা খাঁচার তারের জাল কেটে ওই ৩টি পাখিকে চুরি করে। এ দিন সকালে কর্মীদের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।’’

আরও পড়ুন: খাস কলকাতায় বিজেপি-র রোড-শো ঘিরে রণক্ষেত্র আমহার্স্ট স্ট্রিট, শুভেন্দু-অর্জুনকে লক্ষ্য করে জুতো, ঝাঁটা

টাউকানের খাঁচার ৫০ মিটার দুরে দু’জন নৈশপ্রহরী মোতায়েন ছিল বলেও জানিয়েছেন আশিস। তাঁর কথায়, ‘‘এর পরেও কী ভাবে চুরি হল বুঝতে পারছি না।’’ তিনি জানান, অভিযোগ দায়েরের পর তদন্তকারী পুলিশকর্মীরা চিড়িয়াখানায় এসে ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন। ঘটনাস্থলের কোনও সিসিটিভি ফুটেজও নেই চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের কাছে।

ধনেশ গোত্রের টাউকান পাখির বিভিন্ন প্রজাতিগুলিকে দক্ষিণ আমেরিকায় দেখতে পাওয়া যায়। সূত্রের খবর, পাখি সংগ্রাহকদের কাছে যথেষ্ট মূল্যবান হিসেবে পরিচিত কিল-বিল্‌ড টাউকান। প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে একই কায়দায় রাতের অন্ধকারে খাঁচার জাল কেটে আলিপুর চিড়িয়াখানা থেকে ৮টি মার্মোসেট গোত্রের বানর চুরি করেছিল দুষ্কৃতীরা। সেই প্রাণীগুলিও ছিল সাকিন দক্ষিণ আমেরিকার।

আরও পড়ুন: নিকাশিনালা পরিষ্কার করতে গিয়ে নিহত ৪ ঠিকাশ্রমিক, ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেবে কলকাতা পুরসভা

 

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp
Share on email
Share on reddit
Share on pinterest